বাংলা নিউজ > ময়দান > ENG vs NZ: পরপর তিন বলে পড়ল তিন উইকেট, ব্রডের এক ওভারেই সম্পূর্ণ বদলে গেল ম্যাচ
উইকেট নিয়ে ব্রডের উচ্ছ্বাস। ছবি- রয়টার্স। (Action Images via Reuters)

ENG vs NZ: পরপর তিন বলে পড়ল তিন উইকেট, ব্রডের এক ওভারেই সম্পূর্ণ বদলে গেল ম্যাচ

  • নিউজিল্যান্ডের দ্বিতীয় ইনিংসের ৮৪তম ওভারে নতুন বলে নিজের দক্ষতার সামান্য পরিচয় দেন ব্রড।

তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে লর্ডসে মুখোমুথি হচ্ছে ইংল্যান্ড এবং নিউজিল্যান্ড। প্রথম দিনে ১৭ উইকেট পড়ার পর, দ্বিতীয় দিনে টম ব্লান্ডেল ও ডারিল মিচেলের দুর্ধর্ষ পার্টনারশিপ নিউজিল্যান্ডকে ম্যাচে ফেরায়। তবে তৃতীয় দিনে স্টুয়ার্ট ব্রডের একটি ওভারই ম্যাচের ছবিটা একেবারে ৩৬০ ডিগ্রি বদলে দিল।

তৃতীয় দিন ব্লান্ডেল ও মিচেল দুইজনেই ৯০-র কোটা থেকে নিজের ইনিংস শুরু করার পর, ততক্ষণে মিচেল নিজের দ্বিতীয় টেস্ট শতরান করে ফেলেছেন। দু’জনে পঞ্চম উইকেটে ২০০ রান যোগ করার থেকে আর মাত্র পাঁচ রান দূরে, কিউয়িদের লিডও ২৪২ রানের। এমন পরিস্থিতিতে স্বাভাবিকভাবেই ম্যাচে এগিয়ে ছিলেন কিউয়িরা। তবে ব্রড সবটা উলট-পালট করে দেন।

আরও পড়ুন:- কিউয়িদের পথের কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়ে জো রুট, অধিনায়কোচিত হাফ-সেঞ্চুরিতে লর্ডস টেস্ট উত্তেজক করলেন স্টোকস

কিউয়িদের দ্বিতীয় ইনিংসের ৮৪তম ওভার তৃতীয় বলে এক দুর্দান্ত আউটসুইংয়ে প্রথমে ১০৮ রানে মিচেলকে আউট করে পার্টনারশিপ ভাঙেন ব্রড। এরপর ঠিক তার পরের বলেই কলিন ডি গ্রান্ডহোমকে এক দারুণ ইনসুইং করে এলবিডব্লুর আপিল করেন। যদিও আম্পায়র আউট দেননি। তবে অন্যমনস্ক গ্রান্ডহোম রান আউট হন। ওভারের পঞ্চম বলে ফের একটা আউটসুইং এবং এবার কাইল জেমিসনের অফস্টাম্প ছিটকে দেন ব্রড।

আরও পড়ুন:- আবারও কিউয়ি ফিল্ডারের থ্রো স্টোকসের ব্যাটে লেগে ছুটল বাউন্ডারির দিকে

নিমেষের মধ্যে নিউজিল্যান্ড ২৫১-৪ থেকে ২৫১-৭ হয়ে যায়। এই একটা ওভারেই খেলা পুরো ঘুরে যায়। কিউয়িরা ২৮৫ রানে অল আউট হয়ে ইংল্যান্ডকে জয়ের জন্য ২৭৭ রানের লক্ষ্য দেন। চতুর্থ দিনে ম্যাচ জিততে ব্রডের দলের আর ৬১ রান চাই, হাতে পাঁচ উইকেট। ভুলে গেলে চলবে না এই ম্যাচের আগে ইংল্যান্ড দল থেকে বাদ পড়েছিলেন ব্রড। তাঁর ভবিষ্যত নিয়ে শুরু হয়েছিল জল্পনা। তবে পারফর্ম করে ৩৫ বছরের ব্রড বুঝিয়ে দিলেন তিনি এখনও বিশ্বের অন্যতম সেরা ফাস্ট বোলার।

বন্ধ করুন