বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > Euro 2020: ‘ইংল্যান্ডকে পেনাল্টিটা না দিলেও পারত’, মুখ খুললেন ইতালির ভেরাত্তি
ইতালির জার্সিতে ভেরাত্তি।
ইতালির জার্সিতে ভেরাত্তি।

Euro 2020: ‘ইংল্যান্ডকে পেনাল্টিটা না দিলেও পারত’, মুখ খুললেন ইতালির ভেরাত্তি

  • ইউরোর ফাইনালে ইতালির জেতার রেকর্ড রয়েছে ১০০ শতাংশ। এ দিকে প্রথম বার ইউরোর ফাইনালে উঠেছে ইংল্যান্ড। এমন কী ৫৫ বছর পরে প্রথম কোনও বড় টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলবে তারা। পরিসংখ্যান বলছে, ইতালি এবং ইংল্যান্ড ২৭ বার মুখোমুখি হয়েছে। আজুরিরা ১১ বার জিতেছে। আর ব্রিটিশ দল ৮ বার জিতেছে। ৮ বার ড্র হয়েছে।

একটি বিতর্কিত পেনাল্টি নিয়েই ইউরোর ফাইনালের আগে মহা চাপে পড়ে গিয়েছেন হ্যারি কেনরা। ৫৫ বছর পরে প্রথম কোনও বড় টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠল ইংল্যান্ড। আর এই প্রথম বার ইউরো কাপের ফাইনালে পৌঁছল তারা। তবু স্বস্তি পাচ্ছেন না রহিম স্টার্লিংরা। সেমিফাইনালে ডেনমার্কের বিরুদ্ধে ম্যাচে একস্ট্রা টাইমের সময়ে বিতর্কিত পেনাল্টিই যেন বড় প্রতিপক্ষ হয়ে উঠেছে ব্রিটিশদের। আর এই বিতর্কিত পেনাল্টি নিয়ে এ বার মুখ খুললেন ইতালির তারকা ফুটবলার মর্কো ভেরাত্তি।

বৃহস্পতিবার সাংবাদিক সম্মেলনে ভেরাত্তি পরিষ্কার বলে দিয়েছেন, ‘ওই পেনাল্টিটা নাও হতে পারত। তবে এটা ফুটবলের একটি অঙ্গ। আমার মনে হয়, পেনাল্টিটা ছিল না।’ তবে এই বিতর্কিত পেনাল্টির জন্য ইউরোর ফাইনালে কোনও তারতম্য হবে না বলেই মনে করেন ভেরাত্তি।

তাঁর মতে, ‘আমার মনে হয়, ইংল্যান্ড অসাধারণ খেলছে। ওরা প্রথম বার ইউরোর ফাইনালে উঠেছে। আর এর মানেটা কিন্তু অনেক বড়। ওরা মাত্র একটি গোল খেয়েছে। ইংল্যান্ড কিন্তু খুবই শক্তিশালী দল। ভাল প্লেয়ার রয়েছে, খুবই ব্যালেন্সড দল এবং ওরা যোগ্য দল হিসেবেই ফাইনালে উঠেছে। এখন ফাইনাল ম্যাচের উপর সবটা নির্ভর করছে। আমার মনে হয় একটা ঐতিহাসিক ফাইনাল হতে চলেছে।’

ভারতীয় সময়ে রবিবার রাতে ইংল্যান্ডের ওয়েম্বলিতে ইউরোর ফাইনাল ম্যাচ হবে। যে ম্যাচে মুখোমুখি হবে ইংল্যান্ড এবং ইতালি। ফাইনালে ইতালির জেতার রেকর্ড রয়েছে ১০০ শতাংশ। এ দিকে প্রথম বার ইউরোর ফাইনালে উঠেছে ইংল্যান্ড। এমন কী ৫৫ বছর পরে প্রথম কোনও বড় টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলবে তারা। পরিসংখ্যান বলছে, ইতালি এবং ইংল্যান্ড ২৭ বার মুখোমুখি হয়েছে। আজুরিরা ১১ বার জিতেছে। আর ব্রিটিশ দল ৮ বার জিতেছে। ৮ বার ড্র হয়েছে।

ভেরাত্তি বলেছেন, ‘ইংল্যান্ড খুবই শারীরিক ভাবে খেলে। পাশাপাশি ওদের কিছু প্লেয়ার রয়েছে, যাদের স্কিলও খুবই ভাল। আমরা খুবই শক্তিশালী দলের মুখোমুখি হতে চলেছি। ওরা কিন্তু ঘরের মাঠেও খেলবে। যে কারণে মাঠ, স্টেডিয়াম সম্পর্কে ওদের ধারণা বেশি। কিন্তু আমাদেরও স্বপ্ন, এই ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ জেতা।’ এ বার জিতলে দু'বার ইউরো চ্যাম্পিয়ন হওয়ার স্বাদ পাবে ইতালি।

বন্ধ করুন