বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > ‘বাবা বেঁচে থাকলে হয়তো মোহনবাগানরত্ন নিতেন না’, কেন এ কথা বললেন শিবাজির ছেলে?
শিবাজি বন্দ্যোপাধায়ের স্ত্রী-র হাতে তুলে দেওয়া হয় মোহনবাগানরত্ন।
শিবাজি বন্দ্যোপাধায়ের স্ত্রী-র হাতে তুলে দেওয়া হয় মোহনবাগানরত্ন।

‘বাবা বেঁচে থাকলে হয়তো মোহনবাগানরত্ন নিতেন না’, কেন এ কথা বললেন শিবাজির ছেলে?

  • করোনার জন্য সভ্য-সমর্থক, এমন কী সংবাদমাধ্যমেরও প্রবেশ নিষিদ্ধ ছিল ক্লাব তাঁবুতে। ২৯ জুলাই উপলক্ষে পুরো অনুষ্ঠানটাই হয় ভার্চুয়ালি। স্মরণে, বরণে শ্রদ্ধা জানানো হয় প্রাক্তন গোলকিপার শিবাজি বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

একেই করোনা, সঙ্গে দোসর আবার অঝোর বৃষ্টি। তারই মধ্যে খুব ছোট করেই পালিত হল মোহনবাগান দিবস। আগের মতো জাঁকজমকপূর্ণ করে কোনও অনুষ্ঠান করা সম্ভব নয়। তবে ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে সবুজ-মেরুনের আবেগের ছোঁয়া ছিল স্পষ্ট। শিবাজি বন্দ্যোপাধ্যায়কে এই বছর মরণোত্তর ‘মোহনবাগান রত্ন’ সম্মানে ভূষিত করা হয়। অন্যতম সেরা গোলকিপার ছিলেন শিবাজি বন্দ্যোপাধ্যায়। 

সত্তর দশকের শেষের দিকে এবং আশির দশকের প্রথমার্ধে সবুজ-মেরুনের গোলের মুখে অতন্ত্র প্রহরী ছিলেন শিবাজি বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার ২৯ জুলাই ‘মোহনবাগান রত্ন’ তুলে দেওয়া হল শিবাজি বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী মালা দেবীর হাতে।

করোনার জন্য সভ্য-সমর্থক, এমন কী সংবাদমাধ্যমেরও প্রবেশ নিষিদ্ধ ছিল ক্লাব তাঁবুতে। ২৯ জুলাই উপলক্ষে পুরো অনুষ্ঠানটাই হয় ভার্চুয়ালি। স্মরণে, বরণে শ্রদ্ধা জানানো হয় প্রাক্তন গোলকিপারকে। নানা ছোট ছোট গল্প, মজায় স্মৃতি সব মিলিয়ে নস্ট্যালজিক এক মুহূর্তের সৃষ্টি হয়েছিল। ফুটবলের পাশাপাশি ভাল ক্রিকেট খেলতেন শিবাজি বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু ফুটবল তাঁর আবেগ, ভালবাসা ছিল। তাই তিনি ফুটবলকেই বেছে নিয়েছিলেন। শিবাজি বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী মালা দেবী জানান, ভাল অ্যাথলিটও ছিলেন তিনি। ক্রিকেট, অ্যাথলেটিক্স এবং ফুটবলে তিনি সমান দক্ষ ছিলেন। এই শিবাজি বন্দ্যোপাধ্যায়ই কসমস ক্লাবের বিরুদ্ধে ম্যাচে ফুটবল সম্রাট পেলের পা থেকে বল কেড়ে নিয়েছিলেন। ম্যাচের পর পেলে তাঁর প্রশংসাও করেছিলেন।

শিবাজি বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছেলে শান্তনু বন্দ্যোপাধ্যায় এ দিন বলেন, ‘বাবা, আজ বেঁচে থাকলে, খুব খুশি হতেন। তবে এই সম্মান হয়তো তিনি নিতেন না। কারণ তিনি কখনও-ই নিজেকে কিংবদন্তি বলে মনে করেননি। মোহনবাগান ক্লাব বাবার কাছে বরাবর পরিবারই ছিল। আর সেই পরিবারের কাছ থেকে এ রকম স্বীকৃতি পেতে তো ভালই লাগে।’

এ দিকে গত মরশুমে আইএসএলে দুরন্ত পারফরম্যান্সের জন্য সেরা ফুটবলার হয়েছেন রয় কৃষ্ণ। ঘরোয়া ক্রিকেটে ক্লাবের হয়ে অসাধারণ পারফরম্যান্সের জন্য সেরা ক্রিকেটার হিসেবে নির্বাচিত করা হয়েছে অভিমন্যু ঈশ্বরণকে। সেরা অ্যাথলিটের পুরস্কার পান বিদিশা কুণ্ডু। রাতে বাংলা ব্যান্ড ক্যাকটাসের গান শোনা যাবে মোহনবাগানের ফেসবুক পেজ থেকে।

বন্ধ করুন