বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > FIFAও EA-র ২৯ বছরের সম্পর্কে চিড়, পরের বছর থেকে নাম বদলাচ্ছে জনপ্রিয় গেমের
২০২২ সালেই শেষ হচ্ছে ফিফা ও ইএ-র মধ্যেকার চুক্তি।

FIFAও EA-র ২৯ বছরের সম্পর্কে চিড়, পরের বছর থেকে নাম বদলাচ্ছে জনপ্রিয় গেমের

  • নতুন চুক্তির মূল্য এবং বিভিন্ন জিনিসের স্বত্ব নিয়ে দুই সংস্থার মধ্যে বিবাদের জেরেই ভঙ্গ হচ্ছে চুক্তি।

পৃথিবীর সবচেয়ে জনপ্রিয়তম ভিডিয়ো গেমগুলির মধ্যে একটি হল ফিফা। ১৯৯৩ সাল থেকে দীর্ঘ ২৯ বছর ধরে টানা ইএ এবং ফুটবলের নিয়ামক সংস্থা ফিফা মিলে প্রতিবছরই ফিফা নামক ফুটবল ভিডিয়ো গেমটির নতুন নতুন ভার্সন বের করে। তবে পরের বছর থেকে আর এমনটা হচ্ছে না।

প্রায় তিন দশকের সম্পর্কে ভাঙনের পর আগামী বছর থেকে ফিফার বলে ইএ স্পোটর্স এফসি নামে জনপ্রিয় গেমটি লঞ্চ করা হবে। ফিফা এবং ইএ স্পোর্টসের যৌথ উদ্যোগে এই গেম দিনদিনই জনপ্রিয়তার শিখরে পৌঁছেছে। ইএ-র কেবল এই গেমের থেকেই ২০ বিলিয়ান ডলারের থেকেও বেশি উপার্জন হয়েছে। ২০১৩ সালে দুই সংস্থা ২০২২ সাল পর্যন্ত ভিডিয়ো গেমটি প্রকাশ করার নতুন চুক্তি স্বাক্ষর করে। তবে সাম্প্রতিক সময়েই সম্পর্ক খারাপ হওয়া শুরু করে। THE New York Times-র রিপোর্ট অনুযায়ী ফিফা তরফে ইএ-র কাছে চুক্তি বাড়ানোর জন্য বর্তমান মূল্যের দ্বিগুণের থেকেও বেশি অর্থ চাওয়া হয়। পাশাপাশি খেলার বাইরের নানান জিনিস যেমন হাইলাইটস, টুর্নামেন্ট এসব বিষয় নিয়েও বিবাদ লাগে।

ফলে যা হওয়ার তাই হল, নতুন করে আর চুক্তি হচ্ছে না। তবে ইএ-র বাকি ৩০০ পার্টনারের সঙ্গে এখনও চুক্তি থাকায় তাদের পরবর্তী গেমে সিংহভাগ খেলোয়াড়, দল, স্টেডিয়াম সবই থাকছে। তাই গেমারদের অভিজ্ঞতার খুব একটা বদল হয়তো হবে না। এক্ষেত্রে চাপ বেশি ফিফার। নিজেদের গেমের জন্য নতুন পার্টনার খুঁজতে হবে এবার তাদের। তবে মার্কেটে বর্তমানে ইএ-কে টক্কর দেওয়ার মতো তেমন কেউ নেই। ইএ-র সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বী প্রো এভোলুসন সকারের (পেস) মার্কেটও এখন ভীষণই পড়ে গিয়েছে। তাই ফিফা ২০২২-র রিলিজের পর ভিডিয়ো গেম প্রকাশ করার জন্য ফিফার সামনে এখন বড় চ্যালেঞ্জ।

বন্ধ করুন