বাংলা নিউজ > ময়দান > ভারতীয় ক্রিকেটের ভূয়সী প্রশংসাতেই পাকিস্তানের ক্রিকেট নিয়ে আক্ষেপ ঝরে পড়ল আকমলের গলায়
কামরান আকমল। ছবি- গেটি।
কামরান আকমল। ছবি- গেটি।

ভারতীয় ক্রিকেটের ভূয়সী প্রশংসাতেই পাকিস্তানের ক্রিকেট নিয়ে আক্ষেপ ঝরে পড়ল আকমলের গলায়

  • ভারতের প্রাক্তন তারকাদের কৃতিত্ব দিতেও ভোলেননি পাক উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে টিম ইন্ডিয়ার বর্তমান আধিপত্যের পিছনে ভারতীয় ক্রিকেটের পরিকাঠামোকেই কৃতিত্ব দিলেন প্রাক্তন পাক তারকা কামরান আকমল। ভারতীয় ক্রিকেটের মাইন্ডসেটটাই যে এই উন্নতির জন্য প্রধান কারণ, সেদিকেই ইঙ্গিত করেন পাক তারকা। ভারতীয় ক্রিকেটের এই অভাবনীয় উন্নতির জন্য তিনি শুধু আইপিএলকে কৃতিত্ব দিতে চাইলেন না। বরং একটা সুনির্দিষ্ট পথে ঘরোয়া ক্রিকেটকে পরিচালনা করার সুফল বলে মনে হয়েছে তাঁর।

নিজের ইউটিউব চ্যানেলে ভারতীয় ক্রিকেট নিয়ে আলোচনার সময় আকমল বলেন, ‘ভারত কখনও লাল বলের ক্রিকেটের সঙ্গে আপোষ করেনি। স্কুল ক্রিকেটেও ওদের দু’দিনের, তিন দিনের ম্যাচ খেলা হয়। ভারতের হাতে এখন ৫০ জন ক্রিকেটারের পুল রয়েছে, তার প্রধান কারণ ওরা টেস্ট ক্রিকেটকে যথাযথ গুরুত্ব দিয়েছে। ধোনি ছাড়া সব কিংবদন্তি ক্রিকেটাররা টেস্ট ম্যাচ খেলেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছে। এতেই ওদের লক্ষ সম্পর্কে একটা ইঙ্গিত পাওয়া যায়। বোঝ যায়, ওরা কীভাবে দল তৈরি করে। কীভাবে ক্রিকেটারদের আন্তর্জাতিক সিস্টেমে নিয়ে আসে।'

আকমল আরও বলেন, ‘ওদের লিস্ট-এ প্লেয়াররা ৪০-৫০টা ম্যাচ খেলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আসে। সূর্যকুমার যাদবের কথাই ধরা যাক, দীর্ঘদিন অপেক্ষার পর অবশেষে জাতীয় দলে সুযোগ পেয়েছে। বেশিরভাগ ক্রিকেটাররা অন্তত ৪-৫ বছর ঘরোয়া ক্রিকেট খেলার পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সুযোগ পায়। সুতরাং, ওরা যখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে নামে, তখন ওদের যথেষ্ট পরিণত দেখায়।’

শেষে আকমল বলেন, ‘ভারতীয় ক্রিকেটের মাইন্ডসেটটাই প্রশংসনীয়। ৯০-এর দশকের সব কিংবদন্তির দিকে তাকালেই বোঝা যাবে। দ্রাবিড় থেকে শুরু করে কুম্বলে, লক্ষ্মণরা প্রত্যেকেই কোনও না কোনওভাবে ভারতীয় ক্রিকেটের সঙ্গে যুক্ত। এটাই হল নতুন প্রজন্মকে যথাযথ সাহায্য করা।’

আসলে ভারতীয় ক্রিকেটের এমন ভূয়সী প্রশংসাতেই পাকিস্তান ক্রিকেট নিয়ে আক্ষেপ ঝরে পড়ল প্রাক্তন পাক তারকার গলায়।

বন্ধ করুন