বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > ‘চোট-আঘাত, অসুস্থতা সত্ত্বেও ফুটবলারদের খেলায় খুশি’, ড্র করার পরেও দাবি ATK MB কোচের
জুয়ান ফেরান্দো।

‘চোট-আঘাত, অসুস্থতা সত্ত্বেও ফুটবলারদের খেলায় খুশি’, ড্র করার পরেও দাবি ATK MB কোচের

  • মুম্বই কাঁটা পুরো উপড়ে ফেলতে পারল না এটিকে মোহনবাগান। না হারলেও আত্মঘাতী গোল করে ১-১ ফলেই সন্তুষ্ট থাকতে হল সবুজ-মেরুনকে। দল ম্যাচ ড্র করে মাঠ ছাড়লেও এটিকে মোহনবাগানের স্প্যানিশ কোচ জুয়ান ফেরান্দো অবশ্য অখুশি নন। তাঁর মতে, যে কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে দল, তার প্রেক্ষিতে অখুশি হওয়ার মতো ফল হয়নি।

ডার্বিতে দাপটের সঙ্গে জেতার পরের ম্যাচেই ছন্দে না থাকা মুম্বই সিটি এফসি-র বিরুদ্ধে ফের আটকে গেল এটিকে মোহনবাগান। হারতে না হলেও, মুম্বই কাঁটা তারা পুরো উপড়ে ফেলতে পারল না। আত্মঘাতী গোল করে ১-১ ফলেই সন্তুষ্ট থাকতে হল সবুজ-মেরুনকে। দল ম্যাচ ড্র করে মাঠ ছাড়লেও এটিকে মোহনবাগানের স্প্যানিশ কোচ জুয়ান ফেরান্দো অখুশি নন। তাঁর মতে, যে কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে দল, তার প্রেক্ষিতে অখুশি হওয়ার মতো ফল হয়নি। 

বৃহস্পতিবার ম্যাচের পর ফেরান্দো যা বললেন:

দুর্ভাগ্য জয়টা পেল না টিম। আত্মঘাতী গোলই কি ম্যাচে আপনাদের দুর্ভাগ্য ডেকে আনল?

আজ আমাদের অনেক সমস্যা ছিল। প্রচুর সুযোগ তৈরি করা সত্ত্বেও তিন পয়েন্ট না পাওয়াটাই তো বড় সমস্যা। একটা নিজ গোল হয়েছে ঠিকই। কিন্তু আজ জেতার অনেক সুযোগ পেয়েছিলাম আমরা।

কোন কোন জায়গায় আরও ভালো খেলা উচিত ছিল এটিকে মোহনবাগানের?

সময়টা এমন খারাপ যাচ্ছে যে একটা ভাল দল গড়াই কঠিন হয়ে দাঁড়াচ্ছে। সব দলকেই অবশ্য এই সমস্যার মুখোমুখি হতে হচ্ছে। আমাদের দলে যেমন রয়ের চোট আছে। উইলিয়ামসকে মাঝপথে চোটের জন্য তুলে নিতে হল। কিয়ানেরও চোট হয়েছে। কাউকো ১৫ দিন পরে মাঠে নামল। এই রকম একটা কঠিন সময়েও দল যখন বিপক্ষকে চাপে রাখতে পারছে, আক্রমণ তৈরি করছে, প্রচুর গোলের সুযোগ পাচ্ছে, তখন আমার খুশি হওয়ারই কথা। কিন্তু অন্য দলগুলোর মতো আমাদেরও নানা সমস্যা সত্ত্বেও মাঠে দল নামাতে হচ্ছে। এই অবস্থায় ছেলেদের পাশে দাঁড়াতেই হবে।

জনি কাউকোর প্রত্যাবর্তন দলকে কতটা উজ্জীবিত করেছে?

গতকালই ও (সুস্থ হওয়ার পরে) প্রথম অনুশীলনে নামে। এখনও ও ভাল অবস্থায় নেই। ওর চোট পাওয়ার ঝুঁকি যথেষ্ট। খেলোয়াড়রা যদি সারাক্ষণ ঘরবন্দী হয়ে থাকে, অনুশীলন করতে না পারে, তা হলে সেটা মোটেই ভাল নয়। তবে এই সমস্যা সব দলেরই রয়েছে।

রয় কৃষ্ণকে আজ স্কোয়াডে রাখা হল না কেন?

ওর চোটের জন্য। তিন সপ্তাহ আগে ওড়িশার বিরুদ্ধে ম্যাচে ৬২ মিনিটে ওর হ্যামস্ট্রিং সমস্যা শুরু হয়। হায়দরাবাদ এফসি, এসসি ইস্টবেঙ্গল কোনও ম্যাচেই খেলতে পারেনি। ও এখনও সুস্থ হয়ে ওঠেনি বলে স্কোয়াডে ছিল না। তবে ও দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠছে।

সন্দেশ ঝিঙ্গানকে মাঠে কবে দেখা যাবে?

ওর ক্ষেত্রেও ব্যাপারটা একই রকম। ওর এখন প্রি-সিজন চলছে। আমাদের কাছে ও খুব গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়। তাই ওকে নিয়ে তাড়াহুড়ো করে অযথা নতুন চোটের ঝুঁকি নিতে চাই না। ওর প্রস্তুতি চলছে। একশো শতাংশ প্রস্তুতি নিতে পারছে না। কারণ, পুরো দল নিয়ে অনুশীলনের সুযোগ আমরা তেমন পাচ্ছি না। তবে ধাপে ধাপে ও তৈরি হয়ে উঠবে। স্কোয়াডে থাকছে। ওকে মাঠে নামাতে চাই। কিন্তু ম্যাচগুলোতে এত তীব্রতা থাকছে যে, ওকে নামানো যাচ্ছে না। ওকে (চোট থেকে) বাঁচানোটাও তো আমাদের কাজ।

এর পরে হায়দরাবাদ এফসি-র বিরুদ্ধে ম্যাচ রয়েছে, যারা এখন সেরা ফর্মে রয়েছে। ওদের বিরুদ্ধে কী পরিকল্পনা?

পরিকল্পনা তো রয়েছেই। কিন্তু সেটা বলতে পারব না। আমার ইচ্ছা, উদ্দেশ্য এখন কাউকে জানাতে পারব না। তবে এখন এই পরিকল্পনা অনুযায়ীই প্রস্তুতি নেব আমরা।

বন্ধ করুন