বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > Santosh Trophy: মণিপুরের বিরুদ্ধে দাপুটে পারফরম্যান্সে ফের একবার ফাইনালে বাংলা
ম্যাচের দুই মিনিটেই সুজিত সিংয়ের গোলে এগিয়ে যায় বাংলা দল। ছবি- টুইটার (@IndianFootball)।
ম্যাচের দুই মিনিটেই সুজিত সিংয়ের গোলে এগিয়ে যায় বাংলা দল। ছবি- টুইটার (@IndianFootball)।

Santosh Trophy: মণিপুরের বিরুদ্ধে দাপুটে পারফরম্যান্সে ফের একবার ফাইনালে বাংলা

  • ৩-০ গোলে মণিপুরকে পরাজিত করে রঞ্জন ভট্টাচার্যের বাংলা।

সন্তোষ ট্রফির রেকর্ড চ্যাম্পিয়ন বাংলা। এ মরশুমে একসময় বাংলার নক আউটে কোয়ালিফাই করা নিয়েই সংশয় থাকলেও, শেষ পর্যন্ত নক আউটে পৌঁছয় বাংলা। শুধু নক আউটে পৌঁছনোই নয়, এবার মণিপুরকে হারিয়ে আবারও সন্তোষ ট্রফির ফাইনালে পৌঁছে গেল বাংলা দল।

কর্ণাটকের বিরুদ্ধে ১০ গোলের থ্রিলারে ফাইনালের টিকিট পাকা করেছিল কেরল। মণিপুরের বিরুদ্ধে ম্যাচের মাত্র দ্বিতীয় মিনিটেই সুজিত সিং দূরপাল্লার একটি শট নেন। তাঁর গোল মেটেইকে হতচকিত করে গোলে জড়িয়ে যাওয়ার ফলে আবারও এক হাই স্কোরিং ম্যাচের আশায় ছিলেন সমর্থকরা। সেই আশা আরও বেড়ে যায় যখন মণিপুর গোলকিপার ও ডিফেন্ডারদের বোঝাপড়ার ভুলের সুযোগ নিয়ে মাত্র সাত মিনিটেই বাংলার হয়ে দ্বিতীয় গোলটি করেন ফর্দিন আলি মোল্লা। মোহনবাগানের ফর্দিন একেবারে মাথা ঠান্ডা রেখে দারুণভাবে গোলের একেবারে কর্ণারে বল জড়িয়ে দেন। এটি এবারের টুর্নামেন্টে তাঁর পঞ্চম গোল।

পিছিয়ে গিয়েও মণিপুর দমে যায়নি। একের পর এক আক্রমণ শানাতে থাকে তারা। ৩২ মিনিটে বাংলার গোলকিপার প্রিয়ন্ত সিং দারুণভাবে জোড়া সেভ করে দলের ক্লিনশিট অক্ষত রাখেন। ২-০ গোলের লিড নিয়েই প্রথমার্ধ শেষে সাজঘরে ফেরে বাংলা। দ্বিতীয়ার্ধে আরও উদ্যম নিয়ে আক্রমণ হানায় মণিপুর। তবে ৭৪ মিনিটে দিলীপ ওঁরাওয়ের আজব গোলে বাংলার জয় সুনিশ্চিত হয়ে যায়। বল ক্রস করতে গেলেও দিলীপের ক্রস বারে লেগে জালে জড়িয়ে যায় মণিপুর গোলকিপার বলের ফ্লাইটই ধরে পারেননি। শেষমেশ ৩-০ গোলেই রঞ্জন ভট্টাচার্যের কোচিংয়ে ফাইনালে উঠে বাংলা। 

 

বন্ধ করুন