বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > ইস্টবেঙ্গলে ঝুঁকি না নিয়ে মহমেডানে সই করলেন আই লিগ জয়ী গোলরক্ষক শঙ্কর রায়
মহমেডানে সই করলেন গোলরক্ষক শঙ্কর রায় (ছবি-মহমেডান স্পোর্টিং ক্লাব)

ইস্টবেঙ্গলে ঝুঁকি না নিয়ে মহমেডানে সই করলেন আই লিগ জয়ী গোলরক্ষক শঙ্কর রায়

  • ২০২২-২৩ মরশুমে খেলার জন্য মঙ্গলবার মহমেডান ক্লাবে সই করলেন শঙ্কর রায়। বলা যেতে পারে কোনও ঝুঁকি না নিয়ে ভবিষ্যত নিশ্চিত করতেই ইস্টবেঙ্গল ছেড়ে সাদা কালো জার্সি গায়ে তুললেন শঙ্কর রায়। ময়দানের আনাচে কানাচে তেমনই খবর ভেসে আসছে।

২০২২-২৩ মরশুমে খেলার জন্য মঙ্গলবার মহমেডান ক্লাবে সই করলেন শঙ্কর রায়। বলা যেতে পারে কোনও ঝুঁকি না নিয়ে ভবিষ্যত নিশ্চিত করতেই ইস্টবেঙ্গল ছেড়ে সাদা কালো জার্সি গায়ে তুললেন শঙ্কর রায়। ময়দানের আনাচে কানাচে তেমনই খবর ভেসে আসছে। ২০১৯ -২০ সালে আই লিগ জয়ী মোহনবাগান দলের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ছিলেন গোলরক্ষক শঙ্কর রায়। তবে শেষ কয়েকটি মরশুম ইস্টবেঙ্গলের হয়েই খেলছিলেন তিনি। তবে বর্তমানে লাল হলুদ ক্লাবের যা অবস্থা তাতে ভবিষ্যত নিশ্চিত করতেই মহমেডানে সই করলেন শঙ্কর রায়।

কয়েক বছর আগে মহমেডান স্পোর্টিং ক্লাবের হয়েই তাঁর উত্থান হয়েছিল শঙ্কর রায়। এই প্রতিভাবান গোলরক্ষক এরপর সাদা-কালো শিবির ছেড়ে পরের তিন মরশুম মোহনবাগানের জার্সি গায়ে খেলেছিলেন। আইলিগ জয়ী মোহনবাগান দলে তিনিই এক নম্বর গোলরক্ষক ছিলেন। মোহনবাগান এটিকের সঙ্গে যুক্ত হওয়ার পরে আর ডাক পাননি শঙ্কর। সে কারণেই ইস্টবেঙ্গলে সই করেন শঙ্কর রায়। তবে দুই বছরে সেভাবে সুযোগ পাননি তিনি। পরে অবশ্য হায়দরাবাদে লোনে গিয়েছিলেন শঙ্কর। এবার ইস্টবেঙ্গলের ভবিষ্যত নিয়ে কেউই নিশ্চিত হতে পারছেন না। তাই আর ঝুঁকি না নিয়ে মহমেডানেই সই করলেন শঙ্কর রায়। নিজেদের সোশ্যাল মিডিয়াতে এই খবর জানিয়েছে মহমেডানের ক্লাব কতৃপক্ষ।

আরও পড়ুন… রবিবার মেদিনীপুরে হবে ইস্ট-মোহনের লড়াই! বাংলার ডার্বি ঘিরে উত্তেজনা তুঙ্গে

আরও পড়ুন… রবিবার মেদিনীপুরে হবে ইস্ট-মোহনের লড়াই! বাংলার ডার্বি ঘিরে উত্তেজনা তুঙ্গে

ফুটবলাররা দল ছাড়ায় চিন্তায় পড়ে গিয়েছে ইস্টবেঙ্গল ক্লাব। কারণ ইমামির সঙ্গে চুক্তি হলেও দল গঠন থমকে গিয়েছে লাল হলুদে। ফুটবলারদের ধরে রাখতে পারছে না ক্লাব কর্তারা। নতুন ইনভেস্টরের সঙ্গে কর্তাদের চুক্তি জট এখনও কাটেনি। এমন অবস্থায় দলের প্রাক্তনরা জানিয়েছেন, যদি না ঠিক মতো দল গঠন করা যায় তাহলে যেন ইস্টবেঙ্গল আইএসএল-এ না নামে। এমন অবস্থায় বেশ চাপে রয়েছে ইস্টবেঙ্গল ক্লাব।

বন্ধ করুন