বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > তৈরি কৃষ্ণা-কাউকো! AFC কাপের ঐতিহাসিক ম্যাচ জিততে মরিয়া ATK মোহনবাগানের হেড স্যার হাবাস
টিম মিটিং ব্যস্ত ATK মোহনবাগানের হেড স্যার হাবাস (ছবি:এটিকে মোহনবাগান)
টিম মিটিং ব্যস্ত ATK মোহনবাগানের হেড স্যার হাবাস (ছবি:এটিকে মোহনবাগান)

তৈরি কৃষ্ণা-কাউকো! AFC কাপের ঐতিহাসিক ম্যাচ জিততে মরিয়া ATK মোহনবাগানের হেড স্যার হাবাস

  • বর্তমানে মিশন উজবেকিস্তানের নাসাফের বিরুদ্ধে সফল হতে চাইছে এটিকে মোহনবাগান। বুধবার ম্যাচে নামার আগে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় প্রধান স্টেডিয়ামে অনুশীলন করেছে সবুজ মেরুন ব্রিগেড।

নাসাফের বিরুদ্ধে নামার আগে দলের সঙ্গে মানিয়ে নিয়েছেন কাউকো। অনুশীলনে যোগ দিয়ে দলের শক্তি বাড়িয়েছেন সুসাইরাজ, প্রবীর দাসরা। বুধবার ইন্টার জোনাল সেমিফাইনালে নামার আগে জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী ATK মোহনবাগানের প্রধান কোচ হাবাস। তিনি বিশ্বাস করেন নাসাফকে হারানোর মতো শক্তি রয়েছে এটিকে মোহনবাগানের। বর্তমানে মিশন উজবেকিস্তান সফল করতে চাইছে এটিকে মোহনবাগান। বুধবার ম্যাচে নামার আগে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় প্রধান স্টেডিয়ামে অনুশীলন করেছে সবুজ মেরুন ব্রিগেড। 

দুবাইয়ের আট দিনের অনুশীলন এবং উজবেকিস্তানের দু দিনের প্র্যাকটিসের পরে নাসাফকে হারানোর ছক কষতে শুরু করে দিয়েছেন হাবাস। তবে মাঠে নামার আগে নাসাফকে এগিয়ে রাখছেন হাবাস। তিনি বলেন, ‘জিতবই বলে কোনও গ্যারেন্টি বিশ্বের কোন কোচই দিতে পারেনা। দুবাইয়ে আমাদের প্রস্তুতি বেশ ভালো হয়েছে। আমরা জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী। কিন্তু মাথায় রাখতে হবে আমাদের প্রতিপক্ষ বেশ ভালো দল। নাসাফকে হারানোর মতো শক্তি আমাদের আছে।’ 

এটিকে মোহনবাগানের কোচ আন্তনিও লোপেজ হাবাস প্রতিপক্ষের শক্তি নিয়ে মুখ খুললেন। তিনি বলেন, ‘প্রতিযোগিতামূলক টুর্নামেন্টে ওরা যথেষ্ট ভালো পারফর্ম করে। প্রতিদ্বন্দ্বী হিসাবে ওরা বেশ শক্তিশালী। আমাদের মতো ওদের দলেও নিমেষে ম্যাচের রঙ বদলে দেওয়ার মতো ফুটবলার রয়েছে।’ তবে হাবাস যে নিজের কৌশলও তৈরি রেখেছেন তা জানাতে ভোলেননি। হাবাস জানান, ‘আমাদের চেষ্টা করতে হবে প্রতিপক্ষের রক্ষণে ফাঁকা জায়গা তৈরি করে গোলের মুখ খোলার। তার জন্য যা যা করার দরকার সবই করতে হবে।’

নিজেদের একশো শতাংশ দিয়ে এই ম্যাচে আশাপ্রদ ফল করার চেষ্টা করতে চান হাবাস। তিনি জানান দলের মধ্যে কাউকো মানিয়ে নিয়েছেন। তবে কাকে কতক্ষণ ম্যাচে খেলাবেন বা প্রথম একাদশ কী করবেন তা নিয়ে মুখ খোলেননি হাবাস। তিনি বলেন, ‘কাউকো ইতিমধ্যেই দলের সঙ্গে মানিয়ে নিয়েছেন। ও খুব বড় মাপের ফুটবলার। প্রবীর ও সুসাইরাজ দু’জনেই অতন্ত গুরুত্বপূর্ণ ফুটবলার, ওরাও তৈরি। কিন্তু ওদের কতক্ষণ মাঠে রাখব তা এখনও ঠিক করিনি। কারণ ওরা বহুদিন প্রতিদ্বন্দ্বিতা মূলক ম্যাচের মধ্যে নেই। সব দিক বিবেচনা করে আমাকে প্রথম একাদশ বাছতে হবে।’

বন্ধ করুন