বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > Euro 2020: ২-২-এর ম্যাচে ৩ গোলই পেনাল্টি থেকে, পরের পর্বে পর্তুগাল এবং ফ্রান্স
লড়াইটা মাঠের ভিতরে। মাঠের বাইরে সবাই বন্ধু। বিরতিতে গল্পে মেতে রোনাল্ডো এবং বেঞ্জেমা। ছবি: রয়টার্স
লড়াইটা মাঠের ভিতরে। মাঠের বাইরে সবাই বন্ধু। বিরতিতে গল্পে মেতে রোনাল্ডো এবং বেঞ্জেমা। ছবি: রয়টার্স

Euro 2020: ২-২-এর ম্যাচে ৩ গোলই পেনাল্টি থেকে, পরের পর্বে পর্তুগাল এবং ফ্রান্স

  • ইরানের স্ট্রাইকার আলি দাইকে স্পর্শ করে ফেললেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। জাতীয় দলের জার্সিতে বিশ্বের সর্বোচ্চ গোলদাতার রেকর্ড এখন আলি দাইয়ের পাশাপাশি রোনাল্ডোর ঝুলিতেও রয়েছে। আলি দাইয়ের মতো রোনাল্ডোর গোলসংখ্যাও এখন ১০৯।

পোনাল্টি নির্ভর ম্যাচ। আর সেই ম্যাচ ড্র করেই ইউরো কাপের পরের পর্বে চলে গেল ফ্রান্স এবং পর্তুগাল, দুই দলই। এই ম্যাচে করিম বেঞ্জেমার একটি গোল বাদ দিলে বাকি তিনটি গোলই হয়েছে পেনাল্টি থেকে। ম্যাচটি ২-২ ড্র হয়েছে। আর এই ম্যাচে দুই গোল করেই যুগ্ম ভাবে সর্বোচ্চ গোলদাতা হওয়ার রেকর্ড গড়ে ফেললেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো।

এ বার ইউরোর গ্রুপ অফ ডেথ বলা হচ্ছিল গ্রুপ ‘এফ’কে। সেই গ্রুপেরই দু'টি ম্যাচ ছিল ভারতীয় সময়ে বুধবার গভীর রাতে। এ দিনের ম্যাচ শুরু হওয়ার আগে এমন পরিস্থিতি ছিল, যে কোনও দলই পরের পর্বে যেতে পারত। সে কারণে এই গ্রুপের ম্যাচ ঘিরে টানটান উত্তেজনা ছিল। অন্য ম্যাচে জার্মানি এবং হাঙ্গেরি মুখোমুখি হয়েছিল। তবে এই গ্রুপের দু'টি ম্যাচের ফলই এ দিন একেবারে এক হয়। দু'টি ম্যাচেরই স্কোর হয় ২-২।

ফ্রান্সকে ইউরোর সেরা দল বলা হচ্ছিল। তারা নাকি এ বার চমকে দেবে। ধারেভারে বাকি দলগুলির চেয়ে তারা নাকি অনেক এগিয়ে। এও বলা হচ্ছিল, ইউরো চ্যাম্পিয়ন হওয়ার প্রথম দাবিদার এ বার ফ্রান্সই। জার্মানিকে ১-০ হারিয়ে শুরুটা খারাপ করেনি দিদিয়ের দেশঁর দল। কিন্তু দ্বিতীয় ম্যাচেই ফ্রান্সের চেয়ে ধারেভারে অনেকটাই পিছিয়ে থাকা হাঙ্গেরির কাছে আটকে যান করিম বেঞ্জেমারা। এমনকী পর্তুুগালের বিরুদ্ধে ম্যাচেও ফ্রান্সকে একটুও জ্বলে উঠতে দেখা গেল না। 

বরং জার্মানি ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর পর্তুগালকে রীতিমতো চাপে ফেলে দিয়েছিল। পর্তুগালের দুর্বল রক্ষণের সুযোগ নিয়ে তারা রোনাল্ডোদের ৪-২ হারিয়েছিল। এমন কী জার্মানদের আক্রমণ সামলাতে গিয়ে দু'টি আত্মঘাতী গোল করে বসেছিল পর্তুগাল। অথচ সেই পর্তুগালের বিরুদ্ধেও কেমন যেন ফ্যাকাসে লাগল ফ্রান্সের আক্রমণ। 

পর্তুগাল দলে আবার রোনাল্ডো ছাড়া এমন কেউ নেই, যার খেলা নিয়ে উচ্ছ্বসিত হওয়া যায়। তাদের রক্ষণ তো খুবই খারাপ। এত খারাপ রক্ষণ নিয়ে গত বারের ইউরো চ্যাম্পিয়নদের নক আউট পর্বে কিন্তু বেশ সমস্যায় পড়তে হতে পারে। যাইহোক এ দিন  প্রথমার্ধের ৩০ মিনিটেই পেনাল্টি পায় পর্তুগাল। রোনাল্ডো গোল করতে কোনও ভুল করেননি। এর পরে অবশ্য ফ্রান্সও পেনাল্টি পায়। ইনজুরিয় টাইমে পেনাল্টি থেকে গোলশোধ করার পাশাপাশি আরও একটি অসাধারণ গোল করেন করিম বেঞ্জেমা। বেঞ্জেমার জোড়া গোলে বিরতির আগে এগিয়ে যায় ফ্রান্স।

দ্বিতীয়ার্ধে ফের পেনাল্টি পায় পর্তুগাল। গোলশোধ করে নতুন নজির গড়ে ফেলেন রোনাল্ডো। ইরানের স্ট্রাইকার আলি দাইকে স্পর্শ করে। জাতীয় দলের জার্সিতে বিশ্বের সর্বোচ্চ গোলদাতার রেকর্ড এখন আলি দাইয়ের পাশাপাশি রোনাল্ডোর ঝুলিতেও রয়েছে। আলি দাইয়ের মতো রোনাল্ডোর গোলসংখ্যাও এখন ১০৯। এই ইউরোতেই কি আলি দাইকে ছাড়িয়ে যাবেন রোনাল্ডো? সেই নিয়ে জল্পনা চলছে।

শেষ ষোলোর লড়াইয়ে রোনাল্ডোর পর্তুগাল মুখোমুখি হবে বিশ্বের এক নম্বর দল বেলজিয়ামের। ‘এফ’ গ্রুপের শীর্ষে থাকা ফ্রান্স আবার সুইজারল্যান্ডের মুখোমুখি হবে।

বন্ধ করুন