বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবলের মহারণ > ISL 2022-23: অলৌকিক কিছু না ঘটলে সেরা ছয়ে থাকা যাবে না- ওড়িশার কাছে হেরে মেনে নিলেন EB কোচ

ISL 2022-23: অলৌকিক কিছু না ঘটলে সেরা ছয়ে থাকা যাবে না- ওড়িশার কাছে হেরে মেনে নিলেন EB কোচ

স্টিফেন কনস্ট্যান্টাইন।

বছরের শুরুতে আইএসএলের প্রথম ছয়ে থাকার যে স্বপ্ন দেখার কথা বলেছিলেন লাল-হলুদ খেলোয়াড়রা, শনিবারের হার আপাতত সেই লক্ষ্য থেকে তাদের অনেকটা দূরে সরিয়ে দিল। এখন তাদের অন্য দলগুলোর উপর নির্ভর করতে হবে।

ভুল শুধরে নতুন বছর শুরু করার কথা বলেছিলেন ইস্টবেঙ্গল এফসি-র কোচ স্টিফেন কনস্ট্যান্টাইন। তবে শনিবার ভুবনেশ্বরের কলিঙ্গ স্টেডিয়ামে ওড়িশার বিরুদ্ধে ম্যাচে তিনি ভালো ভাবেই টের পেলেন, তাঁর দলের ফুটবলাররা এখনও নিজেদের ভুলগুলি শোধরাতে পারেননি। প্রথম লেগের মতোই ব্যক্তিগত ভুলের জন্যই শনিবার ফের ওড়িশা এফসি-র কাছে ফিরতি লিগেও হারতে হল ইস্টবেঙ্গল এফসি-কে। এবং সেই কথা এক প্রকার স্বীকারই করে নিয়েছেন ব্রিটিশ কোচ।

শনিবার রাতে ঘরের মাঠে ওড়িশা এফসি লাল-হলুদকে ৩-১-এ হারায়। দশ মিনিটের মধ্যে ক্লেটন সিলভার গোলে ইস্টবেঙ্গল এগিয়ে গেলেও শেষ পর্যন্ত তিন গোল খেয়ে হারতে হয় তাদের। মাস দুয়েক আগে প্রথম লেগের ম্যাচেও দু’গোলে এগিয়ে থেকে ২-৪-এ হেরেছিল লাল-হলুদ বাহিনী। এ বারও সেই একই ধারা অব্যাহত।

আরও পড়ুন: জঘন্য পারফরম্যান্স, এগিয়ে গিয়েও ওড়িশার কাছে হারল লাল-হলুদ

বছরের শুরুতে আইএসএলের প্রথম ছয়ে থাকার যে স্বপ্ন দেখার কথা বলেছিলেন লাল-হলুদ খেলোয়াড়রা, শনিবারের হার আপাতত সেই লক্ষ্য থেকে তাদের অনেকটা দূরে সরিয়ে দিল। কেন এমন হল, তার ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে ইস্টবেঙ্গলের ব্রিটিশ কোচ কনস্টান্টাইন সাংবাদিকদের বলেন, ‘কিছু ব্যক্তিগত ভুল হয়েছে। কর্নার থেকে গোল আটকাতে ব্যর্থ হয় নুঙ্গা। দ্বিতীয় গোলটা পুরো ফ্লুকে হয়েছে। বলটা ক্রস করতে গিয়ে গোলে ঢুকে যায়। ম্যাচ শেষ হওয়ার আট মিনিট আগে আমরা গোল পেয়েছিলাম, যেটা বাতিল করে দেওয়া হয়। টিভির লোকেদের কাছ থেকে শুনলাম, ওটা অফসাইড ছিল না। সারা মরসুমেই এ রকম অনেক সিদ্ধান্ত আমাদের বিপক্ষে গিয়েছে। তবে এটা ঠিকই যে আমাদের কিছু ব্যক্তিগত ভুলের খেসারত দিতে হল।’

আরও পড়ুন: ক্লেটনের জোড়া গোলে ঘরের মাঠে মরশুমের প্রথম জয় ইস্টবেঙ্গলের

এই হারের ফলে প্রথম ছয়ের দৌড়ে কিছুটা পিছিয়ে পড়ল কলকাতার দল। পরের ম্যাচে তাদের জামশেদপুরকে হারাতেই হবে। তাতেও সেরা ছয়ে ওঠার সম্ভাবনা উজ্জ্বল হবে না তাদের। এই প্রসঙ্গে স্টিফেন বলেন, ‘আমি মরশুমের শুরুতেই বলেছিলাম, অলৌকিক কিছু না ঘটলে আমাদের সেরা ছয়ে থাকা কঠিন হবে। এখনও ব্যাপারটা সে রকমই। আরও ২৪ পয়েন্ট বাকি রয়েছে। অঙ্কের হিসেবে এখনও সেই সুযোগ রয়েছে। আমাদের প্রতি ম্যাচে লড়াই করতে হবে। পরের ম্যাচ আমাদের ঘরের মাঠে। সেই ম্যাচে আমাদের লক্ষ্য থাকবে তিন পয়েন্ট। আজ শুরুটা ভালো করেছিলাম। সেটা যদি বজায় রাখতে পারতাম, তা হলে হয়তো ভাল ফল হত। আসলে ভাগ্য আজ আমাদের সঙ্গ দেয়নি।’

এর পর ইস্টবেঙ্গল এফসি-র ম্যাচ ঘরের মাঠে আগামী সপ্তাহে শুক্রবার, জামশেদপুর এফসি-র বিরুদ্ধে। লিগ টেবলে ইস্টবেঙ্গলেরও নীচে থাকা দলটি শেষ জয় পেয়েছিল ৩০ অক্টোবর নর্থইস্ট ইউনাইটেড এফসি-র বিরুদ্ধে। তার পর থেকে টানা দশটি ম্যাচে জয় পায়নি ইস্পাতনগরীর দল। এমন একটা দলকে হারিয়ে জয়ে ফেরার চেষ্টা হয়তো করবে লাল-হলুদ বাহিনী। কিন্তু সেই ম্যাচ জিতেও কোনও লাভ হবে কি না, তা নির্ভর করছে অন্যান্য ম্যাচের ফলের উপর। নিজেদের হাতে আর কিছুই নেই ইস্টবেঙ্গল এফসি-র।

বন্ধ করুন