বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > মোহনবাগানের সভাপতি কে হবেন? উঠল সুব্রত ভট্টাচার্যের নাম, ATK হটাও দাবি প্রসূনেরও
সুব্রত ভট্টাচার্য।
সুব্রত ভট্টাচার্য।

মোহনবাগানের সভাপতি কে হবেন? উঠল সুব্রত ভট্টাচার্যের নাম, ATK হটাও দাবি প্রসূনেরও

  • মোহনবাগানের সভাপতির নাম নিয়ে মতানৈক্য রয়েছে কর্তাদের মধ্যে। এরই মাঝে সবুজ-মেরুনের প্রাক্তনী পেশ করলেন সুব্রত ভট্টাচার্য়ের নাম। তাঁর মতে, মোহনবাগান অন্ত প্রাণ সুব্রতকে প্রেসিডেন্ট করা হলে আরও ১০ হাজার লোক খেলা দেখতে আসবে।

মোহনবাগানের সভাপতি কে হবেন, তা নিয়ে জল্পনার অন্ত নেই। এই প্রেসিডেন্ট ঠিক করা নিয়ে এক প্রস্ত ঝামেলাও হয়ে গিয়েছে সবুজ-মেরুন কর্তাদের মধ্যে। কবে যে প্রেসিডেন্টের নাম ঠিক হবে, তা নিয়ে সংশয় রয়েছ। কারণ কর্তারা সকলে মিলে এক মত হতে পারছেন না। এরই মাঝে বাগানের প্রাক্তনী প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি তুলেছেন, সবুজ-মেরুনের প্রেসিডেন্ট করা হোক ঘরের ছেলে সুব্রত ভট্টাচার্যকে।

বুধবার প্রসূন এক সাংবাদিক সম্মেলনে বলেছেন, ‘আমি চোখ বুজে বলছি সুব্রত ভট্টাচার্যকে সভাপতি করা হোক। ছোটবেলা থেকে খেলেছি। ও মোহনবাগান অন্ত প্রাণ। ভাল মানুষ। খেলা পাগল। কোনও রাজনৈতিক দলে নেই। ওকে সভাপতি করলে আরও ১০ হাজার লোক খেলা দেখতে আসবে।’

সেই সঙ্গে মোহনবাগান নামের সামনে থেকে এটিকে সরানোরও দাবি তুলেছেন প্রাক্তন ফুটবলার। তাঁর মতে, ‘মোহনবাগানের সামনে এটিকে লেখা চলবে না। অন্য কিছু লিখুক। এটিকে কেন? তবে স্পনসর লাগবেই। আমাদের সময় হাতে পাঁচ টাকা দিলে আনন্দ করতে করতে খেলতে নেমে পড়তাম। এখন সেটা সম্ভব নয়।’

অক্টোবর মাসে ১৫ দিন কলকাতা ময়দানে কোনও ক্লাবের কাজ হয় না। ওই সময় সেনার হাতে চলে যায় কলকাতা ময়দান। ১ থেকে ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত বন্ধ থাকে ময়দান। প্রতি বছর এমন যাতে না করা হয় সেই বিষয়ে প্রসূন আবেদন করেছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহের কাছে। তার উত্তরে রাজনাথ একটি চিঠি দিয়ে লেখেন, ‘স্বাধীনতার আগে থেকে এমনটা হয়ে আসছে। ময়দানের সবুজ বজায় রাখার জন্য এটা প্রয়োজনীয়। মাত্র ১৫ দিন খেলা বন্ধ থাকে। এটা কোনও ভাবেই খেলার বিষয়ে আমরা অনুৎসাহী, এটা প্রমাণ করে না।’

বন্ধ করুন