বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > ছেলেদের পর এ বার চেলসির মেয়েদের দাপট, প্রতিপক্ষকে ৭ গোল, তৈরি হল নয়া নজির
চেলসির মেয়েরা।
চেলসির মেয়েরা।

ছেলেদের পর এ বার চেলসির মেয়েদের দাপট, প্রতিপক্ষকে ৭ গোল, তৈরি হল নয়া নজির

  • মেয়েদের চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সার্ভেটের মুখোমুখি হয়েছিল চেলসি। শুরু থেকেই বিধ্বংসী মেজাজে ছিলেন চেলসির মেয়েরা। ম্যাচের প্রথমার্ধেই হাফ ডজন গোল করে কার্যত ম্যাচ পকেটে পুড়ে ফেলে চেলসি। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে হয় ৭ নম্বর গোলটি।

সম্প্রতি চেলসির ছেলেরা নরউইচ সিটিকে ৭ গোলে বিধ্বস্ত করেছিল। এ বার সেই ক্লাবের মেয়েরাও একই রকম দাপট দেখাল। এক তরফা খেলে তাদের প্রতিপক্ষ সার্ভেটকে ৭-০ গোলে পরাস্ত করল চেলসি। ফ্র্যান কিরবি এবং সামান্থা কের দুই ফুটবলারই জোড়া গোল করেছেন।

মেয়েদের চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সার্ভেটের মুখোমুখি হয়েছিল চেলসি। শুরু থেকেই বিধ্বংসী মেজাজে ছিলেন চেলসির মেয়েরা। ম্যাচের প্রথমার্ধেই হাফ ডজন গোল করে কার্যত ম্যাচ পকেটে পুড়ে ফেলে চেলসি। দ্বিতীয়ার্ধের একেবারে শুরুতে হয় ৭ নম্বর গোলটি।

সাত গোল করে চেলসির মেয়েরা নজির গড়ে ফেললেন। উদ্বোধনী চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ পর্বে সবচেয়ে বড় ব্যবধানে জয়ের রেকর্ড করলেন তাঁরা। তবে সর্বকালের রেকর্ড অবশ্য আলাদা। ২০১২ সালে আডা ভেলিপোজকে ২১-০ হারিয়েছিল অ্যাপোলন।

এ দিনের ম্যাচের একেবারে শুরুতে ৮ মিনিটের মাথায় চেলসির গোলের মুখ খোলেন মেলানিয়ে লেউপলজ। এর পর ১৬ মিনিট, ১৮ মিনিট, ২০ মিনিট, ২৬ মিনিটে যেন ঝড় বয়ে যায়। ৩৮ মিনিটে ছয় নম্বর গোলটি হয়। আর বিরতির পর ৪৯ মিনিটে হয় সপ্তম গোল। এই ৪১ মিনিটেই কার্যত খড়কুটোর মতোই সার্ভেটকে উড়িয়ে দেয় চেলসি। মেলানিয়ের একটি, ফ্র্যান কিরবি এবং সামান্থা কের দুই ফুটবলারের জোড়া গোল ছাড়াও বাকি দুই গোল করেছেন জেসিয়ে ফ্লেমিং এবং গুকো রেইটেন। ৭ গোল খেয়ে সার্ভেট এতটাই বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছিল যে, তাদের বোধহয় গোলশোধের আর কোনও মানসিক জোরই ছিল না।

বন্ধ করুন