বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবলের মহারণ > রুদ্ধশ্বাস ফাইনালে কোরিয়াকে হারিয়ে নবম বার এএফসি মহিলা এশিয়ান কাপ জয় চিনের

রুদ্ধশ্বাস ফাইনালে কোরিয়াকে হারিয়ে নবম বার এএফসি মহিলা এশিয়ান কাপ জয় চিনের

এএফসি মহিলা এশিয়ান কাপ চ্যাম্পিয়ন চিন।

এএফসি মহিলা এশিয়ান কাপের ফাইনালে দক্ষিণ কোরিয়ার বিরুদ্ধে ২-০ পিছিয়ে থেকেও শিরোপা জিতে নিল চিন। এই নিয়ে নবম বার শিরোপা জিতে নজির গড়ল তারা।

শুভব্রত মুখার্জি: নবি মুম্বইতে এক শ্বাসরুদ্ধ ফাইনালের সাক্ষী থাকল ফুটবল সমর্থকরা। এএফসি মহিলা এশিয়ান কাপের ফাইনালে দক্ষিণ কোরিয়ার বিরুদ্ধে ২-০ পিছিয়ে থেকেও শিরোপা জিতে নিল চিন। এই নিয়ে নবম বার শিরোপা জিতে নজির গড়ল তারা। উল্লেখ্য টুর্নামেন্টে ভারতীয় দল করোনাতে আক্রান্ত হওয়ার ফলে তারা আর তাদের অভিযান সম্পূর্ণ করতে পারেননি।

বিরতিতে ২-০ গোলে এগিয়ে সাজঘরে গিয়েছিল কোরিয়া। সেই সময়ে মনে হয়েছিল, কোরিয়া হয়তো তাদের ইতিহাসে প্রথম বার মহিলা এশিয়ান কাপের শিরোপা জিততে চলেছে। তবে দ্বিতীয়ার্ধে খেলা একেবারে নাটকীয় ভাবে বদলে দেয় চিনের মহিলা ফুটবলাররা। বিরতির পরে চিনের হয়ে ট্যাঙ্গ জিয়ালি, ঝ্যাঙ্গ লিনইয়ান এবং জিয়াও ইউয়ি গোল করে এক অবিশ্বাস্য জয় নিশ্চিত করেন। ডিওয়াই পাটিল স্টেডিয়ামে ৩-২ ফলে ফাইনালে জিততে সক্ষম হয় চিনের মহিলা দল।

প্রসঙ্গত এর আগে সাত বারের সাক্ষাতে চিনের বিরুদ্ধে একবারও জিততে পারেনি কোরিয়া। এ দিন ম্যাচের ২৭ মিনিটেই এগিয়ে যায় দক্ষিণ কোরিয়া দল। টুর্নামেন্টের ১০০তম গোল করে কোরিয়াকে এগিয়ে দেন চোই-ইউ-রি। প্রথমার্ধের শেষে ভিএআরের মাধ্যমে রিভিউতে পেনাল্টি পায় কোরিয়া। জি-সো-ইয়ুন স্পট থেকে গোল করতে ভুল করেননি। দ্বিতীয়ার্ধে দুটি পরিবর্তন করেন চিনের কোচ। নামানো হয় জিয়াও ইউয়ি এবং ঝ্যাঙ্গ রুইকে। ৬৮ মিনিটে চিন একটি লাইফলাইন পায়। প্রাপ্ত পেনাল্টি থেকে গোল করতে ভোলেননি ট্যাঙ্গ জিয়ালি। চার মিনিট পরেই কোরিয়ার খারাপ ডিফেন্সের সুযোগ নিয়ে ম্যাচে সমতা ফেরায় চিন। ঝ্যাঙ্গ লিনইয়ান গোল করে সমতা ফেরান চিনের হয়ে। ম্যাচের অতিরিক্ত সময়ে জিয়াও ইউয়ির গোলে জয় সুনিশ্চিত করে চিন।

বন্ধ করুন