বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > ম্যাচ খেলে রাতের মেনুতে বিরিয়ানি! এসসি ইস্টবেঙ্গল শিবিরে কর্তা বনাম ফুটবলার
এসসি ইস্টবেঙ্গল শিবিরে কর্তা বনাম ফুটবলার (ছবি:টুইটার)
এসসি ইস্টবেঙ্গল শিবিরে কর্তা বনাম ফুটবলার (ছবি:টুইটার)

ম্যাচ খেলে রাতের মেনুতে বিরিয়ানি! এসসি ইস্টবেঙ্গল শিবিরে কর্তা বনাম ফুটবলার

  • সূত্রের খবর, বিরিয়ানির স্বাদ এতটাই খারাপ ছিল যে অধিকাংশ ফুটবলারই খেতে পারেননি। রাতে ফল খেতে বাধ্য হন। টিম ম্যানেজমেন্টের দাবি, ম্যাচের ধকল কাটিয়ে ওঠার জন্য কার্বোহাইড্রেট-যুক্ত খাদ্য অত্যন্ত জরুরি। এই কারণেই বিরিয়ানি রাখা হয়েছিল নৈশভোজে।

নিম্নমানের খাবার নিয়ে নৈশভোজে অশান্তি এসসি ইস্টবেঙ্গল শিবিরে। জামশেদপুর এফসি-র বিরুদ্ধে ম্যাচের পরে মঙ্গলবার রাতে টিম হোটেলে ফিরে ফুটবলাররা দেখেন তাঁদের জন্য নৈশভোজে ছিল বিরিয়ানি। সূত্রের খবর, বিরিয়ানির স্বাদ এতটাই খারাপ ছিল যে অধিকাংশ ফুটবলারই খেতে পারেননি। রাতে ফল খেতে বাধ্য হন। টিম ম্যানেজমেন্টের দাবি, ম্যাচের ধকল কাটিয়ে ওঠার জন্য কার্বোহাইড্রেট-যুক্ত খাদ্য অত্যন্ত জরুরি। এই কারণেই বিরিয়ানি রাখা হয়েছিল নৈশভোজে। 

ফুটবলারদের কেউ কেউ বলছেন, ‘পদ নিয়ে আমাদের আপত্তি ছিল না। কিন্তু যে বিরিয়ানি দেওয়া হয়েছিল, তার কোনও স্বাদই ছিল না। আমরা মুখেই তুলতে পারিনি। এত নিম্নমানের বিরিয়ানি কল্পনারও অতীত।’ জানা গিয়েছে কয়েক জন ফুটবলার মঙ্গলবার রাতেই ডাইনিংরুমে উপস্থিত সিইও-র সামনেই নিম্নমানের খাবার নিয়ে অসন্তোষ দেখান। নৈশভোজকে কেন্দ্র করে ফুটবলারদের সঙ্গে বিবাদের জেরে দলের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছেড়ে বেরিয়ে গেলেন চিফ এগজিকিউটিভ অফিসার (সিইও) শিবাজি সমাদ্দার।

এই মরশুমে প্রথমে দক্ষিণ গোয়ার একটি হোটেলে ছিল ইস্টবেঙ্গল। কিন্তু প্রাক্তন কোচ ম্যানুয়েল দিয়াজের তা পছন্দ না হওয়ায় আইএসএল শুরু হওয়ার কিছু দিন আগে উত্তর গোয়ার নতুন হোটেলে পুরো দল উঠে আসে। জানা গিয়েছে, প্রথম দিন থেকেই সেখানকার খাবার নিয়ে অসন্তোষ ছিল ফুটবলারদের মধ্যে। মঙ্গলবার রাতে তা চরমে পৌঁছায়। দলের হোয়াটসঅ্যাপে গ্রুপে চলতে থাকে বিবাদ। সিইও-র বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন তাঁরা। তাতেই মেজাজ হারিয়ে শিবাজি সমাদ্দার হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছেড়েবেরিয়ে যান।

বন্ধ করুন