বাড়ি > ময়দান > ENG vs PAK: তারুণ্য ও অভিজ্ঞতার যুগলবন্দিতে রুদ্ধশ্বাস জয় পাকিস্তানের
তারুণ্য ও অভিজ্ঞতার মেলবন্ধন। ছবি- টুইটার (ICC)।
তারুণ্য ও অভিজ্ঞতার মেলবন্ধন। ছবি- টুইটার (ICC)।

ENG vs PAK: তারুণ্য ও অভিজ্ঞতার যুগলবন্দিতে রুদ্ধশ্বাস জয় পাকিস্তানের

  • শেষ বলে ছক্কা মারলে ম্যাচ তথা সিরিজ জিতত ইংল্যান্ড।

তারুণ্য ও অভিজ্ঞতার মেলবন্ধনে ভর করে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজের শেষ টি-২০ ম্যাচে জয় তুলে নেয় পাকিস্তান। সেই সঙ্গে তারা তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজ ১-১ ড্র করতে সক্ষম হয়। 

সিরিজের প্রথম টি-২০ ম্যাচ বৃষ্টির জন্য ভেস্তে যায়। দ্বিতীয় ম্যাচে ইংল্যান্ড পাকিস্তানের ঝুলিয়ে দেওয়া বড় রানের টার্গেট তাড়া করে জয় তুলে নেয় এবং সিরিজে ১-০ এগিয়ে যায়। শেষমেশ তৃতীয় ম্যাচে ব্রিটিশদের ৫ রানের সংক্ষিপ্ত ব্যবধানে পরাজিত করে পাকিস্তান।

এবারের ইংল্যান্ড সফরে এটাই পাকিস্তানের প্রথম জয়, যা আসে একেবারে শেষ ম্যাচে। এর আগে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ ১-০ ব্যবধানে জিতছে ইংল্যান্ড।

ম্যাঞ্চেস্টারের শেষ ম্যাচ অত্যন্ত উত্তেজক রূপ নেয়। প্রথমে ব্যাট করে পাকিস্তান ২০ ওভারে ৪ উইকেটের বিনিময়ে ১৯০ রানের বড় ইনিংস গড়ে তোলে। মহম্মদ হাফিজ ফের হাফ-সেঞ্চুরি করেন। তিনি ৫২ বলে ৮৬ রান করে অপরাজিত থাকেন। ৪টি চার ও ৬টি ছক্কা মারেন হাফিজ।

অভিষেককারী হায়দার আলি কেরিয়ারের প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচেই দুরন্ত হাফ-সেঞ্চুরি করেন। ৫টি চার ও ২টি ছক্কার সাহায্যে ৩৩ বলে ৫৪ রান করে আউট হন ১৯ বছরের তরুণ ডানহাতি ব্যাটসম্যান। এছাড়া বাবর আজম ২১ ও শাদব খান ১৫ রান করেন। ক্রিস জর্ডন ২টি উইকেট নেন।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে ইংল্যান্ড পুনরায় বড় রান তাড়া করে জয় তুলে নেওয়ার উপক্রম করে। যদিও জয়ের দোরগোড়া থেকে ফিরতে হয় তাদের। শেষ ওভারে জয়ের জন্য ১৭ রান প্রয়োজন ছিল ব্রিটিশদের। ৫ বলে ১১ রান তুলে ফেলে তারা। শেষ বলে ছক্কা মারলেই ম্যাচ তথা সিরিজ পকেটে পুরতে পারত ইংল্যান্ড। যদিও পঞ্চম বলে ছক্কা হাঁকানো টম কারান শেষ বলেও তার পুনরাবৃত্তি করতে পারেননি।

নির্ধারিত ২০ ওভারে ইংল্যান্ড আটকে যায় ৮ উইকেটে ১৮৫ রানে। মঈন আলি ৪টি চার ও ৪টি ছক্কার সাহায্যে ৩৩ বলে ৬১ রান করেন। কেকেআরের টম ব্যান্টন করেন ৩১ বলে ৪৬ রান। তিনি ৮টি বাউন্ডারি মারেন। মর্গ্যান ১০ রান করে রান-আউট হন। শাহিন আফ্রিদি ও ওয়াহাব রিয়াজ ২টি করে উইকেট নেন।

ম্যাচের সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছেন মহম্মদ হাফিজ। সিরিজ সেরার পুরস্কারও ওঠে তাঁর হাতেই।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:- পাকিস্তান: ১৯০/৪ (২০ ওভার), ইংল্যান্ড: ১৮৫/৮ (২০ ওভার), (পাকিস্তান ৫ রানে জয়ী)।

বন্ধ করুন