বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবলের মহারণ > ‘শেষ কিছু ম্যাচ খেলছি, ফিফা ব্যান করলে বিপর্যয়’, অবসরের ইঙ্গিত সুনীলের

‘শেষ কিছু ম্যাচ খেলছি, ফিফা ব্যান করলে বিপর্যয়’, অবসরের ইঙ্গিত সুনীলের

সুনীল ছেত্রী।

অবসর নেওয়া পর সুনীল ছেত্রী কী করবেন, ঠিক করে ফেলেছেন। তাঁর ইচ্ছে, জঙ্গলের মধ্যে একটা বাড়ি বানানোর। কোলাহল, মোবাইল ফোন থেকে অনেক দূরে তিনি থাকতে চান। প্রচুর বই পড়তে চান। জীবনকে প্রকৃতির মাঝে উপভোগ করতে চান। আর সেই সঙ্গে নিজের আত্মজীবনী লিখতে চান।

সুনীল ছেত্রী কি অবসর নিতে চলেছেন? সুনীলের একটি মন্তব্যের পরেই এই জল্পনা তৈরি হয়েছে। সে ক্ষেত্রে এএফসি এশিয়ান কাপের যোগ্যতা অর্জন পর্বেই তবে জাতীয় দলের জার্সিতে শেষ ম্যাচ খেলবেন তারকা ফুটবলার?

আসলে সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশন পরিচালনার জন্য সভাপতি প্রফুল্ল প্যাটেলকে সরিয়ে সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্ট তিন সদস্যের কমিটি (সিওএ) গড়ে দিয়েছে। অনেকেরই আশঙ্কা, এর ফলে ফিফা নির্বাসিত করতে পারে ভারতকে।

শুক্রবার দুপুরে রাজারহাটের টিম হোটেলে এই প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে সুনীল বলেন, ‘এই খবরটা শোনার পরে আমি নিজেও বেশ আতঙ্কিত হয়ে পড়েছি। কারণ, ভারতকে নির্বাসিত করা হলে, সেটা বিপর্যয়ের বিষয় হবে। শুধু সারা দেশের জন্য নয়, আমার জন্যও, কারণ আমার বয়স ৩৭। আমি হয়তো আমার শেষ কিছু ম্যাচ খেলছি। আপনি কখনই জানেন না, আপনার জন্য শেষ ম্যাচ কোনটা হবে।’

সুনীল এর সঙ্গেই ভারতীয় ফুটবল মহলকে আশ্বস্ত করে বলেছেন, ‘তবে আমার সামান্য জ্ঞান দিয়ে যা বুঝেছি, চিন্তিত হওয়ার কারণ নেই। আশা করছি, ফিফা নির্বাসিত করবে না। সব কিছু নিয়ন্ত্রণেই রয়েছে।’

আরও পড়ুন: এশিয়া কাপে ভারত যোগ্যতা অর্জন করতে না পারলে চাকরি যাবে, তবে আত্মবিশ্বাসী স্টিমাচ

এমন কী অবসর নেওয়ার অবসর নেওয়ার কী ভাবে দিন কাটাবেন সুনীল? এখন থেকেই ঠিক করে রেখেছেন। তিনি বলেছেন, ‘আমার ইচ্ছে জঙ্গলের মধ্যে একটা বাড়ি বানাব। কোলাহল, মোবাইল ফোন থেকে অনেক দূরে থাকতে চাই। প্রচুর বই পড়ব। জীবনকে উপভোগ করব। আর আত্মজীবনী লিখব।’

তবে অবসর প্রসঙ্গে সুনীল স্পষ্ট করে দেন, ‘এই মুহূর্তে আমাদের একটি লক্ষ্য, এশিয়ান কাপের মূল পর্বে যোগ্যতা অর্জন করা। অনেকেরই জিজ্ঞাসা, এটাই আমার শেষ এশিয়ান কাপ কি না! তেূ এউ প্রশ্ন গত পাঁচ বছর ধরে শুনছি। এর উত্তর আমার কাছেও নেই। কারণ এখনও আমি সমান ভাবে উপভোগ করি উদান্তের (সিং) সঙ্গে দৌড়নো। ঝিঙ্ঘনের (সন্দেশ) সঙ্গে হেডের লড়াই। গুরপ্রীতকে গোল দেওয়া। যত দিন খেলা উপভোগ করব, চালিয়ে যাব। যে দিন আর খেলে আনন্দ পাব না, ছেড়ে দেব। এই কারণেই প্রত্যেকটি ম্যাচকেই আমার শেষ ম্যাচ মনে করে মাঠে নামি।’

বন্ধ করুন