বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > EURO 2020: মানচিনির আজ্জুরিদের সামনে ৮৩ বছরের পুরনো রেকর্ড ভাঙার হাতছানি
ইতালি দলের অনুশীলনে মানচিনি (ছবি:রয়টার্স) (REUTERS)

EURO 2020: মানচিনির আজ্জুরিদের সামনে ৮৩ বছরের পুরনো রেকর্ড ভাঙার হাতছানি

  • ইতালি ও অস্ট্রিয়া ম্যাচে যদি ইতালি জয়লাভ করে তাহলে তারা তাদের ৮৩ বছরের পুরনো রেকর্ড ভেঙে দেবে।

শুভব্রত মুখার্জি:  একটা বা দুটো নয় আজ থেকে ৮৩ বছর আগে অর্থাৎ প্রায় ৯ দশক আগে করা এক অনন্য রেকর্ড ভাঙার হাতছানি রয়েছে মানচিনির আজ্জুরিদের সামনে। টানা ৩০ টি ম্যাচে অপরাজিত রয়েছে ইতালির জাতীয় ফুটবল দল। আজ থেকে শুরু হচ্ছে ইউরো কাপ ২০২০'র প্রি-কোয়ার্টার ফাইনাল। সেখানে প্রথম ম্যাচেই মুখোমুখি হবে ইতালি ও অস্ট্রিয়া। এই ম্যাচে যদি ইতালি জয়লাভ করে তাহলে তারা তাদের ৮৩ বছরের পুরনো রেকর্ড ভেঙে দেবে। বলা বাহুল্য বহু বছর বাদে অসাধারণ ফর্মে রয়েছে গোটা ইতালি দল। ইতালির ফুটবলে এই মুহূর্তে কার্যত নবজাগরণের ছোয়া বললেও ভুল হবে না । মালদিনির দেশ সারা বিশ্বের কাছে বেশি পরিচিতি পেয়েছিল তাদের ডিফেন্স ও কাউন্টার অ্যাটাক নির্ভর ফুটবলের জন্য। আর এবারের প্রতিযোগিতার ইতালি ডিফেন্সের পাশাপাশি অ্যাটাকেও সমান শক্তিশালী। ছোট ছোট পাস খেলে নিজেদের মধ্যে বল পজিশান রেখে বিপক্ষ ডিফেন্সকে খানখান করে দিয়েছেন ইনসিগনিয়া,ইম্মোবিলেরা।

শনিবার প্রিকোয়ার্টার ফাইনাল লড়াইয়ে রবার্তো মানচিনির দল  যদি অস্ট্রিয়াকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে যায় তবে আজ্জুরিদের ইতিহাসে নিজেদের দেশের ৮৩ বছরের পুরনো রেকর্ড ভাঙবেন তাঁরা।কোন অঘটন না ঘটলে আজ্জুরিদের শেষ আটে যাওয়া উচিত বলে মনে করেন ফুটবল বিশেষজ্ঞরা। উল্লেখ্য ১৯৩৫ থেকে ১৯৩৯ সাল পর্যন্ত এই চার বছরে টানা ৩০টি ম্যাচে অপরাজিত ছিল ইতালি। বর্তমানে মানচিনির ইতালি অপরাজিত ৩০টি ম্যাচে। গ্রুপ পর্বের ৩টি ম্যাচই জিতেছে তারা। ফলে অস্ট্রিয়ার বিরুদ্ধে ম্যাচ জিতলে তাদের ফুটবল ইতিহাসে নয়া অধ্যায়ের সূচনা করবেন মানচিনির ছেলেরা।

প্রসঙ্গত নিজেদের শেষ গ্রুপ ম্যাচে ইতালি কার্যত তাদের বেন্ঞ্চ শক্তিকে পরীক্ষা করেছিল। সেই ম্যাচে গোটা একাদশকেই বদলে মাঠে নামিয়ে ছিলেন মানচিনি‌ । এমনকি ম্যাচ শেষের দিকে গোলরক্ষক দোন্নারুমাকে ও বদলে দিয়ে তিনি তার বদলে ৩৪ বছর বয়সী সিরিগুকে খেলান। তবে কার্যত পরিবর্তিত একাদশ নিয়ে ও কিন্তু ইতালি জয়ের রাস্তা ভোলেনি সেই ম্যাচে। স্বাভাবিকভাবেই বোঝা যায় তাদের বেন্ঞ্চের শক্তিও কতখানি বৃদ্ধি পেয়েছে। এই অবস্থায় দাড়িয়ে অস্ট্রিয়ার পক্ষে এই 'নতুন লুকের' ইতালিকে হারানো যথেষ্ট কষ্টসাধ্য একটি বিষয় বলেই মনে করছেন ফুটবল বিশেষজ্ঞরা।

বন্ধ করুন