বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > EPL 2021-22: নিউক্যাসেলকে হারিয়ে প্রথম ইংলিশ ক্লাব হিসেবে জয়ের রেকর্ড লিভারপুলের
লিভারপুলকে এগিয়ে দিয়ে সালাহ ও মানের সেলিব্রেশন। ছবি- টুইটার (@premierleague)।
লিভারপুলকে এগিয়ে দিয়ে সালাহ ও মানের সেলিব্রেশন। ছবি- টুইটার (@premierleague)।

EPL 2021-22: নিউক্যাসেলকে হারিয়ে প্রথম ইংলিশ ক্লাব হিসেবে জয়ের রেকর্ড লিভারপুলের

  • ম্যান সিটির থেকে এক পয়েন্ট কম ৪০ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে থাকল লিভারপুল, ৩৭ পয়েন্ট নিয়ে তিনে চেলসি।

লিগ লিডার ম্যাঞ্চেস্টার সিটি নিজেদের ম্যাচে লিডস ইউনাইটেডকে সাত গোলে বিধ্বস্ত করার পর যথাক্রমে লিগ তালিকায় দুই ও তিনে থাকা লিভারপুল ও চেলসিকে চাপ বজায় রাখতে নিজেদের ম্যাচ জিততেই হত। নিউক্যাসেল ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে লিভারপুল জিতলেও, এভারটনের বিরুদ্ধে আটকে গেল চেলসি।

ঘরের মাঠে দুর্বল নিউক্যাসেলের বিপক্ষে লিভারপুল ধারে-ভারে এগিয়েই ছিল। তবে সকলকে চমকে দিয়ে প্রাক্তন লিভারপুল মিডফিল্ডার জনজো শেলভি নিউক্যাসেলকে মাত্র সাত মিনিটেই এগিয়ে দেন। তবে খেলার দখল লিভারপুলের কাছেই ছিল। ২১ মিনিটে কিছুটা বিতর্কিতভাবে ডি বক্সের মধ্যে দুই নিউক্যাসেল ডিফেন্ডারের সংঘর্ষ ঘটে একজন বক্সেই পড়ে থাকলেও সেই দিকে তোয়াক্কা না করে দিয়েগো জোটা লিভারপুলের হয়ে সমতা ফেরান। ম্যাগপাই ফুটবলারদের বিরোধে রেফারি কর্ণপাত করেননি। 

মাত্র চার মিনিট পরে শেলভিরই ভুল ব্যাকপাস থেকে সাদিও মানের পায়ে বল চলে যায়। তাঁর প্রথম শট নিউক্যাসেল গোলরক্ষক বাঁচিয়ে দিলেও ফিরতি বল জালে জড়িয়ে দেন মহম্মদ সালাহ। প্রথমার্ধে পিছিয়ে পড়েও দ্বিতীয়ার্ধে লিভারপুলের নিরন্তর প্রেসিংয়ের বিরুদ্ধে নিউক্যাসেল মাঝেসাঝে প্রতিআক্রমণ করেছিল। কিন্তু ম্যাচের শেষের দিকে ৮৭ মিনিটে ট্রেন্ট আলেকজান্ডার আর্নল্ডের আগুনে শট নিউক্যাসেলের স্বপ্ন চুরমার করে লিভারপুলকে ৩-১ এগিয়ে দেয়। ম্যাচে আর কোনো গোল হয়নি।

ডিফেন্ডার ভার্জিল ভ্যান ডাইকের সম্ভবত করোনা পজিটিভ হওয়ায় এদিন তাঁর পরিবর্তে ডিফেন্সে ইব্রাহিমা কোনাটে সুযোগ পেয়ে নজর কাড়েন। ঘটনাক্রমে, এই জয়ের ফলে প্রথম ইংলিশ ক্লাব হিসেবে প্রথম ডিভিশনে ২০০০ ম্যাচ জেতার নজির গড়ল লিভারপুল। এটি রেডস ম্যানেজার হিসেবে জুরগেন ক্লপের ১৫০তম জয়ও বটে।

তবে লিভারপুল জিতলেও তাদের মার্সিসাইড প্রতিপক্ষ এভারটনের বিরুদ্ধে আটকে গেল চেলসি। গোটা প্রথমার্ধ চেলসি দাপট দেখালেও তাদের ১৩ শটের একটিও এভারটনের জালে জড়াতে ব্যর্থ হন ব্লুজরা। মেসন মাউন্ট এবং রিস জেমসের শট এভারটন গোলরক্ষক জর্ডন পিকফোর্ড বাঁচিয়ে দেন। প্রথমার্ধ গোলশূন্য হওয়ার পর দ্বিতীয়ার্ধেও মাউন্টরা এভারটনের গোল লক্ষ্য করে শটের বন্যা বওয়ান। অবশেষে জেমসেরই থ্রু বল থেকে কনিষ্ঠতম চেলসি ফুটবলার হিসেবে নাগাড়ে নিজের চতুর্থ ম্যাচে গোল করেন মাউন্ট।

তবে চেলসির লিড মাত্র চার মিনিট বজায় থাকে। অ্যান্থনি গর্ডনের ফ্রি-কিক থেকে জারার্ড ব্রাথওয়েট নিজের প্রথম প্রিমিয়র লিগ গোল করে টফিজদের সমতায় ফেরান। শেষের দিকে পিকফোর্ড আবারও একবার এক দুরন্ত সেভ দেন। চেলসির থিয়াগো সিলভার আগুনে হেডার বাঁচিয়ে দেন ইংল্যান্ডের গোলরক্ষক। ম্যাচ সমতায় শেষ হয়। নিজের পুরনো দলের বিরুদ্ধে এভারটন ম্যানেজার হিসেবে চাপে থাকা রাফা বেনিতেজ খুবই গুরুত্বপূর্ণ এক পয়েন্ট অর্জন করে স্ট্যামফোর্ড ব্রিজ ছাড়েন।

এই ড্রয়ের ফলে চেলসি খেতাবি দৌড়ে খানিকটা পিছিয়ে পড়ল। ম্যান সিটির থেকে চার পয়েন্ট কম, ৩৭ পয়েন্ট নিয়ে তারা লিগ তালিকায় তিন নম্বরে বজায় রইল। অপরদিকে, জয়ের ফলে দ্বিতীয় স্থানে লিভারপুলের পয়েন্ট সংখ্যা দাঁড়াল ৪০। চেলসির পরের খেলা কঠি প্রতিপক্ষ উলভসের বিপক্ষে। অপরদিকে, লিভারপুলের হাইভোল্টেজ ম্যাচে রবিবারই টটেনহ্যাম হটস্পারের বিরদ্ধে নামার কথা। তবে করোনার জেরে স্পার্সের বিগত তিন ম্যাচ বাতিল হওয়ার পর এই ম্যাচ আদৌ হবে কিনা, সেই নিয়ে যথেষ্ট সংশয় রয়েছে।

বন্ধ করুন