উচ্ছ্বাস ইস্টবেঙ্গলের (ছবি সৌজন্য টুইটার @ILeagueOfficial)
উচ্ছ্বাস ইস্টবেঙ্গলের (ছবি সৌজন্য টুইটার @ILeagueOfficial)

অগ্নিপরীক্ষার ম্যাচে জ্বলল মশাল, লিগে ৬ নম্বরে উঠল ইস্টবেঙ্গল

  • কয়েকদিন ধরেই কোলাডোর পারফরম্যান্স নিয়ে সমর্থকদের মনে ক্ষোভ দানা বাঁধছিল। এদিন গোল করে লাল-হলুদ সমর্থকদের মুখে হাসি ফোটান সেই স্পেনীয় ফুটবলারই।

টানা তিন ম্যাচে জয় অধরা ছিল। অবশেষে আরব সাগরের তীরে জয়ের মুখ দেখল ইস্টবেঙ্গল। ইন্ডিয়ান অ্যারোজকে ৩-১ গোলে হারালেন আনসুমানা ক্রোমারা।

তিন বছর পর কুপারেজে ফিরেছিল আই লিগ। একাধিক স্মৃতির সাক্ষী থাকা সেই মাঠে শুরু থেকেই বাড়তি উদ্যম নিয়ে খেলতে থাকে ইস্টবেঙ্গল। পাঁচ মিনিটের মধ্যেই সেই উদ্যমের ফল মেলে। পাঁচ মিনিটে গোল করেন হাইমে কোলাডো। মার্কোস এসপারার পাস থেকে অ্যারোজের জালে বল জড়িয়ে দেন তিনি। কয়েকদিন ধরেই স্পেনীয় ফুটবলারের পারফরম্যান্স নিয়ে সমর্থকদের মনে ক্ষোভ দানা বাঁধছিল। এদিন গোল করে লাল-হলুদ সমর্থকদের মুখে হাসি ফোটান তিনি।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই গোল শোধের সুবর্ণ সুযোগ পায় এস বেঙ্কটেশের অ্যারোজ। কিন্তু তা থেকে গোল করতে ব্যর্থ হন বিক্রম প্রতাপ সিং। তাঁর শট লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। ৫৪ মিনিটে অবশ্য ভুলের প্রায়শ্চিত্ত করেন বিক্রম। বাঁ-দিক থেকে গিয়ে ড্রিবল করে লাল-হলুদ বক্সে ঢুকে পড়েন। ঠান্ডা মাথায় জালে বল জড়িয়ে দেন।

তবে অ্যারোজের উচ্ছ্বাস বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। আট মিনিট পরেই ইস্টবেঙ্গলকে এগিয়ে দেন আশির আখতার। ৬৭ মিনিটে তৃতীয় গোল করে ইস্টবেঙ্গলের জয় নিশ্চিত করেন লালরিনডিকা রালতে। এই গোলের পিছনেও কোলাডোর অবদান ছিল। তাঁর নেওয়া কর্নার থেকেই গোল করেন রালতে।

লতে।

এদিনের জয়ের ফলে ১২ ম্যাচে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলে ছ’ নম্বরে উঠে এল লাল-হলুদ। গত কয়েকদিন ধরে যে অবনমন আতঙ্ক তৈরি হয়েছিল, তাও কেটে গেল অনেকটাই।




বন্ধ করুন