বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > মুম্বই ম্যাচে হারের দায় পুরোটাই রেফারির উপর চাপালেন ATK MB কোচ হাবাস
অন্তোনিও লোপেজ হাবাস।
অন্তোনিও লোপেজ হাবাস।

মুম্বই ম্যাচে হারের দায় পুরোটাই রেফারির উপর চাপালেন ATK MB কোচ হাবাস

  • আইএসএলের শুরুতেই পরপর দুই ম্যাচ জেতার পরে মুম্বইয়ের কাছে হেরে বড় ধাক্কা খায় সবুজ-মেরুন ব্রিগেড। সেই ম্যাচে হতশ্রী ফলের পর হাবাস এতটাই ক্ষুব্ধ ছিলেন, তিনি কারও সঙ্গে সে দিন কোনও কথাই বলেননি। সাংবাদিক সম্মেলন করেননি। এমন কী হোটেলে ফিরেও চুপচাপ নিজের ঘরে ঢুকে গিয়েছিলেন।

আইএসএলে মুম্বই সিটিএফসি যেন সবচেয়ে বড় বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে এটিকে মোহনবাগানের। গত মরশুম থেকে এই মরশুম- মুম্বইয়ের কাছে টানা চার ম্যাচে হারল সবুজ-মেরুন ব্রিগেড। গত মরশুমে গ্রুপ লিগের দুই ম্যাচ ছাড়াও আইএসএল ফাইনালেও মুম্বইয়ের কাছে হেরেই ট্রফি জয়ের সব স্বপ্ন ধুলিসাৎ হয়ে গিয়েছিল মোহনবাগানের। আর এই মরশুমে ফের তারা মুখোমুখি হয়েছিল বুধবার। সেই ম্যাচে ১-৫ হারে আন্তোনিও লোপেজ হাবাসের দল।

আইএসএলের শুরুতেই পরপর দুই ম্যাচ জেতার পরে মুম্বইয়ের কাছে হেরে বড় ধাক্কা খায় সবুজ-মেরুন ব্রিগেড। সেই ম্যাচে হতশ্রী ফলের পর হাবাস এতটাই ক্ষুব্ধ ছিলেন, তিনি কারও সঙ্গে সে দিন কো কথাই বলেননি। সাংবাদিক সম্মেলন করেননি। এমন কী হোটেলে ফিরেও চুপচাপ নিজের ঘরে ঢুকে গিয়েছিলেন। তবে রবিবার জামশেদপুর এফসি- র বিরুদ্ধে খেলতে নামার আগে মুম্বই ম্যাচ নিয়ে মুখ খুললেন এটিকে মোহনবাগান কোচ। তিনি অবশ্য এই হারের দায় চাপালেন রেফারির উপর।

মুম্বই ম্যাচে হার নিয়ে হাবাসের দাবি, ‘অনেকগুলো মরশুমই হয়ে গেল আমি কলকাতার দলে কোচিং করাচ্ছি। অনেক দুঃসময়ের মধ্যে দিয়ে গিয়েছি। হঠাৎ করে এ রকম একটা দুর্ঘটনা ঘটে যেতেই পারে। যদি ম্যাচটা বিশ্লেষণ করে দেখেন, তা হলে দেখবেন ফুটবলে এমন অনেক হয়েছে। শুরুতেই আমরা গোল খাই। দ্বিতীয় গোলটা হাত দিয়ে করে, যেটা রেফারি দেখেননি। তৃতীয় গোলটার আগে ফাউল হয়। রেফারি (দীপক) টাংরিকে লাল কার্ড দেখান, কিন্তু ওদের (মুর্তাদা) ফলকে দেখালেন না। চতুর্থ গোল হয় অফসাইডে। এ রকম আরও মুহূর্ত এসেছে ম্যাচে। আমরা ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ানোরও সুযোগ পেয়েছি। কিন্তু স্বীকার করতেই হবে যে, সে দিন মুম্বই আমাদের চেয়ে ভাল খেলেছে। তবে রেফারি সে দিন অত ভুল না করলে এই ব্যবধানে ওরা জিততে পারত না বোধহয়।’

বন্ধ করুন