বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > ICU-তে সুরজিৎ সেনগুপ্ত, গঠিত মেডিক্যাল বোর্ড, বৈঠক করলেন ক্রীড়ামন্ত্রী
প্রাক্তন ফুটবলার সুরজিৎ সেনগুপ্ত (ছবি:ফেসবুক)
প্রাক্তন ফুটবলার সুরজিৎ সেনগুপ্ত (ছবি:ফেসবুক)

ICU-তে সুরজিৎ সেনগুপ্ত, গঠিত মেডিক্যাল বোর্ড, বৈঠক করলেন ক্রীড়ামন্ত্রী

  • অক্সিজেনের মাত্রা অনেকটাই কমে গিয়েছে। তাঁকে পোর্টেবল বাইপাপ চিকিৎসা ব্যবস্থার মধ্যে রাখা হয়েছে। সুরজিৎ সেনগুপ্তের চিকিৎসার জন্য ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের বৈঠক, তৈরি হচ্ছে মেডিকেল বোর্ড, দেখতে আসছেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক যোগীরাজ রায়। 

প্রাক্তন ফুটবলার সুরজিৎ সেনগুপ্তকে সোমবার হাসপাতালে ভর্তি করার পর থেকেই সকলে চিন্তা করছেন। গোটা ময়দান সুরজিৎ সেনগুপ্তের দ্রত আরোগ্য কামনা করছে। হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার সময় প্রচণ্ড কাশি ছিল তার। সোমবার রাত পর্যন্তও স্থিতিশীল ছিলেন তিনি। তাঁকে সাধারণ কোভিড ওয়ার্ড থেকে এইচডিইউ-তে স্থানান্তরিত করা হয়। পর্যবেক্ষণে রাখার জন্যই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু স্থিতিশীল ছিলেন সুরজিৎ। গভীর রাত থেকে হঠাৎই শারীরিক অবস্থার অবনতি শুরু হয়। অক্সিজেনের মাত্রা অনেকটাই কমে গিয়েছে। তাঁকে পোর্টেবল বাইপাপ চিকিৎসা ব্যবস্থার মধ্যে রাখা হয়েছে। হয়তো পুরো মাত্রায় বাইপাপ চিকিৎসা চালু করতে হবে।

সোমবার গভীর রাতে ফোন করে জানানো হয়, আইসিইউ-তে স্থানান্তরিত করা হয়েছে তাঁকে। কারণ, অক্সিজেনের মাত্রা ৫৩-এ নেমে গিয়েছে। এর পরেই পোর্টেবল বাইপাপ ব্যবস্থার মাধ্যমে অক্সিজেন দেওয়া হয় সুরজিৎকে। কিন্তু তাতে খুব একটা সন্তোষজনক ফল পাওয়া যাচ্ছে না। অক্সিজেনের মাত্রা ৭০-এর আশেপাশে থাকছে। ফলে তাঁকে পুরোদস্তুর বাইপাপের মধ্যে রাখা হতে পারে। বাইপাসের ধারে এক হাসপাতালে এই প্রাক্তন ফুটবলার ভর্তি করা হয়েছে। সেখানেই তার চিকিৎসা চলছে। 

সুরজিৎ সেনগুপ্তের চিকিৎসার জন্য উদ্যোগী হল রাজ্য সরকার। মঙ্গলবার ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস একটি বৈঠক করেন। বৈঠকে অরূপ বিশ্বাস ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন পিয়ারলেস হাসপাতালের সিইও, প্রাক্তন ফুটবলার ও বিধায়ক মানস ভট্টাচার্য, বিদেশ বসু এবং সত্যজিৎ চট্টোপাধ্যায়। এ ছাড়াও ইস্টবেঙ্গলের তরফে ছিলেন দেবব্রত সরকার এবং মোহনবাগানের তরফে ছিলেন দেবাশীষ দত্ত। আইএফএ সচিব জয়দীপ মুখোপাধ্যায়ও ছিলেন সেই বৈঠকে। ছিলেন সুরজিতের ছেলে স্নিগ্ধজিত সেনগুপ্ত। বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে একটি মেডিকেল বোর্ড তৈরি করা হবে। প্রাক্তন ফুটবলার সুরজিৎ সেনগুপ্তকে দেখতে আসবেন করোনার বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক যোগীরাজ রায়।

সোমবার কোভিড আক্রান্ত হওয়ায় হাসপাতালে ভর্তি করানো হয় প্রাক্তন এই ফুটবলারকে। প্রচণ্ড কাশি নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন সুরজিৎ। তাঁকে সাধারণ কোভিড ওয়ার্ড থেকে এইচডিইউ-তে স্থানান্তরিত করা হয়। পর্যবেক্ষণে রাখার জন্যই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু স্থিতিশীল ছিলেন সুরজিৎ। গভীর রাত থেকে হঠাৎই শারীরিক অবস্থার অবনতি শুরু হয়। অক্সিজেনের মাত্রা অনেকটাই কমে গিয়েছে। তাঁকে পোর্টেবল বাইপাপ চিকিৎসা ব্যবস্থার মধ্যে রাখা হয়েছে। হয়তো পুরো মাত্রায় বাইপাপ চিকিৎসা চালু করতে হবে। 

প্রাক্তন ফুটবলার সুরজিৎ সেনগুপ্তকে সোমবার হাসপাতালে ভর্তি করার পর থেকেই সকলে চিন্তা করছেন। গোটা ময়দান সুরজিৎ সেনগুপ্তের দ্রত আরোগ্য কামনা করছে। হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার সময় প্রচণ্ড কাশি ছিল তার। সোমবার রাত পর্যন্তও স্থিতিশীল ছলিনে তিনি। 

সোমবার গভীর রাতে ফোন করে জানানো হয়, আইসিইউ-তে স্থানান্তরিত করা হয়েছে তাঁকে। কারণ, অক্সিজেনের মাত্রা ৫৩-এ নেমে গিয়েছে। এর পরেই পোর্টেবল বাইপাপ ব্যবস্থার মাধ্যমে অক্সিজেন দেওয়া হয় সুরজিৎকে। কিন্তু তাতে খুব একটা সন্তোষজনক ফল পাওয়া যাচ্ছে না। অক্সিজেনের মাত্রা ৭০-এর আশেপাশে থাকছে। ফলে তাঁকে পুরোদস্তুর বাইপাপের মধ্যে রাখা হতে পারে। বাইপাসের ধারে এক হাসপাতালে এই প্রাক্তন ফুটবলার ভর্তি করা হয়েছে। সেখানেই তার চিকিৎসা চলছে। 

একসময় কলকাতার তিন প্রধানে দাপিয়ে খেলেছেন সুরজিৎ সেনগুপ্ত। ফুটবলজীবনে তাঁর প্রথম বড় ক্লাব মোহনবাগান। এরপর সুরজিৎ সেনগুপ্তকে প্রায় হাইজ্যাক করে তুলে নেয় ইস্টবেঙ্গল। তখন থেকেই ইস্টবেঙ্গলের ঘরের ছেলে হয়ে ওঠেন। ১৯৭৭–৭৯ পর্যন্ত ইস্টবেঙ্গলের অধিনায়কও ছিলেন তিনি। ১৯৮০ সালে মহমেডান স্পোর্টিংয়ে যোগ দেন।

শনিবার প্রয়াত হয়েছেন প্রাক্তন ফুটবলার সুভাষ ভৌমিক। এবার করোনায় আক্রান্ত হলেন সুরজিৎ সেনগুপ্ত। তিনি অসুস্থ হওয়ায় উদ্বেগ বেড়েছে বাংলার ক্রীড়ামহলে। সকলেই সুরজিৎ সেনগুপ্তর দ্রুত আরোগ্য কামনা করছেন। অনেক প্রাক্তন ফুটবলার খেলা ছাড়ার পর কোচিংকে বেছে নিয়েছিলেন। সে রাস্তায় হাঁটেননি সুরজিৎ সেনগুপ্ত। ব্যাঙ্কের চাকরি থেকে স্বেচ্ছাবসর নেওয়ার পর দীর্ঘদিন একটি পত্রিকার ডিরেক্টরের দায়িত্ব সামলেছিলেন।|#+|

 

বন্ধ করুন