বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবলের মহারণ > জয় আমাদের প্রাপ্য ছিল না- নিজের ফুটবলারদের মান নিয়ে প্রশ্ন তুললেন কনস্ট্যান্টাইন

জয় আমাদের প্রাপ্য ছিল না- নিজের ফুটবলারদের মান নিয়ে প্রশ্ন তুললেন কনস্ট্যান্টাইন

নওরেম মহেশের সঙ্গে ইস্টবেঙ্গল এফসি-র ব্রিটিশ কোচ স্টিফেন কনস্ট্যান্টাইন (ছবি-ইস্টবেঙ্গল টুইটার)

ইস্টবেঙ্গল এফসি-র ব্রিটিশ কোচ স্টিফেন কনস্ট্যান্টাইন স্বীকার করে নিয়েছেন যে শনিবার যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে তাঁর দল কলকাতার ডার্বিতে জেতার মতো ফুটবল খেলেনি। চলতি হিরো আইএসএলের ফিরতি ডার্বিতে ০-২ হারের পর স্বাভাবিক ভাবেই হতাশ কোচ স্টিফেন কনস্ট্যান্টাইন।

ইস্টবেঙ্গল এফসি-র ব্রিটিশ কোচ স্টিফেন কনস্ট্যান্টাইন স্বীকার করে নিয়েছেন যে শনিবার যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে তাঁর দল কলকাতার ডার্বিতে জেতার মতো ফুটবল খেলেনি। চলতি হিরো আইএসএলের ফিরতি ডার্বিতে ০-২ হারের পর স্বাভাবিক ভাবেই হতাশ কোচ স্টিফেন কনস্ট্যান্টাইন। গত কয়েক সপ্তাহে কেরালা ব্লাস্টার্স, মুম্বই সিটি এফসি-কে হারানোর পরে সমর্থকেরা লাল হলুদের ফুটবলার ও কোচকে নিয়ে যতটা আশা করেছিল, শনিবারের ডার্বিতে সেই প্রত্যাশা কোনও ভাবেই পূরণ করতে পারেননি স্টিফেন কনস্ট্যান্টাইনের ছেলেরা।

ম্যাচের ৬৮ মিনিটের মাথায় সার্বিয়ান ডিফেন্ডার স্লাভকো দামিয়ানোভিচ ও ম্যাচের নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে দিমিত্রি পেত্রাতোসের সুযোগসন্ধানী গোলে ম্যাচ জিতে নেয় এটিকে মোহনবাগান। এই জয়ের ফলে তিন নম্বরে থেকে লিগ শেষ করল এটিকে মোহনবাগান। সুতরাং, নক আউটের প্রথম ম্যাচে তাদের ঘরের মাঠে ওডিশা এফসি-র বিরুদ্ধে খেলতে হবে। এই নিয়ে হিরো আইএসএলে টানা ছ’টি ডার্বিতে জয় পেল এটিকে মোহনবাগান। অন্যদিকে আইএসএলের ছ’নম্বর ডার্বি হারের পর প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন কনস্ট্যান্টাইন। টানা ৮টি কলকাতা ডার্বি জিতল এটিকে মোহনবাগান। ইস্টবেঙ্গল সমর্থকরা এদিনের ডার্বি বয়কটের ডাক দিয়েছিলেন। লাল-হলুদ জনতার জন্য নির্দিষ্ট গ্যালারির বেশিরভাগ অংশই ফাঁকা ছিল। এরই মধ্যে যাঁরা ম্যাচ দেখতে গিয়েছিলেন, তাঁদের হতাশ হয়েই ফিরতে হয়েছিল।

আরও পড়ুন… দাপটের সঙ্গে শনিবারের ডার্বি জিতেও খুশি নন এটিকে মোহনবাগানের কোচ জুয়ান ফেরান্দো

ম্যাচের পরে সাংবাদিক সম্মেলনে এসে ইস্টবেঙ্গল এফসি-র ব্রিটিশ কোচ স্টিফেন কনস্ট্যান্টাইন বলেন, ‘প্রথমার্ধে আমরা ভালো খেলেছি। দ্বিতীয়ার্ধে রেফারির একাধিক ভুল সিদ্ধান্ত আমাদের বিরুদ্ধে যায়। এই ধরনের ম্যাচে এই ধরনের ভুল হলে বড় ক্ষতি হয়। আমাদেরও ক্ষতি হল। প্রথমার্ধের মতো ভালো আমরা দ্বিতীয়ার্ধে খেলতে পারিনি। কিন্তু আমরা যদি একটা পেনাল্টি পেতাম আর ক্লেটন যদি তা থেকে একটা গোল করত, তা হলে ম্যাচের ছবিটাই বদলে যেত। তবে এটা ঠিকই যে, জেতার মতো খেলিনি আমরা। জয় আমাদের প্রাপ্য ছিল না।’

ব্যর্থতার কারণ প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে ইস্টবেঙ্গল এফসি-র ব্রিটিশ কোচ স্টিফেন কনস্ট্যান্টাইন বলেন, ‘গত সপ্তাহের ম্যাচে আমরা প্রথম পরিবর্ত খেলোয়াড় নামিয়েছিলাম ৮৫ মিনিটে। হয়তো অনেকে মনে করবে, আমাদের ফিটনেস সমস্যা রয়েছে। আসলে সমস্যাটা হল মানের। আমরা পাঁচ লক্ষ ডলারে পাঁচজন বিদেশি এনেছি। ওরা একজন বিদেশিকে আনতে ওই অর্থ ব্যয় করেছে। ওদের যথেষ্ট উঁচু মানের ফুটবলার রয়েছে। আমাদের সেই মানের খেলোয়াড় নেই। তবু আমাদের ছেলেরা অনেক চেষ্টা করেছে। শেষ মুহূর্তে দল গড়লে তেমন ভালো খেলোয়াড় পাওয়া যায় না। তবু বলব, জন (ও’ডোহার্টি), হ্যারি (কিরিয়াকু), ইভান (গঞ্জালেস) পুরোপুরি সন্তুষ্ট করতে পারেনি, লিমা ভালো খেলেছে, কিন্তু যতটা ভালো ও খেলতে পারে, ততটা নয়। কিন্তু দলের সাতজন ভারতীয়, যারা দলকে চালায়, তারা যদি ভালো না হয়, তা হলে এ রকমই অবস্থা হওয়ার কথা।’

আরও পড়ুন… গোল করে কেন ইস্টবেঙ্গল গ্যালারির দিকে দৌড়ে ছিলেন? সমর্থকদের কাছে ক্ষমা চাইলেন পেত্রাতোস

আসন্ন সুপার কাপ প্রসঙ্গে লাল হলুদ কোচ বলেন, ‘সুপার কাপের আগে একাধিক খেলোয়াড়কে নিতে পারতাম আমরা। সেই উপায় ছিল। কথাবার্তা হয়েছিল কয়েকজনের সঙ্গে। নাম বলতে পারব না। তবে ওরা এলে দলের পারফরম্যান্স বদলে দিতে পারত। কিন্তু ওদের আনার মতো অর্থ আমার নিজের কাছে নেই। সুপার কাপে আমাদের এই একই দল নিয়ে নামতে হবে ঠিকই। কিন্তু গত তিন-চারটি ম্যাচে আমরা বেশ ভাল খেলেছি। মুম্বই, কেরালার বিরুদ্ধে যথেষ্ট ভাল পারফরম্যান্স দেখাতে পেরেছি। নর্থইস্টকে ধ্বংস করে দিতে পারতাম। আশা করি, এ রকম পারফরম্যান্স থাকলে সুপার কাপে আমরা ভাল কিছু করতে পারব।’

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

বন্ধ করুন