বাংলা নিউজ > ময়দান > আধিকারিকদের বিরুদ্ধে প্রাক্তন অনুর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেটারের ধর্ষণের অভিযোগে উত্তাল অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট
প্রাক্তন অস্ট্রেলিয়ান অনুর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেটার জেমি মিচেল। ছবি- টুইটার।

আধিকারিকদের বিরুদ্ধে প্রাক্তন অনুর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেটারের ধর্ষণের অভিযোগে উত্তাল অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট

  • ১৯৮৫ সালে শ্রীলঙ্কা সফরে তাঁকে ধর্যণ করা হয় বলে অভিযোগ জানান ভিক্টোরিয়াজাত প্রাক্তন অজি অনুর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেটার।

অ্যাসেজ টেস্ট শুরু হওয়ার আগেই টেস্ট অধিনায়ক টিম পেইনের যৌন কেলেঙ্কারিতে নাম জড়ানোয় বেশ অস্বস্তিতে পড়েছিল ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। সেই ঘটনার মাস ঘুরতে না ঘুরতেই ফের যৌন কেলেঙ্কারিতে নাম জড়াল অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটের। জেমি মিচেল নামে এক প্রাক্তন অনুর্ধ্ব-১৯ অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার তাঁকে ধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ জানান।

১৯৮০-র দশকে ভারত এবং শ্রীলঙ্কার সফরে অস্ট্রেলিয়ার অনুর্ধ্ব-১৯ দলের সদস্য ছিলেন ভিক্টোরিয়ার জেমি মিচেল। ১৯৮৫ সালে সেই সফরের শেষ রাতে দলের আধিকারিকরা তাঁকে ধর্যণ করে বলে অস্ট্রেলিয়ান ব্রডকাস্টারক ABC-কে এক সাক্ষাৎকারে জানান মিচেল। উকিলের মাধ্যমে এক বিবৃতিতে মিচেল বলেন, ‘ওই সফরটা আমার জীবনের এক স্মরণীয় স্মৃতি হওয়ার বদলে আমার জীবনে চিরকালের এক দুঃস্বপ্ন হয়ে রয়েছে। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সুযোগ ছিল এই গোটা বিষয়টা যাচাই করে সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার। আমি স্বচ্ছতা চাই এবং ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া আমার প্রশ্নের জবাব দিক সেটাই কাম্য।’

ABC-র রিপোর্টে সেই সফরে অনুর্ধ্ব-১৯ দলের ডাক্তার ম্যালকম ম্য়াকেঞ্জি, টিম ম্যানেজার জ্যাক বেনেট এবং কোচ বব বিটমেডের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানান মিচেল। সেই সফরে অজি দলের অধিনায়ক অধিনায়ক ডিন রেনল্ডসসহ একাধিক ক্রিকেটার বিটমেডের চরিত্র নিয়ে অভিযোগ জানান। সেই সফরের অংশ একাধিক অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার বিটমেডকে বিভিন্ন সময়ে একাধিক বালকের সঙ্গে আপত্তিজনক অবস্থায় দেখার কথা জানান। তবে গোটা বিষয়টাই বিটমেড নাকচ করে দিয়েছেন।

কিন্তু বিটমেডের নাকচ করে দেওয়াতেই বিতর্ক থেমে যায়নি। গোটা বিষয়ে পুলিশি তদন্ত শুরু হয়েছে এবং ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার তরফে পূর্ণ সহযোগিতার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার গভর্নিং বডির তরফে এক বিবৃতিতে জানানো হয়, ‘আমরা এই ঘটনার বিষয়ে অভিযোগ জানিয়ে মিচেলের এগিয়ে আসার সাহসী সিদ্ধান্তকে কুর্নিশ জানাই।’ উক্ত ঘটনার পর তেমনভাবে আর কোনোদিনই ক্রিকেটের ময়দানে দাগ কাটতে পারেননি মিচেল। এমনকী তাঁর দাদা জানান, নিজের সন্তানদেরও ক্রিকেট খেলায় বিন্দুমাত্র উৎসাহ দেওয়া তো দূর, বদলে তাদের বরাবর বাধাই দিয়েছেন মিচেল।

বন্ধ করুন