বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > EURO 2020: টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে গিয়ে রণক্ষেত্র ফরাসি শিবির
পল পোগবা ও অ্যাড্রিয়ান ব়্যাবিও। ছবি- টুইটার।
পল পোগবা ও অ্যাড্রিয়ান ব়্যাবিও। ছবি- টুইটার।

EURO 2020: টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে গিয়ে রণক্ষেত্র ফরাসি শিবির

  • সুইজারল্যান্ড ম্যাচ চলাকালীনই মাঠের মধ্যে সংঘর্ষে জড়ান পোগবা, ভারান, পাভার্ডরা।

সুইজারল্যান্ডের বিরুদ্ধে পেনাল্টিতে হেরে ইউরোর প্রি-কোয়ার্টার ফাইনাল থেকেই বিদায় নিতে হয়েছে ফ্রান্সকে। টুর্নামেন্টের আগে থেকেই দলে ঝামেলার খবর শোনা যাচ্ছিল। এবারা সেই ঝামেলা মাঠ এবং ফুটবলার পেরিয়ে তাঁদের পরিবারের মধ্যেও ছড়িয়ে পড়ল।

ইউরো শুরুর আগেই ফরাসি দলের অন্তর্দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে চলে আসে। সাংবাদিক সম্মেলনে অলিভিয়ের জিরু সতীর্থ কিলিয়ান এমবাপের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দেন, পাল্টা দেন এমবাপেও। সুইজারল্যান্ডের বিরুদ্ধে মাঠেও রাফায়েল ভারান, পল পোগবা, বেঞ্জামিন পাভার্ড, অ্যাড্রিয়ান ব়্যাবিওয়ের মধ্যে বিরোধ চোখে পড়ে। সুইজারল্যান্ড ম্যাচে পোগবার ডিফেন্ডিং নিয়ে ক্ষুব্ধ হন ভারান। ম্যাচের শেষ মুহূর্তে সমতা ফেরানো সুইজারল্যান্ডের গোলের জন্য পোগবা এবং ব়্যাবিওয়ের মধ্যে মাঠেই গোল লেগে যায়।

ম্যাচ শেষ হতে হতে সেই ঝামেলার আঁচ পৌঁছায় স্ট্যান্ডে উপস্থিত তারকা ফুটবলারদের পরিবারের মধ্য়েও। রিপোর্ট অনুযায়ী ব়্যাবিওয়ের মা ভেরনিক এমবাপের বাবাকে উদ্দেশ্য করে তাঁর ছেলেকে আরও বিনয়ী হতে বলার উপদেশ দেন। পাশাপাশি এমবাপের পেনাল্টি মারা নিয়েও বিস্তর ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি। জবাবে এমবাপের বাবা এবং মা, উভয়ের সঙ্গেই তর্কাতর্কি বেধে যায়।

সুইজারল্যান্ডের বিরুদ্ধে পেনাল্টিতে হেরে ইউরোর প্রি-কোয়ার্টার ফাইনাল থেকেই বিদায় নিতে হয়েছে ফ্রান্সকে। টুর্নামেন্টের আগে থেকেই দলে ঝামেলার খবর শোনা যাচ্ছিল। এবারা সেই ঝামেলা মাঠ এবং ফুটবলার পেরিয়ে তাঁদের পরিবারের মধ্যেও ছড়িয়ে পড়ল।

ইউরো শুরুর আগেই ফরাসি দলের অন্তর্দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে চলে আসে। সাংবাদিক সম্মেলনে অলিভিয়ের জিরু সতীর্থ কিলিয়ান এমবাপের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দেন, পাল্টা দেন এমবাপেও। সুইজারল্যান্ডের বিরুদ্ধে মাঠেও রাফায়েল ভারান, পল পোগবা, বেঞ্জামিন পাভার্ড, অ্যাড্রিয়ান ব়্যাবিওয়ের মধ্যে বিরোধ চোখে পড়ে। সুইজারল্যান্ড ম্যাচে পোগবার ডিফেন্ডিং নিয়ে ক্ষুব্ধ হন ভারান। ম্যাচের শেষ মুহূর্তে সমতা ফেরানো সুইজারল্যান্ডের গোলের জন্য পোগবা এবং ব়্যাবিওয়ের মধ্যে মাঠেই গোল লেগে যায়।

ম্যাচ শেষ হতে হতে সেই ঝামেলার আঁচ পৌঁছায় স্ট্যান্ডে উপস্থিত তারকা ফুটবলারদের পরিবারের মধ্য়েও। রিপোর্ট অনুযায়ী ব়্যাবিওয়ের মা ভেরনিক এমবাপের বাবাকে উদ্দেশ্য করে তাঁর ছেলেকে আরও বিনয়ী হতে বলার উপদেশ দেন। পাশাপাশি এমবাপের পেনাল্টি মারা নিয়েও বিস্তর ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি। জবাবে এমবাপের বাবা এবং মা, উভয়ের সঙ্গেই তর্কাতর্কি বেধে যায়।|#+|

স্ট্যান্ডে এমবাপের  পরিবারের পাশেই বসে ছিলেন পোগবার মা এবং তাঁর দুই দাদা। তাঁদের উদ্দেশ্যে তৃতীয় গোলের জন্য পল পোগবাকে দায়ী করে বিস্তর কটুক্তিও করেন তিনি। এই প্রথম নয়, এর আগেও নিজের বিতর্কিত মন্তব্য এবং ব্যবহারের জন্য শিরোনামে আসেন ব়্যাবিও এবং তাঁর মা। ২০১৮ সালে বিশ্বকাপে সুযোগ না পেয়ে স্ট্যান্ড-বাইহিসাবে দলে থাকতে অস্বীকার করেন ব়্যাবিও। শোনা যায় তাঁর প্যারিস সাঁ-জাঁ ছাড়ার পিছনেও ছিলেন তাঁর এজেন্ট মা। এতদিন ধরে দলকে যে ঝামেলা থেকে দূরে রাখতে বদ্ধপরিকর ছিলেন ম্যানেজার দিদিয়ের দেশঁ, মাত্র একটি পরাজয় আবার দলে ফিরিয়ে আনল সেই ছবি।

বন্ধ করুন