বাংলা নিউজ > ময়দান > BCCI এবং কোহলির মধ্যে বোঝাপড়ার অভাব রয়েছে, দাবি সন্দীপ পাটিলের
সন্দীপ পাটিল এবং বিরাট কোহলি।
সন্দীপ পাটিল এবং বিরাট কোহলি।

BCCI এবং কোহলির মধ্যে বোঝাপড়ার অভাব রয়েছে, দাবি সন্দীপ পাটিলের

  • সন্দীপ পাটিল বলেন, দীর্ঘদিন ধরে তিন ফর্ম্যাটে টানা অধিনায়কত্ব করাটা অত্যন্ত কঠিন কাজ। এই চাপ মানসিক ভাবে এবং শারীরিক ভাবে যে কোনও ক্রিকেটারের উপর প্রভাব ফেলতেই পারে। বিরাট তাঁর ব্যতিক্রম নন। এই সিদ্ধান্তের ফলে বিরাট আরও বেশি করে নিজের ব্যাটিংয়ে মনোনিবেশ করতে পারবেন।

শুভব্রত মুখার্জি : কয়েক দিন আগেই বিরাট কোহলি টি-২০ ফর্ম্যাটে ভারতের অধিনায়কত্ব ছাড়ার কথা ঘোষণা করেন। আসন্ন টি-২০ বিশ্বকাপ শেষ হলেই তিনি ছাড়বেন টি-২০'র অধিনায়কত্ব। বিরাট  জানান যে, তিনি হেড কোচ রবি শাস্ত্রী এবং দলের ওপেনিং ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মার সঙ্গে কথা বলে, তবেই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এর পরেই বিতর্ক দানা বাঁধে, তা হলে কি বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় এই সিদ্ধান্তের কথা জানতেন না? এই বিষয়ে মুখ খুলতে গিয়েই প্রাক্তন ভারতীয় বিশ্বকাপজয়ী ক্রিকেটার সন্দীপ পাটিল‌ মনে করেন বিসিসিআই এবং বিরাট কোহলির মধ্যে বোঝাপড়ার অভাব রয়েছে।

সর্বভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমকে সাক্ষাৎকারে পাটিল বলেন, দীর্ঘদিন ধরে তিন ফর্ম্যাটে টানা অধিনায়কত্ব করাটা অত্যন্ত কঠিন কাজ। এই চাপ মানসিক ভাবে এবং শারীরিক ভাবে যে কোনও ক্রিকেটারের উপর প্রভাব ফেলতেই পারে। বিরাট তাঁর ব্যতিক্রম নন। এই সিদ্ধান্তের ফলে বিরাট আরও বেশি করে নিজের ব্যাটিংয়ে মনোনিবেশ করতে পারবেন বলেই সন্দীপ পাটিলের মত।

সন্দীপ পাটিলের দাবি, ‘আমি বিরাটের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাই। অধিনায়কত্ব সব সময় মাথার মধ্যে কাজ করতে থাকে। একই সময়ে ব্যাটিং করা এবং অধিনায়কত্ব করা মোটেও সহজ কাজ নয়। আর আজকের দিনে দাঁড়িয়ে জিনিসটা খুব সমস্যার। কারণ আজকের দিনে দাঁড়িয়ে অনেক বেশি ক্রিকেট খেলা হয়। এই সিদ্ধান্ত বিরাটকে ওর ব্যাটিংয়ে মনোনিবেশ করতে সাহায্য করবে।’

তিনি আর ও যোগ করেন, ‘আমার মনে হচ্ছে বোঝাপড়ার অভাব রয়েছে বিসিসিআই এবং বিরাট কোহলির মধ্যে। বিরাট এক রকম বলছে আর বিসিসিআই এক রকম বলছে এটা হতে পারে না। আমার মনে আছে, কয়েক দিন আগেই বিরাট যে সাদা বলের ক্রিকেটে অধিনায়কত্ব ছাড়তে পারে এমন একটি রিপোর্ট সংবাদমাধ্যম করেছিল, যা বিসিসিআইয়ের ট্রেজারার অরুণ ধুমাল উড়িয়ে দিয়েছিলেন। যার কয়েক দিন পরেই ঘটনাটা বাস্তবে ঘটল।’

বন্ধ করুন