বাংলা নিউজ > ময়দান > এজবাস্টনে আত্মসমর্পণ রুটদের, সাত বছর পর ঘরের মাঠে টেস্ট সিরিজ হারল ইংল্যান্ড
এজবাস্টন টেস্টে ইংল্যান্ডকে বিধ্বস্ত করল নিউজিল্যান্ড। ছবি- আইসিসি।
এজবাস্টন টেস্টে ইংল্যান্ডকে বিধ্বস্ত করল নিউজিল্যান্ড। ছবি- আইসিসি।

এজবাস্টনে আত্মসমর্পণ রুটদের, সাত বছর পর ঘরের মাঠে টেস্ট সিরিজ হারল ইংল্যান্ড

  • দীর্ঘ ২২ বছর পর ইংল্যান্ড সফরে টেস্ট সিরিজ জয় নিউজিল্যান্ডের।

সিরিজ শুরুর আগে ইংল্যান্ড অধিনায়ক জো রুট বলেছিলেন যে, তাঁরা নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে দু'টি ও ভারতের বিরুদ্ধে সিরিজের পাঁচটি টেস্ট জিতে অ্যাশেজের প্রস্তুতি সারতে চান।

ভারতদের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ শুরু হতে এখনও বেশ কিছুদিন বাকি রয়েছে। তার আগে নিউজিল্যান্ডের কাছে ২ টেস্টের সিরিজে বিধ্বস্ত হল ইংল্যান্ডে। তাও আবার নিজেদের ঘরের মাঠে। উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, প্রথম টেস্ট ড্র হলেও লর্ডসে আগাগোড়া পিছেয়ে ছিলেন ব্রিটিশরাই। এজবাস্টনে কার্যত আত্মসমর্পণ করেন রুটরা। সিরিজের দ্বিতীয় তথা শেষ টেস্ট সাড়ে তিন দিনও গড়াল না।

ফলে ঘরোয়া মরশুমের শুরুতেই নিউজিল্যান্ডের কাছে ০-১ ব্যধানে টেস্ট সিরিজ হারতে হয় ইংল্যান্ডকে। ৭ বছর পর ব্রিটিশদের তাদের ঘরের মাঠে টেস্ট সিরিজ হারের স্বাদ দিল নিউজিল্যান্ড। ইংল্যান্ড এর আগে নিজেদের দেশে টেস্ট সিরিজ হারে ২০১৪ সালে।

এজবাস্টনে ইংল্যান্ড প্রথম ইনিংসে অল-আউট হয় ৩০৩ রানে। ররি বার্নস ৮১ ও ড্যান লরেন্স অপরাজিত ৮১ রান করেন। বোল্ট ৪টি ও হেনরি ৩টি উইকেট নেন।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে নিউজিল্যান্ড প্রথম ইনিংসে ৩৮৮ রান তোলে। ডেভন কনওয়ে ৮০, উইল ইয়ং ৮২ ও রস টেলর ৮০ রান করেন। ব্রড ৪টি এবং উড ও স্টোন ২টি করে উইকেট নেন।

৮৫ রানে পিছিয়ে থেকে ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় ইনিংস শেষ হয়ে যায় মাত্র ১২২ রানে। মার্ক উড ২৯ ও ওলি পোপ ২৩ রান করেন। হেনরি ও ওয়াগনার ৩টি করে এবং বোল্ট ও আজাজ প্যাটেল ২টি করে উইকেট দখল করেন।

জয়ের জন্য ৩৮ রানের লক্ষ্যমাত্রা সামনে নিয়ে শেষ ইনিংসে ব্যাট করতে নামে নিউজিল্যান্ড। কনওয়ে (৩) ও ইয়ংয়ের (৮) উইকেটের বিনিময়ে ৪১ রান তুলে ম্যাচ এবং সেই সঙ্গে সিরিজ জিতে নেয় নিউজিল্যান্ড। ১৯৯৯ সালের পর থেকে এই প্রথমবার ইংল্যান্ডে টেস্ট সিরিজ জেতে কিউয়িরা। সুতরাং, নিউজিল্যান্ডের দীর্ঘ ২২ বছরের প্রতীক্ষার অবসান হয়।

টম লাথাম শেষ ইনিংসে ২৩ রানে অপরাজিত থাকেন। সেই সঙ্গে তিনি নবম কিউয়ি ক্রিকেটার হিসেবে টেস্টে ৪ হাজার রানের মাইলস্টোন টপকে যান। ম্যাচের সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হন ম্যাট হেনরি। নিউজিল্যান্ডের তরফে সিরিজের সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছেন ডেভন কনওয়ে। ইংল্যান্ডের তরফে সিরিজের সেরা হয়েছেন ররি বার্নস।

বন্ধ করুন