বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > ইউরোতে ছন্দপতন, গোল করার লোকের অভাবে ডুবল স্পেন, হারল ১০ জনের পোল্যান্ড
গোলের সুযোগ নষ্টের খেসারত দিতে হয়েছে জর্ডি আলবাদের। সুইডেনও কিছু গোলার সহজ সুযোগ হাতছাড়া করেছে। ছবি: রয়টার্স
গোলের সুযোগ নষ্টের খেসারত দিতে হয়েছে জর্ডি আলবাদের। সুইডেনও কিছু গোলার সহজ সুযোগ হাতছাড়া করেছে। ছবি: রয়টার্স

ইউরোতে ছন্দপতন, গোল করার লোকের অভাবে ডুবল স্পেন, হারল ১০ জনের পোল্যান্ড

  • ইউরোর শুরুতেই স্পেনের হোঁচট খাওয়ার সবচেয়ে বড় কারণ, গোল করার লোকের অভাব। অন্তত প্রথম ম্যাচে সেই অভাবটাই প্রকট হয়ে উঠল।

ইউরোর শুরুতেই বড় ধাক্কা খেল স্পেন। আটকে গেল সুইডেনেরর কাছে। এ দিকে স্পেনকে আটকে ম্যাচের শেষে সেলিব্রেশনে মাতলেন সুইডেনের ফুটবলার থেকে মাঠে উপস্থিত দর্শক, প্রত্যেকেই। আর সেলিব্রেশন করবেন নাই বা কেন! স্পেনের মতো হাইপ্রোফাইল দলকে আটকে যে গুরুত্বপূর্ণ ১ পয়েন্ট ছিনিয়ে নিয়েছে সুইডেন।

ইউরোর শুরুতেই স্পেনের হোঁচট খাওয়ার সবচেয়ে বড় কারণ, গোল করার লোকের অভাব। অন্তত প্রথম ম্যাচে সেই অভাবটাই প্রকট হয়ে উঠল। স্পেন যে সুযোগ তৈরি করেনি, তা কিন্তু নয়। প্রথমার্ধে তো বেশ কয়েকটি ভাল সহজ সুযোগ পেয়েছিল। কিন্তু সেগুলো তারা কাজে লাগাতে ব্যর্থ হয়। বিশেষত সুইডেনের গোলকিপার রবিন অলসেন কয়েকটি ভাল সেভ করেছেন।

প্রশ্ন উঠেছে আলভারো মোরাতাকে নিয়ে। যিনি জুভেন্তাসে ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর আড়ালেই ঢাকা পড়ে থাকেন। অর্ধেক সময়ে তো খেলার সুযোগই পান না। সেই মোরাতাই স্পেনের প্রধান স্ট্রাইকার। স্বভাবতই তিনি যে ভাবে গোলের সহজ সুযোগ নষ্ট করলেন, তাতে তাঁকে নিয়ে প্রশ্ন ওঠাই স্বাভাবিক। স্পেন কিন্তু এখনও সুন্দর পাসিং ফুটবল খেলে। সুযোগও তৈরি করে। কিন্তু ফিনিশ করার লোক নেই। 

এ দিন ম্যাচে ৮৫ শতাংশ বলের দখল নিজেদের কাছেই রেখেছিল স্পেন। ৯১৭টি পাস খেলেছে তারা। বহু গোলের সুযোগও তৈরি করেছিল। কিন্তু কিছুই কাজে লাগাল না। অন্যদিকে, সুইডেন নিজেদের মধ্যে পাস খেলেছে মাত্র ১৬১টি। তবে স্পেনকে আটকে দেওয়াটা তাদের কাছে কার্যত জয়ের সমান।

সুইডেন যদিও ম্যাচের পুরো সময়টাই রক্ষণ সামলে গিয়েছে। তবু কাউন্টার অ্যাটাকে উঠে যে তারাও গোলের সুযোগ তৈরি করেনি, এমনটাও নয়। হাতেগোনা হলেও বেশ কয়েকটি ভাল সুযোগ তারা তৈরি করেছিল। কিন্তু কাজে লাগাতে পারেনি। নিঃসন্দেহে এই সময়ে জ্লাটন ইব্রাহিমোভিচকে মিস করছিলেন ফুটবল প্রেমীরা। দুই দলের গোলের সুযোগ নষ্ট করার নিটফল, গোলশূন্য ড্র। এই ইউরোতে এটাই প্রথম গোলশূন্য ড্র।

এ দিকে আত্মঘাতী গোল, লালকার্ড দেখে দশ জন হয়ে যাওয়ার খেসারত ম্যাচ হেরে দিতে হল পোল্যাল্ডকে। স্লোভাকিয়ার বিরুদ্ধে ১-২ হারে পোল্যান্ড।

ম্যাচের শুরুতেই ১৮ মিনিটে মাথায় পোল্যান্ডের গোলকিপার উচসেজ সেজনির হাতে লেগে বল গোলে ঢুকে যায়। সেজনির আত্মঘাতী গোলে এগিয়ে যায় স্লোভাকিয়া। তবে বিরতির পর সমতা ফেরান ক্যারল লিনেটি। তবে দিনটা বোধহয় রবার্ট লেভানডস্কিদের ছিল না। ৬২ মিনিটে পোল্যান্ডের মিডফিল্ডার ক্রাইচোউইক লালকার্ড দেখেন। দশ জন হয়ে যাওয়ার পরে চাপে পড়ে যান রবার্ট লেভানডস্কিরা। সেই সুযোগে ৬৯ মিনিটে মিলান স্ক্রিনিয়ারের গোলে ২-১ করে স্লোভাকিয়া। এই ম্যাচ হেরে বড় ধাক্কা খেল পোল্যান্ড। পরের পর্বে যেতে হলে দ্বিতীয় ম্যাচে জয় পেতেই হবে লেভানডস্কির টিমকে।

বন্ধ করুন