বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > EURO 2020: বড় টুর্নামেন্টে ৫৫ বছরের খরা কাটিয়ে প্রথমবার ইউরোর ফাইনালে উঠল ইংল্যান্ড
জয়ের পর ইংল্যান্ড শিবিরের উচ্ছ্বাস। ছবি- উয়েফা।
জয়ের পর ইংল্যান্ড শিবিরের উচ্ছ্বাস। ছবি- উয়েফা।

EURO 2020: বড় টুর্নামেন্টে ৫৫ বছরের খরা কাটিয়ে প্রথমবার ইউরোর ফাইনালে উঠল ইংল্যান্ড

  • ইংল্যান্ড বনাম ডেনমার্ক সেমিফাইনালের ৮টি গুরুত্বপূর্ণ তথ্যে চোখ রাখুন। দেখুন হ্যারি কেনের পেনাল্টি মিস করা সত্ত্বেও গোল করার ভিডিও।

দ্বিতীয় সেমিফাইনালে ডেনমার্ককে ২-১ গোলে হারিয়ে ইউরো ২০২০-র ফাইনালে জায়গা করে নেয় ইংল্যান্ড। ম্যাচে ডেনমার্কের হয়ে একমাত্র গোলটি করেন ড্যামসগার্ড। ইংল্যান্ডের হয়ে একটি গোল হ্যারি কেনের। অপর গোলটি জায়েরের আত্মঘাতী।

১. ম্যাচের প্রথমার্ধে ২টি গোল হয়। ৩০ মিনিটে ড্যামসগার্ড ফ্রি-কিক থেকে গোল করে ১-০ এগিয়ে দেন ডেনমার্ককে। ৩৯ মিনিটে জায়েরের আত্মঘাতী গোল ইংল্যান্ডকে ১-১ সমতা ফেরায়। বিরতিতে ম্যাচের স্কোর-লাইন ছিল ১-১।

২. দ্বিতীয়ার্ধে কোনও গোল হয়নি। নির্ধারিত ৯০ মিনিটে ম্যাচ ১-১ গোলের সমতায় দাঁড়িয়েছিল। ফলে ফলাফল নির্ধারণের জন্য খেলা গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে।

৩. অতিরিক্ত সময়ে ১০২ মিনিটের মাথায় নিজেদের বক্সে স্টার্লিংকে ফাউল করে বসেন মাহলে। রেফারি ভিএআরের সাহায্য নিয়ে পেনাল্টি উপহার দেন ইংল্যান্ডকে।

৪. ১০৪ মিনিটের মাথায় পেনাল্টি থেকে গোল করতে ব্যর্থ হন হ্যারি কেন। তাঁর শট বাঁচিয়ে দেন ড্যানিশ গোলকিপার ক্যাসপার। তবে বল গোলকিপারের দস্তানায় প্রতিহত হয় ফিরে এলে কেন পুনরায় তা জালে ঠেলে দেন। কেনের গোলেই ইংল্যান্ড ২-১ ব্যবধানে জয় নিশ্চিত করে।

৫. সেমিফাইনালে ডেনমার্ককে হারিয়ে এই প্রথমবার ইউরো কাপের ফাইনালে ওঠে ইংল্যান্ড। এর আগে ১৯৬৮ ও ১৯৯৬ সালে ইউরো কাপের সেমিফাইনালে উঠেছিল ইংল্যান্ড। যদিও শেষ চারের হার্ডলেই আটকে যেতে হয় তাদের।

৬. ১৯৬৬ সালে বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর এই প্রথমবার ইংল্যান্ড বড় কোনও টুর্নামেন্টের ফাইনালে ওঠে। সুতরাং ৫৫ বছর পর তারা ফের কোনও বড় টুর্নামেন্টের খেতাবি লড়াইয়ে জায়গা করে নেয়। বিশ্বকাপ ও ইউরো মিলিয়ে এত দীর্ঘ সময়ের ব্যবধানে ফাইনালে ওঠার নজির আর কোনও দেশের নেই। ইংল্যান্ড ১৯৯০ ও ২০১৮ সালের বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নিয়েছিল।

৭. সেমিফাইনালে ডেনমার্ককে হারিয়ে ইংল্যান্ড ইউরো ২০২০-র ফাইনালে ইতালির মুখোমুখি হবে।

৮. জ্যাক গ্রেলিশ ইংল্যান্ডের তৃতীয় ফুটবলার, যাঁকে বড় টুর্নামেন্টের একই ম্যাচে পরিবর্ত হিসেবে মাঠে নামিয়ে পুনরায় তুলে নেওয়া হয়।

বন্ধ করুন