বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > 'পদত্যাগ করুন, নাহলে সব ফাঁস করে দেব', AIFF সচিব কুশল দাসকে সোশ্যাল মিডিয়ায় চরম হুঁশিয়ারি মিনার্ভা কর্ণধারের
কুশল দাসের বিরুদ্ধে রঞ্জিত বাজাজের টুইট বোমা। ছবি- স্ক্রিনশট।
কুশল দাসের বিরুদ্ধে রঞ্জিত বাজাজের টুইট বোমা। ছবি- স্ক্রিনশট।

'পদত্যাগ করুন, নাহলে সব ফাঁস করে দেব', AIFF সচিব কুশল দাসকে সোশ্যাল মিডিয়ায় চরম হুঁশিয়ারি মিনার্ভা কর্ণধারের

  • স্যাভিয়োকে অপমান থেকে স্বজনপোষণ, এমনকি মহিলা কর্মীকে যৌন হেনস্থার মতো আরও গুরুতর সব অভিযোগ তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় ফেডারেশন সচিব কুশল দাসের পদত্যাগ দাবি করলেন মিনার্ভা পঞ্জাবের কর্ণধার রঞ্জিত বাজাজ।

সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশনের বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন ধরেই অন্তর্ঘাতের অভিযোগ তুলছেন মিনার্ভা পঞ্জাব কর্ণধার রঞ্জিত বাজাজ। প্রায়শই সোশ্যাল মিডিয়ায় সর্বভারতীয় ফুটবল সংস্থার বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিতে দেখা যায় তাঁকে। তবে এবার ফেডারেশন সচিব কুশল দাসের বিরুদ্ধে রীতিমতো বিস্ফোরণ ঘটালেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়ায় কুশল দাসের বিরুদ্ধে ভয়ানক সব অভিযোগ এনে তাঁর পদত্যাগের দাবি জানান বাজাজ।

দাবি জানান বলা ভুল হবে, বরং চরম হুঁশিয়ারি দেন বলাই ভালো। ফেডারেশন সচিব সরে না দাঁড়ালে তাঁর গোপন তথ্য ফাঁস করে দেবেন বলেও হুঙ্কার ছাড়েন বাজাজ। কি নেই বাজাজের অভিযোগের তালিকায়! স্যাভিয়োকে অপমান থেকে স্বজনপোষণ, এমনকি ফেডারেশন সচিব মহিলা কর্মীদের যৌন হেনস্থার মতোর গুরুতর অপরাধেও জড়িত বলে দাবি করেন বাজাজ।

এআইএফএফ-এর সিনিয়র কর্তাদের দ্বারা অপমানিত হয়ে অ্যাক্টিং টিডি স্যাভিয়ো মেদেইরা পদত্যাগ করেছেন, এমন গুঞ্জন শোনা মাত্রই মিনার্ভা কর্ণধার সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তাঁর দাবি, স্যাভিয়োকে হেনস্থা করেছেন অন্য কেউ নন, স্বয়ং ফেডারেশন সচিব কুশল দাস।

প্রো-লাইসেন্স কোচিংয়ের কেন্দ্র নিয়ে মতোবিরোধের জেরেই স্যাভিয়োকে হেনস্থা করা হয় এবং তিনি পদত্যাগ করেন বলে খবর শোনা যায়। এও শোনা যায় যে, এআইএফএফ এখনও তাঁর পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেনি।

রঞ্জিত বাজাজ দাবি করেন, তিনি বিনা পয়সায় মিনার্ভা পঞ্জাবের পরিকাঠামো প্রো লাইসেন্স কোচিং কোর্সের জন্য ব্যবহার করার প্রস্তাব দিয়েছেন, যা পছন্দ নয় ফেডারেশন কর্তাদের একাংশের। কুশল দাস তাঁকে শায়েস্তা করার জন্যই উঠেপড়ে লেগেছেন।

দীর্ঘ টুইট বার্তায় রঞ্জিত বাজাজ অত্যন্ত গুরুতর সব অভিযোগ এনেছেন কুশল দাসের বিরুদ্ধে। তিনি প্রকারান্তরে অভিযোগ করেন, ফেডারেশন চায় না ভারতীয় কোচেরা আইএসএল দলগুলির মাথায় থাকুন। তাই বিদেশি কোচেদের সমতুল্য যোগ্যতামানে পৌঁছনোর ব্যবস্থাই করে না তারা। ৭ বছরেরও বেশি সময় ধরে এআইএফএফ কোনও প্রো-কোর্সের আয়োজন করেননি বলে তিনি উল্লেখ করেন। বিদেশে গিয়ে এই কোচিং কোর্স করতে প্রত্যেকের অন্তত ১০ লক্ষ টাকা করে খরচ হবে বলেও জানান বাজাজ।

রঞ্জিতের দাবি, ভারতীয় কোচেরা যখন আর্থিক সমস্যা ছাড়াই প্রো লাইসেন্স কোচিং কোর্স করার সুযোগ পেতে চলেছেন, তখন বাধ সাধছেন কুশল দাসের মতো কর্তারা। মিনার্ভা কর্ণধার কার্যত হুমকি দেন যে, কুশল দাস ফেডারেশন থেকে পদত্যাগ না করলে তিনি তাঁর সম্পর্কে অস্বস্তিকর সব তথ্য ফাঁস করে দেবেন, যা এতদিন ধামাচাপা দিয়ে রাখা হয়েছে।

এক্ষেত্রে কুশল দাসের বিরুদ্ধে প্রকারান্তরে টেন্ডার ছাড়াই নিজের পছন্দের সংস্থাকে বরাত পাইয়ে দেওয়া থেকে, মহিলা কর্মীর সঙ্গে দুর্ব্যবহারের অভিযোগও এনেছেন রঞ্জিত বাজাজ।

বন্ধ করুন