ফের হার ইস্টবেঙ্গলের (ছবি সৌজন্য টুইটার @ILeagueOfficial)
ফের হার ইস্টবেঙ্গলের (ছবি সৌজন্য টুইটার @ILeagueOfficial)

পরপর ২ ম্যাচে হার, লিগ জয়ের আশা কার্যত শেষ ইস্টবেঙ্গলের

আপাতত লিগ টেবিলে আট নম্বরে রয়েছে ইস্টবেঙ্গল। ১০ ম্যাচে লাল-হলুদের পয়েন্ট ১১।

নতুন চিকিৎসক এসেছেন। কিন্তু রোগীর অবস্থা কোনওমতেই পালটাচ্ছে না। বরং ক্রমশ অবনতি হচ্ছে 'রোগী' ইস্টবেঙ্গলের।

গত ম্যাচে ঘরের মাঠে অ্যারোজের বিরুদ্ধে হারের পর লিগ টেবিলে নিচের দিকে থাকা আইজলের বিরুদ্ধে ফের মশাল জ্বলবে বলে আশা করেছিলেন লাল-হলুদ সমর্থকরা। তা তো হলই না। উলটে তিন পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ল আইজল।

অ্যারোজের বিরুদ্ধে যে প্রথম একাদশ নামিয়েছিলেন, সেই দলে পাঁচটি পরিবর্তন করেন লাল-হলুদ কোচ মারিয়ো রিভেরা। সামাদ আলি মল্লিক, আশির আখতার, আভাস থাপা, কাশিম আইদারা ও আনসুমানা ক্রোমাকে শুরু থেকেই নামিয়েছিলেন। তাতে অবশ্য দলের খেলায় পরিবর্তন হয়নি। প্রথমার্ধে বল পজেশনে এগিয়ে থাকলেও ইস্টবেঙ্গলের খেলায় কোনও ধার ছিল না। অন্যদিকে, প্রতি আক্রমণে ইস্টবেঙ্গলকে চমকে দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়ে মাঠে নেমেছিল পাহাড়ি দল।

এদিন ২৩ মিনিটে গোলের সুবর্ণ সুযোগ পান ক্রোমা। কিন্তু তাঁর শট পোস্টে লাগে। প্রথমার্ধের ১০ মিনিটে কোলাডো ও ব্র্যান্ডন সুযোগ পেলেও গোলমুখ খুলতে ব্যর্থ হন।

প্রথম ৪৫ মিনিটে গোল করতে না পারলেও দ্বিতীয়ার্ধে ইস্টবেঙ্গলের খেলায় বাড়তি তাগিদ চোখে পড়েনি। বরং খেলার গতির বিরুদ্ধে ৭৬ মিনিটে লাল-হলুদের জালে বল জড়িয়ে দেন ভেরন। ডানদিক থেকে দৌড় শুরু করেন উইলিয়াম তালুনফেলা। তাঁর বল যায় মাঝে দাঁড়িয়ে থাকা জাস্টিস মর্গ্যানের কাছে। তিনি ভেরনের দিকে বল বাড়ান। সেখানে লাল-হলুদ জালে বল ঢুকিয়ে দেন ভেরন।

এদিনের ম্যাচের পর ১০ ম্যাচে দুই দলেরই পয়েন্ট ১১। তবে গোল পার্থক্যে সপ্তম স্থানে রয়েছে আইজল। আট নম্বরে রয়েছে ইস্টবেঙ্গল। এই হারের লিগ জয়ের আশা কার্যত শেষ হয়ে গেল লাল-হলুদের।

বন্ধ করুন