বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > ইস্টবেঙ্গল চাইলে, স্থানীয় প্লেয়ার খুঁজতে তাদের সাহায্য করবে সবুজ-মেরুন
লাল-হলুদের পাশে দাঁড়াতে রাজি সবুজ-মেরুন।
লাল-হলুদের পাশে দাঁড়াতে রাজি সবুজ-মেরুন।

ইস্টবেঙ্গল চাইলে, স্থানীয় প্লেয়ার খুঁজতে তাদের সাহায্য করবে সবুজ-মেরুন

  • তাদের দুই প্লেয়ার অরিন্দম ভট্টাচার্য এবং জবি জাস্টিনকে লাল-হলুদের জন্য ছেড়ে দিতে পারে এটিকে মোহনবাগান। এই দুই প্লেয়ারের জন্য অবশ্য ট্রান্সফার ফি এসসি ইস্টবেঙ্গলকে দিতে হবে।

নবান্নের হস্তক্ষেপে শ্রী সিমেন্টের সঙ্গে শেষ পর্যন্ত ইস্টবেঙ্গলের চুক্তি নিয়ে সমস্যা মিটতে চলেছে। তবে অন্য একটি বড় সমস্যায় পড়তে চলেছে এসসি ইস্টবেঙ্গল। তারা আইএসএলের টিম তৈরি করতে গেলে, ভাল স্থানীয় প্লেয়ার পেতে সমস্যায় পড়তে পারে। ইতিমধ্যেই ইস্টবেঙ্গল ছেড়ে একে একে বেড়িয়ে গিয়েছেন দেবজিৎ মজুমদার, নারায়ণ দাসরা। অন্যান্য টিমগুলো নিজেদের দল অনেকটাই গুছিয়ে ফেলেছে। এই পরিস্থিতিতে এসসি ইস্টবেঙ্গল চাইলে তাদের পাশে দাঁড়াতে পারে এটিকে মোহনবাগান।

এটিকে মোহনবাগানের দুই প্লেয়ার অরিন্দম ভট্টাচার্য এবং জবি জাস্টিনকে লাল-হলুদের জন্য ছেড়ে দিতে পারে তারা। এই দুই প্লেয়ারের জন্য অবশ্য ট্রান্সফার ফি এসসি ইস্টবেঙ্গলকে দিতে হবে। গত বছরও ইস্টবেঙ্গলের জন্য অঙ্কিত মুখোপাধ্যায়কে ছেড়ে দিয়েছিল এটিকে মোহনবাগান। যদিও অরিন্দম বলেছেন, তিনি এটিকে মোহনবাগানেই থাকতে চান। তবে ভারতের তারকা গোলকিপার অমরিন্দর সিং-কে এই বছর সই করিয়েছে এটিকে মোহনবাগান। তাই প্রথম একাদশে অমরিন্দরই খেলবেন। সে কারণে অরিন্দমকে ইস্টবেঙ্গলের জন্য ছাড়তে পারে এটিকে মোহনবাগান। যাতে অরিন্দমও খেলার সুযোগ পান। জবি জাস্টিন তো আগেও ইস্টবেঙ্গলে খেলেছেন। তিনিও সবুজ-মেরুনে খেলার সুযোগ পাচ্ছেন না। ইস্টবেঙ্গলে গেলে অন্তত খেলার সুযোগ পেতে পারেন জবি।

শ্রী সিমেন্টের সঙ্গে ইস্টবেঙ্গলের জট অনেক দেরী করে কাটার ফলে টিম করতে এখন বেশ সমস্যাতেই পড়তে হবে লাল-হলুদকে। গত বছরও শেষ মুহূর্তে দল তৈরি করতে গিয়ে বড় অগোছালো হয়ে পড়েছিল লাল-হলুদ ব্রিগেড। যার প্রভাব কিন্তু খেলাতেও পড়েছিল। এ বারও একই পরিস্থিতি। সব কিছু সামলে এসসি ইস্টবেঙ্গল কি পারবে এই বছর ঘুরে দাঁড়িয়ে আইএসএলে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিতে?

বন্ধ করুন