জনপ্রিয় চ্যাট শো-এর আসরে হার্দিক ও রাহুল। ছবি- ইনস্টাগ্রাম।
জনপ্রিয় চ্যাট শো-এর আসরে হার্দিক ও রাহুল। ছবি- ইনস্টাগ্রাম।

শৃঙ্খলার অভাব রয়েছে বর্তমান ভারতীয় দলে, লোকেশ-হার্দিকের চ্যাট শো বিতর্কের উদাহরণ দিলেন যুবি

  • আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ায় সোশ্যাল মিডিয়ার এই ক্রিকেটীয় আড্ডায় কিছু অপ্রিয় কথাও বলতে শোনা যায় যুবিকে।

হার্দিক পান্ডিয়া ও লোকেশ রাহুলের চ্যাট শো বিতর্কের উদাহরণ টেনে যুবরাজ সিং বোঝালেন, শৃঙ্খলার অভাব রয়েছে বর্তমান ভারতীয় দলে।

লকডাউনে ঘরে সময় কাটানোর ফাঁকে টিম ইন্ডিয়ার সহ-অধিনায়ক রোহিত শর্মার সঙ্গে ইনস্টাগ্রাম লাইভে ক্রিকেট নিয়ে আলোচনায় মাতেন জোড়া বিশ্বকাপজয়ী ভারতীয় দলের সদস্য যুবারাজ সিং। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ায় সোশ্যাল মিডিয়ার এই ক্রিকেটীয় আড্ডায় কিছু অপ্রিয় কথাও বলতে শোনা যায় যুবিকে।

প্রথমত, রোহিতের তুলনামূলক প্রশ্নের জবাবে যুবরাজ বর্তমান ভারতীয় দলের থেকে তাঁর সময়ের জাতীয় দলে সিনিয়রদের অনেক বেশি সম্মান দেওয়া হতো বলে মন্তব্য করেন। দ্বিতীয়ত, তাঁর সময়ে দলের সিনিয়ররা অনেক বেশি শৃঙ্খলাপরায়ন ছিল বলেও জানান যুবি।

এক্ষেত্রে সোশ্যাল মিডিয়ার প্রভাব রয়েছে বলেও মনে করেন ২০১১ বিশ্বকাপের সেরা তারকা। তাঁর সময়ে সোশ্যল মিডিয়া না থাকায় লক্ষ্যভ্রষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা কম ছিল বলে ধারণা যুবরাজের।

শৃঙ্খলার প্রসঙ্গে যুবি গত বছর জনপ্রিয় টেলিভিশন চ্যাট শো-এ লোকেশ রাহুল ও হার্দিক পান্ডিয়ার বিতর্কিত মন্তব্যের উদাহরণ টানেন। যদিও এমন আচরণের পিছনে আইপিএলের ফলে হাতে প্রচুর টাকা আসাকেও দায়ি করেন প্রাক্তন তারকা।

যুবরাজ বলেন, 'কেএল-হার্দিকের ঘটনাটাই ধরা যাক। এমন কিছু হতে পারে, সেটা আমাদের ভাবনার বাইরে। আমাদের সময়ে হলে এমনটা হতো না। এটা যদিও ওদের দোষ নয়। আইপিএলের চুক্তির অঙ্কটা খুবই বড়। ওরা ভারতের হয়ে খেলার আগেই হাতে প্রচুর টাকা পেয়ে গিয়েছে। এইসব ক্ষেত্রে সিনিয়রদের সঠিক পরামর্শের প্রয়োজন। আমার মনে আছে, সচিন আমাকে বলেছিল, যদি মাঠে পারফর্ম করতে পারো, তবে সব কিছু তোমার পিছনে দৌড়বে।'

বন্ধ করুন