বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > সেপ্টেম্বরে ডুরান্ড, অন্ধকারে কলকাতা লিগ, বৃহস্পতিবার জরুরি বৈঠক IFA-তে
বৃহস্পতিবার জরুরি বৈঠক আইএফএ-তে।
বৃহস্পতিবার জরুরি বৈঠক আইএফএ-তে।

সেপ্টেম্বরে ডুরান্ড, অন্ধকারে কলকাতা লিগ, বৃহস্পতিবার জরুরি বৈঠক IFA-তে

  • আসলে কলকাতা লিগ শুরু হওয়ার কথা অগস্টের তৃতীয় সপ্তাহে। এর মধ্যেই সেপ্টেম্বরের শুরুতে ডুরান্ড কাপের কথা জানিয়েছে ফেডারেশন। এবং তারা জানিয়ে দিয়েছে, ডুরান্ডে কলকাতার তিন প্রধানই অংশ নেবে। যেটা নিয়ে সংশয়ে পড়ে গিয়েছে আইএফএ।

গত বছর করোনার জন্য কলকাতা লিগ হয়নি। এই বছর আইএফএ লিগ আয়োজনের সমস্ত প্রস্তুতি শুরু করে দিলেও, ফেডারেশনের অবিবেচকের মতো সিদ্ধান্তে চরম অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে বাংলার স্থানীয় ফুটবল টুর্নামেন্ট। মাথায় হাত আইএফএ কর্তাদের। অল ইন্ডিয়া ফুটবল ফেডারেশনের সিদ্ধান্তে ক্ষোভে ফুটছে তাঁরা।

আসলে কলকাতা লিগ শুরু হওয়ার কথা অগস্টের তৃতীয় সপ্তাহে। এর মধ্যেই সেপ্টেম্বরের শুরুতে ডুরান্ড কাপের কথা জানিয়েছে ফেডারেশন। এবং তারা জানিয়ে দিয়েছে, ডুরান্ডে কলকাতার তিন প্রধানই অংশ নেবে। যেটা নিয়ে সংশয়ে পড়ে গিয়েছে আইএফএ। একই সময়ে একই দল কী করে দু'টি টুর্নামেন্টে অংশ নেবে? আইএফএ সচিব জয়দীপ মুখোপাধ্যায়ের দাবি, ‘আগের পরিস্থিতিতেও দু'টি টুর্নামেন্ট একসঙ্গে চলেছে। এমন নজির রয়েছে। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে সেটা সম্ভব নয়। আর তখন ইস্টবেঙ্গল, মোহনবাগান আইএসএল খেলত না। আই লিগ খেলত। সেই জন্য সমস্যা হয়নি। কিন্তু এখন করোনার মাঝে দু'টি টুর্নামেন্ট একসঙ্গে করা কঠিন। দলগুলোই বা খেলতে রাজি হবে কেন?’

আইএফএ সচিব আরও বলেছেন, ‘কলকাতা লিগে তিন প্রধান না খেললে বাংলার ফুটবলে অন্ধকার নেমে আসবে। তিন প্রধানের জন্যই স্পনসররা এগিয়ে এসেছে। তিন প্রধান না খেললে, স্পনসরও থাকবে না। যার জেরে আর কোনও টুর্নামেন্ট আয়োজন করাও সম্ভব হবে না। স্থানীয় ফুটবলারদের ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত হয়ে পড়বে। ছোট ক্লাবগুলো স্পনসর পাবে না। বাংলার ফুটবল একেবারে শেষ হয়ে যাবে। আইএফএ-তে তালা দিয়ে দিতে হবে। কারণ স্পনসর ছাড়া বাংলার ফুটবলকে কী ভাবে বাঁচানো সম্ভব হবে? পাশাপাশি আইএফএ কর্মীদেরও বেতন দেওয়া সম্ভব হবে না।’

জয়দীপ মুখোপাধ্যায়ের আরও দাবি, ‘ফেডারেশন আমাদের সঙ্গে কোনও রকম আলোচনা না করেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আমরা সংবাদমাধ্যমের থেকে এই খবর জানতে পেরেছি। এর পরে ফোনে ফেডারেশনের সঙ্গে কথাও হয়েছে। পুরো পরিস্থিতি জানিয়েছি। সেই সঙ্গে ফেডারেশনকে চিঠি দিয়েছি। আর্মিকেও চিঠি দেওয়া হয়েছে। এ বার কলকাতা লিগ বন্ধ হয়ে গেলে বাংলার ফুটবলকে আর বাঁচানো যাবে না।’

আইএফএ চেয়ারম্যান এবং ফেডারেশনের সহ সভাপতি সুব্রত দত্ত দাবি করেছেন, ‘যে কোনও টুর্নামেন্টকে আমরা অবশ্যই স্বাগত জানাব। কিন্তু কলকাতা লিগ ক্ষতিগ্রস্ত হোক, সেটা আমরা চাই না। কারণ এর সঙ্গে ফুটবলারদেন জীবন জড়িয়ে রয়েছে। রেফারি এবং ম্যাচ অফিসিয়াল, যাঁরা খুবই খারাপ পরিস্থিতিতে রয়েছে, তাঁদের জন্যই এই টুর্নামেন্ট আয়োজন করা দরকার। এই নিয়ে কথা চলছে। কিছু একটা উপায় তো বের করতেই হবে।’

কলকাতা লিগ নিয়ে ফের জরুরি সভা ডেকেছে আইএফএ সচিব। বৃহস্পতিবার কলকাতা লিগের ১৪টি দলকেই আইএফএ-তে বৈঠকে ডাকা হয়েছে।

বন্ধ করুন