বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > এ বার ISL-এ SC EB এবং ATK MB একেবারেই ভালো ছন্দে নেই, এক নজরে দেখে নিন ডার্বির পরিসংখ্যান
এই মরশুমেও প্রথম লেগের ডার্বিতে এসসি ইস্টবেঙ্গলকে ৩-০ হারায় এটিকে মোহনবাগান। 

এ বার ISL-এ SC EB এবং ATK MB একেবারেই ভালো ছন্দে নেই, এক নজরে দেখে নিন ডার্বির পরিসংখ্যান

  • ১০ ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে তারা আপাতত লিগ টেবলের আট নম্বরে। আগের ম্যাচে ওডিশা এফসি-র বিরুদ্ধে গোলশূন্য ড্র করেছে তারা। এ দিকে ১৩ ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে লিগ তালিকার লাস্টবয় এসসি ইস্টবেঙ্গল। তারা এবার আইএসএলে এখনও পর্যন্ত একটি ম্যাচেই জয় পেয়েছে।

আইএসএলে এখনও পর্যন্ত কোনও ডার্বি জেতেনি এসসি ইস্টবেঙ্গল। এই মরশুমেও প্রথম লেগের ম্যাচে ৩-০ হেরেছে তারা। আদৌ কি তারা এ বার জিততে পারবে? বিশেষ করে সোমবার হায়দরাবাদ এফসি-র কাছে ০-৪ গোলে হেরে যে ধাক্কা তারা খেয়েছে, তার পর মাত্র চার দিনের ব্যবধানে কী ভাবে নিজেদের সামলে নিয়ে ডার্বিতে জয়ে ফিরতে পারবে এসসি ইস্টবেঙ্গল, এটাই এখন বড় প্রশ্ন।

তবে এই বছর আইএসএলে অঘটন ঘটেই চলেছে। সেই সঙ্গে ফুটবলেও সবই সম্ভব। সেটাই এখন বড় ভরসা লাল-হলুদ সমর্থকদের। যাই হোক এই মরশুমে এটিকে মোহনবাগানও খুব একটা ভালো ছন্দে নেই। ১০ ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে তারা আপাতত লিগ টেবলের আট নম্বরে। আগের ম্যাচে ওডিশা এফসি-র বিরুদ্ধে গোলশূন্য ড্র করেছে তারা। এ দিকে ১৩ ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে লিগ তালিকার লাস্টবয় এসসি ইস্টবেঙ্গল। তারা এবার আইএসএলে এখনও পর্যন্ত একটি ম্যাচেই জয় পেয়েছে।

দুই চির প্রতিদ্বন্দীর পরিসংখ্যান

পুরনো পরিসংখ্যান ঘাটলে দেখা যাবে ডার্বির লড়াইয়ে কিছুটা হলেও এগিয়ে রয়েছে লাল-হলুদ বাহিনী। মোট ৩৮০টি ডার্বি ম্যাচ খেলা হয়েছে এখনও পর্যন্ত। তার মধ্যে মোহনবাগান জিতেছে ১২৩টি ম্যাচে। আর ইস্টবেঙ্গল জয় পেয়েছে ১৩২টি ম্যাচে। ড্র হয়েছে ১২৫টি ম্যাচ। অর্থাৎ সবুজ-মেরুন বাহিনীর চেয়ে ৯টি ডার্বি বেশি জিতেছে এসসি ইস্টবেঙ্গল।

এ দিকে আইএসএলে কিন্তু এটিকে মোহনবাগানকে হারাতে পারেনি এসসি ইস্টবেঙ্গল। গত মরশুমে প্রথম বার আইএসএলে অংশ নেয় কলকাতার দুই প্রধান। আর প্রথম বার আইএসএলের দু'টো ডার্বিতেই হারতে হয় লাল-হলুদ ব্রিগেডকে। মোটেও ভালো পারফরম্যান্স করতে পারেনি এসসি ইস্টবেঙ্গল। এমন কী এই বছরও প্রথম লেগে এসসি ইস্টবেঙ্গলকে হারিয়েছে সবুজ-মেরুন ব্রিগেড। এখন দেখার ২৯ জানুয়ারি আইএসএলের পরিসংখ্যান এসসি ইস্টবেঙ্গল বদলাতে পারে কিনা! নাকি এটিকে মোহনবাগানই নিজেদের জয়ের ধারা বজায় রাখে!

এই মরশুমে দুই দলের স্ট্যাটিস্টিক্স:

গোল: এটিকে মোহনবাগান ১০ ম্যাচে ২০ গোল

(সর্বোচ্চ স্কোরার - হুগো বৌমাস ৫, লিস্টন কোলাসো ৫, রয় কৃষ্ণা ৪, ডেভিড উইলিয়ামস ২)

এসসি ইস্টবেঙ্গল ১৩ ম্যাচে ১৩ গোল

(সর্বোচ্চ স্কোরার – আন্তোনিও পেরোসেভিচ ২, সেম্বয় হাওকিপ ২, আমির দার্ভিসেভিচ ২, নাওরেম মহেশ ২)

ক্লিন শিট: এটিকে মোহনবাগান ১০ ম্যাচে ২ বার (অমরিন্দর সিং ২)

এসসি ইসস্টবেঙ্গল ১৩ ম্যাচে ২ বার (শুভম সেন ২)

সেভ: এটিকে মোহনবাগান ১০ ম্যাচে ২৬ (অমরিন্দর ২৬/১০)

এসসি ইস্টবেঙ্গল ১৩ ম্যাচে ৩৬ (অরিন্দম ৮/২৩, শুভম ৭/৪, শঙ্কর ১/১)

পাস: এটিকে মোহনবাগান ১০ ম্যাচে ৩৫১১ (সর্বোচ্চ- প্রীতম ৪০০/১০, ম্যাকহিউ ৩৩৬/৮, বুমৌস ৩২৯/৯)

এসসি ইস্টবেঙ্গল ১৩ ম্যাচে ৩৪১৪ (সর্বোচ্চ – দার্ভিসেভিচ ২৬০/৮, হীরা ২৬০/১০, রফিক ২৩১/৯, সৌরভ ২২২/১০)

ক্রস: এটিকে মোহনবাগান ১০ ম্যাচে ৯৫ (সর্বোচ্চ - বুমৌস ২০, মনবীর ১৬, আশুতোষ ১৩, শুভাশিস বোস ১৩)

এসসি ইস্টবেঙ্গল ১৩ ম্যাচে ১০১ (সর্বোচ্চ – বিকাশ জায়রু ১৮, পেরোসেভিচ ১৫, মহেশ ১০, হীরা মণ্ডল ১০)

টাচ: এটিকে মোহনবাগান ১০ ম্যাচে ৫৩৬১

(সর্বোচ্চ- প্রীতম ৫৫৩/১০, শুভাশিস ৪৬৮/১০, বুমৌস ৪৪০/৯, ম্যাকহিউ ৪৩০/৮, মনবীর ৪০৯/১০)

এসসি ইস্টবেঙ্গল ১৩ ম্যাচে ৫৮৩৮

(সর্বোচ্চ – হীরা ৫২৮/১০, রফিক ৩৬৪/৯, সৌরভ ৩৩৫/১০, দার্ভিসেভিচ ৩১৫/৮, অমরজিৎ ৩০০/১১)

ট্যাকল: এটিকে মোহনবাগান ১০ ম্যাচে ৩২৮

(সর্বোচ্চ- শুভাশিস বোস ৩৫/১০, জনি কাউকো ৩৪/৯, প্রীতম ৩৪/১০, ম্যাকহিউ ৩৩/৮, কোলাসো ৩২/১০)

এসসি ইস্টবেঙ্গল ১৩ ম্যাচে ৪২৫

(সর্বোচ্চ- মহেশ ৪৭/১০, অমরজিৎ ৩৭/১১, রফিক ৩৪/৯, সৌরভ ৩৪/১০, হীরা ৩৩/১০)

ফাউল: এটিকে মোহনবাগান ১০ ম্যাচে ১৩৩

(সর্বোচ্চ- দীপক টাঙরি ১৭, কোলাসো ১৫, কার্ল ম্যাকহিউ ১৪, রয় কৃষ্ণা ১৪, প্রীতম কোটাল ১৩)

এসসি ইস্টবেঙ্গল ১৩ ম্যাচে ১৬৩

(সর্বোচ্চ – ড্যানিয়েল চিমা ১৯, সৌরভ দাস ১৭, সেম্বয় হাওকিপ ১১, মহম্মদ রফিক ১১, পেরোসেভিচ ১০)

বন্ধ করুন