বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবলের মহারণ > হন্ডুরাসের বিরুদ্ধে মেসির জোড়া গোল! ৩-০ ব্যবধানে জিতল আর্জেন্তিনা

হন্ডুরাসের বিরুদ্ধে মেসির জোড়া গোল! ৩-০ ব্যবধানে জিতল আর্জেন্তিনা

হন্ডুরাসের বিরুদ্ধে আর্জেন্তিনার জার্সি গায়ে লিওনেল মেসি (ছবি-এএফপি)

এই প্রীতি ম্যাচে আর্জেন্তিনার প্রতিপক্ষ ছিল হন্ডুরাস। হার্ড রক স্টেডিয়ামে ৬৪ হাজার ৪২০ দর্শক যে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে ৮০তম মধ্য আমেরিকার এই দেশের খেলা দেখতে যাননি, তা বলাই বাহুল্য। সেই মেসিই ছিলেন মূল আকর্ষণ। হন্ডুরাসের বিপক্ষে আর্জেন্তিনা ৩-০ গোলের জয়ে মেসির জোড়া গোল।

দরজায় কড়া নাড়ছে ফুটবল বিশ্বকাপ। তার মাঝেই হন্ডুরাসের বিরুদ্ধে ৩-০ গোলের ব্যবধানে জয় পেল আর্জেন্তিনা। জোড়া গোল করলেন লিওনেল মেসি। ম্যাচে একচেটিয়া আধিপত্য দেখাল আর্জেন্তিনা। মেসিদের আক্রমণকে ঠেকাতে বেশ কয়েকটি ফাউলের আশ্রয় নিতে দেখা গেছে হন্ডুরাসকে। যেই সংখ্যাটা ১২-র বেশি ছিল। তবে এর মধ্যে দিয়েই মেসির প্রতি তার দলের সতীর্থদের আবেগটা স্পষ্ট হয়েছে। 

মিয়ামির হার্ড রক স্টেডিয়ামে দর্শক ছিল ৬০ হাজারের বেশি দর্শক। তাঁদের সকলের সামনে মন জিতলেন লিওনেল মেসি। এদিন মেসি নিজে করেছেন জোড়া গোল, তার মধ্যে শেষ গোলটি চোখে লেগে থাকবে। আর্জেন্তিনাও অপরাজিত থাকার ধারায় আছে। কাতার বিশ্বকাপ শুরুর আগে আর্জেন্তিনার সমর্থকদের জন্য এর চেয়ে বড় সুসংবাদ।

আরও পড়ুন… যেন আমার একটা অংশ চলে গেল- ফেডেরার বিদায়ে বিষণ্ণ রাফা

এই প্রীতি ম্যাচে আর্জেন্তিনার প্রতিপক্ষ ছিল হন্ডুরাস। হার্ড রক স্টেডিয়ামে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে ৮০তম মধ্য আমেরিকার এই দেশের খেলা দেখতে যাননি, তা বলাই বাহুল্য। সেই মেসিই ছিলেন মূল আকর্ষণ। হন্ডুরাসের বিপক্ষে আর্জেন্তিনা ৩-০ গোলের জয়ে মেসির জোড়া গোল। তবে এদিনের ম্যাচে বেশ কয়েকটি বাকবিতণ্ডার দেখা গেল। ম্যাচের ৩৮ মিনিটে করা ফাউলের পর ক্ষোভ দেখাতে থাকে গোটা আর্জেন্তিনা দল।  কারণ ওই ফাউলের শিকার হয়েছিলেন দলের অধিনায়ক মেসি।  সঙ্গে সঙ্গে দেখা যায়, পুরো আর্জেন্তিনা দলই রীতিমতো তেড়ে এসেছে ফাউল করা দেইবি ফ্লোরেসের দিকে! তবে ফাউলটি গুরুতর না হওয়ায় এবং পরক্ষণেই মেসির উঠে দাঁড়ানোয় মাথা ঠাণ্ডা হয় তার সতীর্থদের। রেফারিও ঘটনাটিকে বাড়তে দেননি।

তবে এদিনের ওই ফাউলের ৬ মিনিট পরই গোল করেন মেসি।  ৪৫ মিনিটে বক্সে লাওতারোকে ফাউল করার ফলে পেনাল্টি পায় আর্জেন্তিনা। সফল স্পটকিকে বল জালে জড়ান লিওনেল মেসি।  মেসিকে জড়িয়ে উদ্বেগ আর ভালোবাসার এমন বহিঃপ্রকাশ শনিবারের ম্যাচে দেখা গেল। এদিন ম্যাচের ১৬ মিনিটে মার্টিনেজের গোলে এগিয়ে যায় আর্জেন্তিনা। এরপরে ৪৫+২ মিনিটে পেনাল্টি থেকে ব্যবধান বাড়ান মেসি। ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে ফের গোল গোল পান এলএম টেন। ম্যাচে ৬৯ মিনিটে আর্জেন্তিনার ব্যবধান ৩-০ করেন লিওনেল মেসি। 

আরও পড়ুন… জানেন কেন চট করে রেগে যান না মহেন্দ্র সিং ধোনি? ‘ক্যাপ্টেন কুল’ জানালেন এর আসল রহস্য

আর্জেন্তিনার হয়ে এই নিয়ে ১৬৩ ম্যাচে ৮৮ গোল করলেন মেসি। দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের ইতিহাসে মেসিই সর্বোচ্চ গোলদাতা। জাতীয় দলের হয়ে সর্বোচ্চ গোলদাতাদের তালিকায় চারে মেসি। তাঁর সামনে ৮৯ গোল করা মালয়েশিয়ার মোখতার দাহিরি, ১০৯ গোল করা ইরানের আলি দাইয়ি এবং ১১৭ গোল নিয়ে সবার ওপরে পর্তুগালের ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। নিউইয়র্কে আগামী মঙ্গলবার অন্য প্রীতি ম্যাচে জ্যামাইকার মুখোমুখি হবে লিওনেল স্কালোনির দল। কাতার বিশ্বকাপে ‘সি’ গ্রুপে আর্জেন্তিনার প্রতিপক্ষ সৌদি আরব, মেক্সিকো ও পোল্যান্ড।

আর্জেন্তিনা এই নিয়ে ৩৪ ম্যাচ অপরাজিত রইল। ২০১৯ কোপা আমেরিকা সেমিফাইনালে সর্বশেষ হেরেছিল লাতিন আমেরিকার দলটি। জাতীয় দলের ইতিহাসে এটি চতুর্থ সর্বোচ্চসংখ্যক ম্যাচ অপরাজিত থাকার নজির। ৩৭ ম্যাচ অপরাজিত থেকে শীর্ষে ইতালি।

 

বন্ধ করুন