বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > গোড়ায় গলদ, অত্যন্ত ছোট ফুটবল মরশুম ভারতীয় দলকে সমস্যায় ফেলছে বলে দাবি জাতীয় দলের কোচ ইগর স্টিমাচের
ভারতীয় দলের কোচ ইগর স্টিমাচ। ছবি- পিটিআই।
ভারতীয় দলের কোচ ইগর স্টিমাচ। ছবি- পিটিআই।

গোড়ায় গলদ, অত্যন্ত ছোট ফুটবল মরশুম ভারতীয় দলকে সমস্যায় ফেলছে বলে দাবি জাতীয় দলের কোচ ইগর স্টিমাচের

  • অফসিজনে ফুটবল খেলায় ফুটবলারদের ফিটনেস সমস্যায় ভুগতে হয় বলে জানান স্টিমাচ।

নেপালকে হারিয়ে রেকর্ড অষ্টমবার সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ জিতলেও এই টুর্নামেন্ট জয়কে ভারতীয় কোচ ইগর স্টিমাচ বেশি গুরুত্ব দিতে রাজি নন, বলে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন। টুর্নামেন্ট জিতলেও শুরুটা কিন্তু একেবারেই ভাল করেননি সুনীল ছেত্রীরা। এর জন্য় ফের একবার ভারতীয় ফুটবলের সূচির দিকে আঙুল তুলছেন স্টিমাচ।

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের শুরুতে ১০ জনের বাংলাদেশে এবং শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে হতাশাজনক ড্র দিয়ে নিজেদের অভিযান শুরু করে ভারতীয় দল। দলের তারকা ডিফেন্ডার সন্দেশ ঝিঙ্গান না থাকায় তা দলকে সমস্যায় ফেলেছে কি না জিজ্ঞেস করা হলে স্টিমাচ বলেন, ‘শুধু ডিফেন্স নয়, আমাদের সমস্যা সব জায়গায়। করোনাকালে আমাদের ফুটবল মরশুম আট-নয় মাসও স্থায়ী হয়না, এটাই ভারতীয় ফুটবলের সবচেয়ে বড় সমস্যা। এর ফলে জাতীয় দলের অনুশীলনে খেলোয়াড়রা অফ সিজনে আসে, যা এক কথায় জঘন্য ব্যাপার।’  

এফসি কাপের সেমিতেই এটিকে মোহনবাগানের চূড়ান্ত হতশ্রী পারফরম্য়ান্সের জন্য এই একই কারণ দর্শান অনেক বিশেষজ্ঞই। কোনরকম টুর্নামেন্ট বা প্রতিযোগিতামূলক ফুটবল না খেলে দুম করে কঠিন টুর্নামেন্টে হঠাৎ করে মাঠে নামা একেবারেই সহজ নয়। সেই কারণেই প্রয়োজনীয় ম্যাচ ফিটনেস না থাকায় সাফের শুরুতে দলের খেলোয়াড়দের নিজের দক্ষতা অনুযায়ী পারফর্ম করতে সমস্যা হচ্ছিল বলে জানান ভারতীয় দলের ক্রোট কোচ।

‘শুরুতে আমাদের একটু সমস্যা হচ্ছিল কারণ, বাকিদের তুলনায় আমাদের প্রস্তুতিটা সঠিক পর্যায়ে ছিল না। নেপাল যেখানে প্রায় আড়াই মাস টুর্নামেন্টের প্রস্তুতির জন্য সময় পেয়েছে, সেখানে আমাদের কাছে প্রস্তুতির জন্য সাত-আটদিনই ছিল। দলের অর্ধেক ফুটবলার তো কম্পিটিভ ম্যাচ না খেলায় ফিটনেসের দিক থেকে সঠিক জায়গায় ছিলনা। আমরা এশিয়ার প্রথম ১০টি দলের মধ্যে থাকার লক্ষ্য করছি এবং তার জন্য আমাদের লিগও বাকি দেশগুলির সমান কোয়ালিটির হওয়া দরকার।’ বলে মনে করেন স্টিমাচ। ভারতীয় ফুটবল ক্যালেন্ডার বাড়ানোর কথাবার্তা চললেও কবে থেকে তা লাগু হবে, সেই বিষয়ে এখনও স্পষ্ট ধারণা কারুরই নেই।

বন্ধ করুন