বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > মন ভোলানো কথা শুনতে চাই না, ব্যালন ডি'অর জয়ী মেসির জবাবে বিস্ফোরক লেওয়ানডোস্কি
ব্যালন ডি'অর মঞ্চে সেরা স্ট্রাইকারের পুরস্কার হাতে লেওয়ানডোস্কি। ছবি- রয়টার্স। (REUTERS)

মন ভোলানো কথা শুনতে চাই না, ব্যালন ডি'অর জয়ী মেসির জবাবে বিস্ফোরক লেওয়ানডোস্কি

  • সপ্তমবার ব্যালন ডি'অর জিতেই গত বছরের বাতিল হওয়া পুরস্কার লেওয়ানডোস্কির পাওয়া উচিত ছিল বলে দাবি করেন মেসি।

এক সপ্তাহ আগেই ব্যালন ডি'অর জয়ীর নাম ঘোষণা হয়ে গিয়েছে। সপ্তমবার সেরার সেরা নির্বাচিত হয়েছেন লিওনেল মেসি। তবে আর্জেন্তাইন কিংবদন্তির এই পুরস্কার পাওয়া নিয়ে অনেকেই সহমত নন। বহু বিশেষজ্ঞ থেকে সমর্থকের দাবি মেসি নয় রবার্ট লেওয়ানডোস্কির হাতেই এই পুরস্কার ওঠা উচিত ছিল।

মেসির পাশপাশি লেওয়ানডোস্কিকে এবারের ব্যালন ডি'অর জয়ের সবচেয়ে বড় দাবিদার মনে করা হচ্ছিল। ২০২০ মরশুমে রেকর্ডের ফুলঝরি লাগানোর পর ২০২১ মরশুমেও দুরন্ত ছন্দে ছিলেন বায়ার্ন মিউনিখ তারকা। তবে দিনের শেষে সেরা স্ট্রাইকারের পুরস্কার ট্রফি নিয়েই খুশি থাকতে হয় লেওয়ানডোস্কিকে। অনেকের মতে যোগ্য বিজয়ীকে বঞ্চিত করা হচ্ছে জেনেই পোলিশ তারকার মন রাখতে প্রথমবার এই পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। সপ্তম ব্যালন ডি'অর জিতে মঞ্চে দাঁড়িয়ে মেসিও তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বীর কৃতিত্ব স্বীকার করে দাবি করেছিলেন ২০২০ সালের ব্যালন ডি'অর লেওয়ানডোস্কিরই পাওয়া উচিত ছিল।

করোনার করাণে গত বছর ব্যালন ডি'অর অনুষ্ঠিত হয়নি, তাই কেউই সেই পুরস্কার জেতেনি। ব্যালন ডি'অর মঞ্চে মেসির সেই মন্তব্যের জবাবে এতদিনে মুখ খুললেন লেওয়ানডোস্কি। বায়ার্ন তারকা সাফ জানিয়ে দেন বিগত বছরের পুরস্কার নিয়ে তাঁর বিন্দুমাত্র মাথাব্যথা নেই। পোলিশ সংবাদমাধ্যম Kanale Sportowym-কে এক সাক্ষাৎকারে বায়ার্ন তারকা বলেন, ‘আমি ২০২০ সালের পুরস্কার জেতার প্রতি আগ্রহী নই। আশা করছি ওগুলো (মেসির মন্তব্যগুলি) ওর মতো এক মহান ফুটবলার শুধুমাত্র মন ভোলানোর জন্য বলেনি। মন ভোলানো কথা শুনতে চাই না আমি।’

তাঁর বদলে মেসি পুরস্কার পাওয়ায় যে তিনি একেবারেই খুশি হননি, সে কথাও কোনো রাখঢাক না করেই সাফ জানিয়ে দেন লেওয়ানডোস্কি। ‘আমি যে দুঃখ পেয়েছি, সে কথা অস্বীকার করার কোনো জায়গা নেই। মেসির মতো একজনের সঙ্গে সেয়ানে সেয়ানে টক্কর দেওয়াটা নিঃসন্দেহে গর্বের বিষয় মেনে নিচ্ছি। ওর যে ধরনের ফুটবল খেলে এবং যা যা কৃতিত্ব রয়েছে, তা আমি সম্মান করি। ওর সঙ্গে এই টক্কর প্রমাণ করে আমি কোন স্তরে নিজের খেলাকে নিয়ে যেতে সক্ষম।’ 

এ মরশুমেও দারুণ গোল স্কোরিং ছন্দে রয়েছে লেওয়া। চ্যাম্পিয়ন্স লিগ এবং বুন্দেশলিগা, দুই প্রতিযোগতায়ই এখনও অবঝি সর্বাধিক গোল তাঁর। এমনভাবে চলতে থাকলে কে বলতে পারে ২০২২ হয়তো মেসির বদলে লেওয়ানডোস্কির হাতেই ব্যালন ডি'অর পুরস্কারটি হয়তো উঠল। 

বন্ধ করুন