বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবলের মহারণ > অভিনব উদ্যোগ নেদারল্যান্ডসের, কাতার বিশ্বকাপে জার্সির নম্বর হবে বয়সের ভিত্তিতে!

অভিনব উদ্যোগ নেদারল্যান্ডসের, কাতার বিশ্বকাপে জার্সির নম্বর হবে বয়সের ভিত্তিতে!

কাতার বিশ্বকাপে নেদারল্যান্ডসের অভিনব উদ্যোগ (ছবি-এএফপি)

সাংবাদিক সম্মেলনে কোচ বলেন, ‘বিষয়টি নিয়ে ফুটবলারদের সঙ্গে আগেই কথা বলেছি আমি। ওদের এমন একটা নম্বর দেওয়া হয়েছে, যেটি বয়সের সঙ্গে মিল খায়।’ পরে তিনি জানান, ‘মজা করছি না। সাংবাদিক সম্মেলনে আমি কখনও মজা করি না। বয়সের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই কাজটি করা হয়েছে।’

শুভব্রত মুখার্জি: কাতার বিশ্বকাপে এক অভিনব উদ্যোগ নেওয়া হল নেদারল্যান্ডস দলের তরফে। সাধারণত ফুটবলারদের জার্সির নম্বর হয় তাঁদের দলে উপযোগিতা, কতটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে, কতটা অভিজ্ঞতা রয়েছে এই সব মিলিয়ে। তবে এবার কাতারে নেদারল্যান্ডস সেই পথে হাঁটল না। তাঁদের দলের ফুটবলারদের জার্সি নম্বর হবে তাঁর বয়সের ভিত্তি অনুযায়ী! হ্যাঁ এমন অভিনব পন্থা নিয়েছে লুই ভ্যান গলের নেদারল্যান্ডস দল।

আরও পড়ুন… ওটা তো আমি… বিরাট কোহলির টুইটের জবাব দিলেন সূর্যকুমার যাদব

সাধারণত প্রথাগতভাবে একটি দলে ফুটবলারদের জার্সি নম্বর দেওয়ার কিছু নিয়ম মানা হয়। সাধারণত প্রথম একাদশে যারা থাকেন, তাদের জার্সি নম্বর বন্টন করা হয় আগে। এরপর অন্যদের জার্সি নম্বর দেওয়া হয়। সেক্ষেত্রে দলে সংশ্লিষ্ট ফুটবলারের প্রভাব, তাঁর খেলার পজিশন, তাঁর তারকামূল্য- ইত্যাদি বিষয়গুলো বিবেচনা করা হয়। তবে বয়স ধরে জার্সি নম্বর বন্টন ফুটবল বিশ্বকাপের ইতিহাসে রীতিমতো বিরল ঘটনা।

আরও পড়ুন… হাসপাতালে ভর্তি শাহিন আফ্রিদি, ভক্তদের বড় আপডেট দিলেন পাক পেস বোলার

কাতার ফুটবল বিশ্বকাপে নেদারল্যান্ডস জাতীয় দলে বয়স ধরেই ফুটবলারদের জার্সি নম্বর দেওয়া হচ্ছে! স্বয়ং কোচ লুই ভ্যান গল এমনটাই জানিয়েছেন। উদাহরণ হিসেবে ধরা যাক সবচেয়ে বেশি বয়সি ফুটবলার হিসেবে ১ নম্বর জার্সি পরবেন রেমকো পাসভির। যদিও প্রথম একাদশে তাঁর থাকার সম্ভাবনা ক্ষীণ। ফ্রাঙ্কি ডি ইয়ংয়ের ক্ষেত্রে আবার ২১ বছর বয়সে দাদার মৃত্যু হওয়ায় তিনি ২১ নম্বর জার্সি নিয়েছেন। দলের সর্বকনিষ্ঠ ফুটবলার হওয়ার কারণে জাভি সিমন্স পেয়েছেন ২৬ নম্বর জার্সি।

সাংবাদিক সম্মেলনে লুই ভ্যান গল জানিয়েছেন, ‘বিষয়টি নিয়ে ফুটবলারদের সঙ্গে আগেই কথা বলেছি আমি। ওদের এমন একটা নম্বর দেওয়া হয়েছে, যেটি বয়সের সঙ্গে মিল খায়।’ তাঁকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, ‘কোচ, আপনি কি মজা করছেন?’ জবাবে তিনি জানান, ‘মজা করছি না। সাংবাদিক সম্মেলনে আমি কখনও মজা করি না। বয়সের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই কাজটি করা হয়েছে।’

বন্ধ করুন