জাতীয় দলের জার্সিতে ধোনি ও শামি।
জাতীয় দলের জার্সিতে ধোনি ও শামি।

আমাকে বোকা বানানোর চেষ্টা করিস না, ধোনির ঠান্ডা মাথার ধমক ভোলেননি শামি

  • ২০১৪ নিউজিল্যান্ড সফরে ধোনির রাগ টের পেয়েছিলেন টিম ইন্ডিয়ার তারকা পেসার।

মাঠে যে কোনও পরিস্থিতিতে ঠান্ডা মাথায় সিদ্ধান্ত নিতেন বলেই মহেন্দ্র সিং ধোনিকে ক্যাপ্টেন কুল আখ্যা দেওয়া হয়। কদাচিৎই মাঠে মাথা গরম করতে দেখা গিয়েছে মাহিকে। 

হিমশীতল অভিব্যক্তি দেখে বোঝার উপায় না থাকলেও ধোনি যে রাগ করতেন এবং দলের ক্রিকেটারদের ধমকও দিতেন ঠান্ডা মাথায়, সেটা জানা গেল মহম্মদ শামির কথায়। বাংলা দলে দীর্ঘদিনের সতীর্থ মনোজ তিওয়ারির সঙ্গে ইনস্টাগ্রাম লাইভে কথা বলার সময় শামি জানালেন, একটা বাউন্সারের জন্য ধোনি তাঁকে বলেছিলেন যে, ‘আর যাই হোক, আমাকে বোকা বানানোর চেষ্টা করিস না।’

শামি জানান, ক্রিকেটাররা পরিকল্পনা থেকে সরে গেলে ক্যাপ্টেন হিসেবে ধোনি কখনই চিৎকার করে বা হাত নেড়ে নিজের বিরক্তি প্রকাশ করেন না। বরং তাঁর ধমকানোর পদ্ধতিটাও সম্পূর্ণ ভিন্ন। ২০১৪-র নিউজিল্যান্ড সফরে ব্রেন্ডন ম্যাকালাম যে ম্যাচে ট্রিপল সেঞ্চুরি করেন, সেই ম্যাচেই ধোনির রাগ টের পেয়েছিলেন শামি।

তারকা পেসার বলেন, 'আগের দিন বিরাট যখন আমার বলে ম্যাকালামের ক্যাচ ছাড়ে, তখন ও মাত্র ১৪ রানে ব্যাট করছিল। পরের দিন লাঞ্চের আগের ওভারে আরও একটি ক্যাচ মিস করি আমরা। শেষ বলটা বিরক্তির সঙ্গেই বাউন্সার দিয়ে বসি, যেটা মাহি ভাইয়ের মাথার উপর দিয়ে বাউন্ডারিতে চলে যায়। ড্রেসিংরুমে ফেরার সময় মাহি ভাই বলে, ক্যাচ পড়লে হতাশা আসে। তবে তার মানে এই নয় যে, শেষ বলটা খারাপ করতে হবে। শেষ বলাটাও ভালো করা উচিত ছিল। আমি অজুহাত দিয়ে বলি, ওটা হাত থেকে পিছলে গিয়েছিল।'

শামি জানান, 'মাহি ভাই বলে, দেখ, অনেক লোক এসেছে আমার সামনে, খেলে চলে গিয়েছে। মিথ্যা বলিস না। ভুলে যাস না আমি শুধু তোর সিনিয়রই নই, ক্যাপ্টেনও। অন্য কাউকে বোকা বানাস, আমাকে নয়।'

বন্ধ করুন