বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবলের মহারণ > Senegal vs Netherlands: শেষে গিয়ে জ্বলে উঠল নেদারল্যান্ডস, সেনেগালকে হারাল ২-০ গোলে

Senegal vs Netherlands: শেষে গিয়ে জ্বলে উঠল নেদারল্যান্ডস, সেনেগালকে হারাল ২-০ গোলে

গোল করার পরে সেলিব্রেশন করলেন নেদারল্যান্ডসের কোডি জাকপো (ছবি-এপি)

ম্যাচের ৮৪তম মিনিটে নেদারল্যান্ডসের হয়ে ম্যাচের প্রথম গোলটি করেন কোডি জাকপো। তিনি ফ্রাঙ্কি ডি জং-এর পাসে বল হেড করে পোস্টে নিয়ে যান। ম্যাচের একেবারে শেষ মুহূর্তের অর্থাৎ ৯০+৯ মিনিটে সেনেগালের কফিনে শেষ পেরেকটি পোতেন ডেভি ক্লাসেন। শেষ পর্যন্ত ২-০ ব্যবধানে ম্যাচ জেতে নেদারল্যান্ডস।

২১ নভেম্বর সোমবার বিশ্বকাপের দ্বিতীয় দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল নেদারল্যান্ডস ও সেনেগাল। টুর্নামেন্টের তৃতীয় ম্যাচে নেদারল্যান্ডস বিরুদ্ধে খেলতে নেমেছিল আফ্রিকান চ্যাম্পিয়ন সেনেগালের। গ্রুপ-এ-তে দুই দলেরই চোখ ছিল জয়ের দিকে। নেদারল্যান্ডসের রক্ষণভাগ শক্তিশালী হলেও সেনেগাল তাদের আক্রমণাত্মক খেলার জন্য পরিচিত। তবে তারকা স্ট্রাইকার ও অধিনায়ক সাদিও মানের অনুপস্থিতিতে সেনেগাল কেমন করে সেটাই দেখার বিষয় ছিল।

আরও পড়ুন… ১৫ মিনিট বন্ধ ইরান বনাম ইংল্যান্ড ম্যাচ, রক্তাক্ত ইরানের গোলরক্ষক

ম্যাচের ৮৪তম মিনিটে নেদারল্যান্ডস ম্যাচের প্রথম গোলটি করে। এর ফলে সেনেগালের বিরুদ্ধে ১-০ এগিয়ে যায় ডাচরা। পরে ডেভির গোলে ২-০ করে ডাচরা। তএদিন নেদারল্যান্ডসের বিরুদ্ধে আক্রমণাত্মক শুরু করেছিল আফ্রিকান চ্যাম্পিয়ন সেনেগাল। তারা প্রথম মিনিটে একটি দুর্দান্ত মুভ করেন এবং নেদারল্যান্ডসের বক্সে তাদের পথ খুঁজে পান। তবে গোল হয়নি। দ্বিতীয় মিনিটেই কর্নার পায় সেনেগাল। এই সুযোগটা কাজে লাগাতে পারেননি তারা।

সেনেগাল বনাম নেদারল্যান্ডসের ম্যাচের ১৫ মিনিট কেটে গেলেও দুটি দল একটিও গোল করতে পারেনি। তবে এর মধ্যে সেনেগাল গোলে দুটি শট এবং নেদারল্যান্ডস একটি শট নিয়েছিল। তবে উভয় দলের শট লক্ষ্যে যায়নি। শুরুর মিনিট থেকেই ম্যাচে চাপে রাখে সেনেগাল দল। তারা ম্যাচের ১৫ মিনিট পর্যন্ত নেদারল্যান্ডসকে খুব একটা সুযোগ দেয়নি। 

আরও পড়ুন… FIFA WC Qatar Beer Advertisement: বিশ্বকাপে বিয়ার নিষিদ্ধ করেও স্টেডিয়ামে মদের প্রচারের ‘ভুল’, কান লাল FIFA-র!

ম্যাচের ৪০ মিনিট খেলা হয়ে যাওয়ার পরেও কোনও দলই গোল করতে পারেনি। তবে তার মধ্যে সেনেগাল গোলের ছয়টি চেষ্টা করেছিল। এর মধ্যে মাত্র একটি টার্গেটই লক্ষ্যে ছিল। একই সঙ্গে নেদারল্যান্ডস করেছিল পাঁচটি শট। তবে তাদের একটি শটও লক্ষ্যে ছিল না। ৪০ মিনিট পর্যন্ত খেলায় নেদারল্যান্ডসের বল পজিশন ছিল ৫১ শতাংশ এবং সেনেগালের কাছে বল পজিশন ছিল ৪৯ শতাংশ। 

দ্বিতীয়ার্ধের খেলা শুরুর থেকেই নেদারল্যান্ডস ও সেনেগাল দুই দলই প্রথম গোলের দিকে তাকিয়ে ছিল। আফ্রিকান চ্যাম্পিয়ন সেনেগাল এখন পর্যন্ত ২০১০ বিশ্বকাপের ফাইনালিস্ট নেদারল্যান্ডসকে কঠিন লড়াই দিয়েছে। সেনেগাল ও নেদারল্যান্ডসের মধ্যকার ম্যাচের ৭০ মিনিট পর্যন্ত দুটি দলই একটি গোল করতে পারেনি। এখন পর্যন্ত নেদারল্যান্ডস দলকে কঠিন লড়াই দিয়েছিল সেনেগাল। ম্যাচের ৭০ মিনিট পর্যন্ত ৪৫ শতাংশ দখল তিনি নিজের কাছে রেখেছেন। নেদারল্যান্ডের দখলে আছে ৫৫ শতাংশ। 

সেনেগাল গোলের জন্য নয়টি এবং নেদারল্যান্ডস সাতটি প্রচেষ্টা করেছিল। আশ্চর্যের বিষয়, নেদারল্যান্ডসের একটি শটও লক্ষ্যে ছিল না। একইসঙ্গে সেনেগাল লক্ষ্যভেদ করেছিল দু’বার। তবে ম্যাচের ৮৪তম মিনিটে নেদারল্যান্ডসের হয়ে ম্যাচের প্রথম গোলটি করেন কোডি জাকপো। তিনি ফ্রাঙ্কি ডি জং-এর পাসে বল হেড করে পোস্টে নিয়ে যান। যখন নেদারল্যান্ডের সবচেয়ে বেশি একটি গোলের প্রয়োজন ছিল, তখন তাদের দলের বর্ষসেরা খেলোয়াড় হেডার দিয়ে বিস্ময়কর কাজ করলেন। এরপরে ম্যাচে ৮ মিনিটের অতিরিক্ত সময় দেওয়া হয়। ম্যাচের একেবারে শেষ মুহূর্তের অর্থাৎ ৯০+৯ মিনিটে সেনেগালের কফিনে শেষ পেরেকটি পোতেন ড্যাভি ক্লাসেন। শেষ পর্যন্ত ২-০ ব্যবধানে ম্যাচ জেতে নেদারল্যান্

বন্ধ করুন