বাংলা নিউজ > ময়দান > সচিনের ‘সেরা ইনিংস’ নিয়ে ইনজামাম জানালেন, ওকে আগে কখনও ওভাবে ব্যাট করতে দেখিনি
সচিন তেন্ডুলকর ও বীরেন্দ্র সেহওয়াগ। ছবি- টুইটার।
সচিন তেন্ডুলকর ও বীরেন্দ্র সেহওয়াগ। ছবি- টুইটার।

সচিনের ‘সেরা ইনিংস’ নিয়ে ইনজামাম জানালেন, ওকে আগে কখনও ওভাবে ব্যাট করতে দেখিনি

  • অশ্বিনের সঙ্গে আলোচনায় প্রাক্তন পাক অধিনায়ক জানান, তাঁর দেখা তেন্ডুলকরের সেরা ইনিংস কোনটি।

হতে পারে সচিন তেন্ডুলকরের ঝুলিতে ১০০ অন্তর্জাতিক সেঞ্চুরি রয়েছে। যার মধ্যে পাকিস্তানের বিরুদ্ধেই মাস্টার ব্লাস্টার ৭টি শতরান করেছেন। তবে এগুলির মধ্যে কোনওটিই পাক কিংবদন্তি ইনজামাম-উল-হকের চোখে সচিনের সেরা ইনিংস নয়। বরং ইনজি মনে করেন যে, ২০০৩ বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে খেলা সচিনের ইনিংসটিই তাঁর দেখা সেরা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় রবিচন্দ্রন অশ্বিন ইনজামামকে প্রশ্ন করেন সেঞ্চুরিয়নে সচিনের সেই ইনিংসটি নিয়ে। যার প্রেক্ষিতেই ইনজামাম জানান যে, তিনি আগে কখনও তেন্ডুলকরকে এমন ব্যাট করতে দেখেননি।

ইউটিউব শো 'ডিআরএস উইথ অ্যাশ' অনুষ্ঠানে অশ্বিন বলেন, ‘আমি সচিন পাজি'কেও এই প্রশ্নটা করেছিলাম। আমি আপনাকেও একই কথা জিজ্ঞাসা করছি। ২০০৩ বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ ছিল। পাকিস্তান প্রথমে ব্যাট করে বড় রানের ইনিংস গড়ে তোলে। আনোয়ার সেঞ্চুরি করেন। তবে তার পর সেহওয়াগ আর সচিন পাজি দারুণ খেলে এবং ভারত ম্যাচটা জিতে যায়। ম্যাচের মাঝে আপনার কি মনে হয়েছিল যে, ভারতকে হারানোর পক্ষে যথেষ্ট ছিল পাকিস্তানের ইনিংস? নাকি কম মনে হয়েছিল?'

জবাবে ইনজামাম বলেন, ‘দক্ষিণ আফ্রিকার সেঞ্চুরিয়নে ম্যাচ। পরিবেশ পেসারদের অনুকূল ছিল। আমাদের দলে ওয়াসিম আক্রম, ওয়াকার ইউনিস, শোয়েব আখতারের মতো বোলার ছিল। সুতরাং আমরা ভেবেছিলাম যে, জয়ের জন্য আমাদের হাতে যথেষ্ট রান রয়েছে।’

পরক্ষণেই ইনজামাম স্বীকার করে নেন যে, সচিনের ৭৫ বলে ৯৮ রানের ইনিংসটিই তাঁদের কাছ থেকে ম্যাচ ছিনিয়ে নিয়ে যায়। ইনজির কথায়, ‘আমি বহুবার সচিনকে ব্যাট করতে দেখেছি। তবে সেই ম্যাচে সচিন যেভাবে ব্যাট করে, আগে কখনও ওকে ওরকম ব্যাট করতে দেখিনি। ওরকম পরিবেশে আমাদের পেসারদের যেভাবে সামলায় ও, এককথায় অসাধারণ।’

শেষে ইনজি বলেন, ‘আমি মনে করি যে, ওটাই সচিনের সেরা ইনিংস ছিল। ও সব চাপ ভেঙে চুরমার করে দেয়। আমাদের যথাযথ পেসারদের বিরুদ্ধে ও টপ কোয়ালিটির ইনিংস খেলে। যেভাবে বাউন্ডারি মারে ও, পরের ব্যাটসম্যানদের উপর থেকে চাপটা হালকা হয়ে যায়।’

উল্লেখ্য, সেঞ্চুরিয়নে পাকিস্তান প্রথমে ব্যাট করে ৭ উইকেটের বিনিময়ে ২৭৩ রান তোলে। আনোয়ার ১০১ রান করেন। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ভারত ৪৫.৪ ওভারে ৪ উইকেটের বিনিময়ে ২৭৬ রান তুলে ম্যাচ জিতে জায়। সচিন ১২টি চার ও ১টি ছক্কার সাহায্যে ৭৫ বলে ৯৮ রান করে ম্যাচের সেরা হন।

বন্ধ করুন