বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবলের মহারণ > ISL 2022-23: ২০২২ খারাপ গিয়েছে, নতুন বছরে নয়া লক্ষ্যের কথা ওড়িশা ম্যাচের আগে জানালেন EB কোচ

ISL 2022-23: ২০২২ খারাপ গিয়েছে, নতুন বছরে নয়া লক্ষ্যের কথা ওড়িশা ম্যাচের আগে জানালেন EB কোচ

স্টিফেন কনস্ট্যান্টাইন।

আইএসএলে ইস্টবেঙ্গল এবং ওড়িশা এফসি-র মধ্যে যে পাঁচ বার দেখা হয়েছে, তার মধ্যে তিন বার ফুটবলপ্রেমীরা দেখেছেন গোলের ফোয়ারা। এই পাঁচ বারের মুখোমুখিতে মোট ৩৪টি গোল হয়েছে। ওড়িশা জিতেছে চার বার, ইস্টবেঙ্গল এক বার। ২০২০-২১ মরশুমে প্রথম মুখোমুখিতে জয় ছাড়া আর কোনও বার সাফল্য পায়নি লাল-হলুদ বাহিনী।

গত বছরে যা যা ভুল হয়েছে, সেগুলি শুধরে নতুন বছরে নতুন করে মাঠে নামার কথা ভাবছেন ইস্টবেঙ্গল এফসি-র হেড কোচ স্টিফেন কনস্ট্যান্টাইন। গত বছরে চলতি আইএসএল মরশুমের যে এগারোটি ম্যাচ খেলেছে তাঁর দল, তার মধ্যে একাধিক ম্যাচে সাফল্যের মুখ থেকে ফিরে এসেছে ইস্টবেঙ্গল। নতুন বছরে তাই আর জেতা ম্যাচ হাতছাড়া করে মাঠ ছাড়তে চান না স্টিফেন। শনিবার ওড়িশার বিরুদ্ধে তাই নতুন করে শুরু করতে চান তিনি। লক্ষ্য বাকি ২৭ পয়েন্টের মধ্যে অন্তত ১৫-২০ পয়েন্ট পেয়ে প্রথম ছয়ে থেকে লিগ শেষ করা।

শনিবার ভুবনেশ্বরের কলিঙ্গ স্টেডিয়ামে ওড়িশা এফসি-র বিরুদ্ধে যে লড়াইয়ে নামছে তাঁর দল, সেই ম্যাচে এই ভুল শোধরানোরই চ্যালেঞ্জ। নভেম্বরে ঘরের মাঠে ওড়িশার বিরুদ্ধে যে ভাবে জেতা ম্যাচ হাতছাড়া করেছিল তাঁর দলের ছেলেরা, সে ভাবে আর হারতে চান না স্টিফেন। ভুবনেশ্বরে রওনা হওয়ার আগে কলকাতায় সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘প্রতি ম্যাচেই আমরা প্রতিপক্ষের পারফরম্যান্সের উপর ভিত্তি করে পরিকল্পনা করি। এই ম্যাচগুলিতেও তাই করব। ওড়িশাকে আমরা হারাতে পারি এবং ওড়িশাও আমাদের হারাতে পারে। ঘরের মাঠে আমরাই ম্যাচটা হাতছাড়া করেছিলাম (২-৪)। আশা করি, এই ম্যাচে আর সেই একই ভুল হবে না।’

আরও পড়ুন: পরের ২ ম্যাচে বুঝতে পারব,সেরা ছয়ে থাকতে পারব কিনা- দলের সমস্যা আছে,মানছেন ক্লেটন

তবে এই ম্যাচে নামার আগে দলের সবাই যে সুস্থ, তা নয়। কয়েক জন নির্ভরযোগ্য খেলোয়াড়ও চোট-আঘতের তালিকায় রয়েছেন। এই প্রসঙ্গে কোচ বলেছেন, ‘কমলজিৎ (গোলকিপার) অনুশীলনে ফিরেছে। আশা করি ও হয়তো ঠিক সময়ের মধ্যে তৈরি হয়ে যাবে। কিরিয়াকু এখনও একশো শতাংশ তৈরি নয়। জর্ডনকে নিয়েও সাবধান থাকতে হবে। কারণ, এখনও ন’টা ম্যাচ বাকি আমাদের। এই সময়েই বেশি চোট-আঘাত হয়। ছোটখাটো চোট তো থাকেই। তবে এখন কমলজিৎকে নিয়েই চিন্তা বেশি। চেষ্টা করব সেরা দলটা বেছে নিয়েই নামাতে, যাতে ওড়িশার বিরুদ্ধে জয় পেতে পারি। ওড়িশা যথেষ্ট সংগঠিত ও পরিশ্রমী দল। সে কথা মাথায় রেখেই প্রস্তুতি নিচ্ছি এবং আশা করি, ঘরের মাঠে যে তিন পয়েন্ট হারিয়েছিলাম, সেই তিন পয়েন্ট ওদের মাঠে নেমে জিতে আনতে পারব।’

আরও পড়ুন: আমাদের নাম্বার নাইনের উপর নির্ভর করতে হয় না- গোয়াকে হারিয়ে বড় দাবি ATKMB কোচের

গত এগারো ম্যাচে যে সব ভুল হয়েছে, তা আর নতুন করে করতে চান না প্রাক্তন ভারতীয় কোচ। জানালেন, সব ভুলই শোধরানোর চেষ্টা চালাচ্ছেন তাঁরা। বলেন, ‘যে ভুলগুলো হয়েছে, সেগুলি সবই শোধরানোর চেষ্টা করেছি। গত এগারোটা ম্যাচে খুব কঠিন কিছু জিনিস শিখেছি আমরা। যত ভুল করার কথা ছিল, তার চেয়ে বেশি ভুল করেছি। দলটার একসঙ্গে এগারোটা ম্যাচ খেলা হয়ে গিয়েছে। ফলে আরও উন্নতি হওয়া উচিত ছিল। প্রতি সপ্তাহেই আমরা উন্নতি করার চেষ্টা করি, কম ভুল করার চেষ্টা করি। খেলোয়াড়রা সবাই জানে। বেশিরভাগ ম্যাচে প্রতিপক্ষ আমাদের হারিয়েছে, তা নয়। আমরাই ওদের কাছে হেরেছি। এটা ভাল ব্যাপার নয়। এখন আমাদের সামনে আরও ন’টি ম্যাচ আছে। সেরা ছয় থেকে আমরা আট-ন’পয়েন্ট দূরে আছি। আমাদের এখনও ২৭ পয়েন্ট জেতার সুযোগ আছে। চেষ্টা করব, যাতে প্রথম ছয়ে থাকতে পারি। সব ম্যাচে আমরা ভালো খেলতে পারিনি। তবে গত মরশুমের চেয়ে ভালো খেলেছি। আরও ভালো খেলতে হবে।’

বাকি নয় ম্যাচ থেকে কত পয়েন্টের লক্ষ্য রয়েছে তাঁদের, জানতে চাইলে লাল-হলুদের ব্রিটিশ কোচ বলেন, ‘সব ম্যাচে জেতাই লক্ষ্য। খেলোয়াড়রাও তাই চায়। কিন্তু সেই সাফল্য পেতে গেলে, সঠিক সময়ে সঠিক কাজগুলো করতে হবে। এখন ঠিক কী করা দরকার, প্রত্যেককে তা বুঝতে হবে। ২৭ পয়েন্টের মধ্যে অন্তত ২০ পয়েন্ট পেতে হবে আমাদের। তবে আমার মনে হয় চার-পাঁচটা ম্যাচ আমাদের অবশ্যই জেতা উচিত।’

বন্ধ করুন