বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > EPL 2021-22: ফ্রি ফ্লোয়িং ফুটবলে নর্থ লন্ডনের রং লাল
চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী স্পার্সের বিরুদ্ধে গোল করে হুংকার এমিল স্মিথ রোয়ের। ছবি- রয়টার্স। (REUTERS)
চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী স্পার্সের বিরুদ্ধে গোল করে হুংকার এমিল স্মিথ রোয়ের। ছবি- রয়টার্স। (REUTERS)

EPL 2021-22: ফ্রি ফ্লোয়িং ফুটবলে নর্থ লন্ডনের রং লাল

  • বুকায়ো সাকা এবং এমিল স্মিথ রো আর্সেনালের হয়ে একটি করে গোল করার পাশপাশি উভয়েই একটি অ্যাসিস্টও প্রদান করেন।

একমাস ব্যবধানে পুরো পৃথিবাটাই যেন বদলে গিয়েছে। মাসখানেক আগে নাগাড়ে তিন ম্যাচ জিতে প্রিমিয়র লিগ শীর্ষে ছিল টটেনহ্যাম হটস্পার, আর তিন ম্যাচ হেরে একেবারে তলানিতে লাস্টবয় ছিল তাঁদের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আর্সেনাল। তবে রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) পর সমসংখ্যক পয়েন্ট নিয়ে স্পার্সের একধাপ আগে ১০ নম্বরে উঠে এল গানার্সরা। 

রবিবাসরীয় বিকেলে নর্থ লন্ডনের দুই বিখ্যাত ক্লাব আর্সেনালের এমিরেটস স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয়েছিল। দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর লড়াইয়ে বিশেষত আর্সনালের ঘরের মাঠে স্পার্সের রেকর্ড একেবারেই ভাল নয়। রবিবারও ফের একবার আর্সেনালের কাছে ৩-১ গোলে পর্যদুস্ত হতে হল হ্যারি কেনদের। এই জয়টা আর্সেনাল সমর্থকদের কাছে আরও বেশি তৃপ্তির। কারণ, দুই অ্যাকাডেমি গ্র্যাজুয়েট বুকায়ো সাকা এবং এমিল স্মিথ রো দলের হয়ে একটি করে গোল করার পাশপাশি উভয়েই একটি অ্যাসিস্টও প্রদান করেন।

আর্সেনাল বরাবরই ফ্রি ফ্লোয়িং ফুটবলের জন্য বিখ্যাত। এদিন সেই ফুটবলটাই খেললেন গানার্সরা। ম্যাচের ১২ মিনিটে ডান দিক থেকে সাকার পাস থেকে লেট রান নিয়ে স্পার্সের জালে বল জড়িয়ে আর্সেনালকে এগিয়ে দেন এমিল স্মিথ রো। তাঁর ১৫ মিনিট পরে তিনি গোলদাতা থেকে গোলের অ্যাসিস্ট প্রদানকারীতে পরিণত হন। এক দুরন্ত স্পার্স প্রতিআক্রমণে অধিনায়ক পিয়ের-এমরিক অবামেয়াংয়ের জন্য পাস বাড়ান স্মিথ রো। গোল করে দলের লিড দ্বিগুন করেন গ্যাবোন স্ট্রাইকার।

অবামেয়াংয়ের গোলের সাত মিনিট পর সাকা প্রমাণ করেন কেন তাঁকে ইংল্যান্ড এবং আর্সেনালের ভবিষ্যৎ মনে করা হয়। দুইবার কড়া চ্যালেঞ্জ পার করে মাথা থান্ডা রেখে আর্সেনালের হয়ে তৃতীয় গোলটি করেন তিনি। প্রথমার্ধে ৩-০ পিছিয়ে পড়ার পর একমাত্র কোন অলৌকিক ঘটনা ছাড়া স্পার্সের ম্যাচে ফেরা প্রায় অসম্ভব ছিল। তবে নর্থ লন্ডন ডার্বিতে অতীতেও বহুবার এমন কামব্যাক ঘটেছে, তাই কোন পরিণামকেই সম্পূর্ণ উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছিল না। বিশেষত যেখানে স্পার্স দলে সন হিউং-মিন এবং কেনের মতো দুই বিশ্বমানের ফরোয়ার্ড রয়েছে।

৭৯ মিনিটে সনের গোলে স্পার্সের ম্যাচে ফেরার ক্ষীণ আশা জাগে। তবে আর কোন গোল করতে পারেনি স্পার্স। এদিনও বার্নড লেনোর বদলে গানার্সদের তেকাঠির নীচে সুযোগ পাওয়া অ্যারন রাম্সডেল ভাল খেলেন। ইনজুরি টাইমে লুকাস মৌরার একটি শট দুর্দান্তভাবে সেভও করেন। অবশেষে ৩-১ ব্যবধানে ম্যাচ জিতে উচ্ছ্বাসে ভাসে মিকেল আর্টেটার দল। আর্সেনাল পরবর্তী সপ্তাহে দুরন্ত ছন্দে মরশুম শুরু করা ব্রাইটনের বিরুদ্ধে খেলবে। নাগাড়ে তিন ম্যাচ হারার পর ঘরের মাঠে আবারও এক কঠিন প্রতিপক্ষ অ্যাস্টন ভিলার মুখোমুখি হবে নুনো এস্পিরিতো স্যান্টোর স্পার্স দল। প্রসঙ্গত, এই মরশুমে এখনও অবধি লিগে একটিও গোল না করা কেনের ফর্ম নুনোকে চিন্তায় রাখতে বাধ্য।

বন্ধ করুন