বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > Euro 2020: দলের পাশে থাকতে অভিনব উপায় নিলেন ইউক্রেনের প্রধানমন্ত্রীর
ইউক্রেনের প্রধানমন্ত্রী ডেনিস স্মায়েল।
ইউক্রেনের প্রধানমন্ত্রী ডেনিস স্মায়েল।

Euro 2020: দলের পাশে থাকতে অভিনব উপায় নিলেন ইউক্রেনের প্রধানমন্ত্রীর

  • ১৭ বছর পর ইউরোর কোয়ার্টার ফাইনালে খেলবে ইউক্রেন। অথচ দেশের কেউ তাঁদের সমর্থনে গ্যালারি থেকে গলা ফাটাবেন না। কারণ একটাই। করোনার সংক্রমণের জেরে ইতালিতে লাল তালিকাভুক্ত ইউক্রেন।

ফের গোটা বিশ্ব জুড়েই করোনা সংক্রমণের মাত্রা বাড়ছে। গত বছর করোনা সংক্রমণে একেবারে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিল ইতালি। তবে করোনা আতঙ্ক ভুলে এই বছর ইতালি ইউরোর ম্যাচের আয়োজন করলেও, করোনা নিয়ে তারা খুব বেশি সতর্ক। যে কারণে শনিবার রোমে ইউরোর কোয়ার্টার ফাইনালে ইতালি বনাম ইউক্রেন মুখোমুখি হলেও, দর্শক প্রবেশ নিয়ে কড়া পদক্ষেপ করেছে ইতালি। ইংল্যান্ড সমর্থকদের ক্ষেত্রে কড়া নিয়ম জারি করা হয়েছে। আর ইতালির লাল তালিকাভুক্ত দেশ হিসেবে রয়েছে ইউক্রেন। তাই ও দেশ থেকে সমর্থক প্রবেশের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

ইংল্যান্ডের সমর্থকদের তাও করোনা টিকা নেওয়া থাকলে এবং কেউ পাঁচদিন কোয়ারেন্টাইনে থাকলে, সেই সঙ্গে করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট নিয়ে খেলার দেখার অনুমতি পেলেও পেতে পারেন। কিন্তু ইউক্রেনের মানুষেরা এই মুহূর্তে ইতালিতে প্রবেশ করতেই পারবেন না। তাই মন খারাপ ফুটবলারদেরও। ১৭ বছর পর তাঁরা ইউরোর কোয়ার্টার ফাইনালে খেলবেন, অথচ দেশের কেউ তাঁদের সমর্থনে গ্যালারি থেকে গলা ফাটাবেন না। তবে কাজের সূত্রে বা অন্য কোনও কারণে ইউক্রেনের কেউ যদি ইতালিতে এই মুহূূর্তে থাকেন, তাঁদের ম্যাচ দেখতে কোনও সমস্যা থাকবে না। তবে সেই সংখ্যাটা নেহাৎ-ই হাতেগোনা হবে।

দলের জার্সিতে ইউক্রেনের মন্ত্রীরা।
দলের জার্সিতে ইউক্রেনের মন্ত্রীরা।

এই পরিস্থিতিতে ফুটবলারদের মানসিক ভাবে অনুপ্রাণিত করতে এবং দেশের মানুষদের উৎসাহিত করতে  এক অভিনব উপায় বের করেছেন ইউক্রেনের প্রধানমন্ত্রী ডেনিস স্মায়েল। বৃহস্পতিবার তাঁর ক্যাবিনেটের সব মন্ত্রীরাই দলের জার্সি পরেই যাবতীয় কাজ করেন। প্রধানমন্ত্রী নিজেও ক্যাবিনেট বৈঠকে ইউক্রেনের তারকা প্লেয়ার আন্দ্রি ইয়ারমোলেঙ্কোর সাত নম্বর জার্সি পরে অংশ নিয়েছিলেন। এমন কী মন্ত্রীদের বৈঠকেও ফুটবল নিয়ে আলোচনা চলে বহুক্ষণ।

আসলে ইউক্রেনের কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছানোটা বড় বিষয় দেশের কাছে। আর ইউক্রেনের এই সাফল্যের আসল কারিগর হিসেবে কোচ আন্দ্রে শেভচেঙ্কোর প্রশংসায় পঞ্চমুখ প্রধানমন্ত্রী। মন্ত্রীরা প্রত্যেকেই দলের সাফল্য উজ্জীবিত। দলের পাশে থাকার এই অভিনব বার্তা নিঃসন্দেহে অনুপ্রেরণা দেবে শেভচেঙ্কো বাহিনীকে। ইউক্রেনের মন্ত্রীদের দেশের জার্সি পরে বৈঠক করার ছবি ইতিমধ্যেই আলোড়ন ফেলে দিয়েছে। দেখার মন্ত্রীদের এই উদ্যোগ কতটা তাতাতে পারে দেশের ফুটবলারদের।

বন্ধ করুন