বাংলা নিউজ > ময়দান > অবশেষে বর্ণবৈষম্যের অভিযোগ থেকে ক্লিনচিট পেলেন গ্রেম স্মিথ
বর্ণবাদ প্রসঙ্গে বিপদে গ্রেম স্মিথ
বর্ণবাদ প্রসঙ্গে বিপদে গ্রেম স্মিথ

অবশেষে বর্ণবৈষম্যের অভিযোগ থেকে ক্লিনচিট পেলেন গ্রেম স্মিথ

  • জাস্টিস অ্যান্ড নেশন বিল্ডিং (এসজেএন) বিভাগ বোর্ড দক্ষিণ আফ্রিকার বেশ কিছু প্রাক্তন ক্রিকেটারে বিরুদ্ধে বর্ণবাদের প্রশ্ন তুলেছিল। সেই তালিকায় ছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার কোচ মার্ক বাউচার এবং প্রাক্তন অধিনায়ক এবি ডি’ভিলিয়ার্স ও দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ডের শীর্ষকর্তা গ্রেম স্মিথ।

জাস্টিস অ্যান্ড নেশন বিল্ডিং (এসজেএন) বিভাগ বোর্ড দক্ষিণ আফ্রিকার বেশ কিছু প্রাক্তন ক্রিকেটারে বিরুদ্ধে বর্ণবাদের প্রশ্ন তুলেছিল। সেই তালিকায় ছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার কোচ মার্ক বাউচার এবং প্রাক্তন অধিনায়ক এবি ডি’ভিলিয়ার্স ও দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ডের শীর্ষকর্তা গ্রেম স্মিথ। তবে এবার সেই অভিযু্ক্তে থেকে রেহাই পেলেন গ্রেম স্মিথ।বোর্ডের সোশ্যাল জাস্টিস অ্যান্ড নেশন-বিল্ডিং (এসজেএন) কমিশনের একটি প্রতিবেদনের সমাপ্তির পর বর্ণবাদের অভিযোগ থেকে ক্লিনচিট পেয়েছেন ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকার (সিএসএ) প্রাক্তন পরিচালক ও অধিনায়ক গ্রেম স্মিথ।

ডুমিসা এনটাসেবেজার নেতৃত্বাধীন এসজেএন কমিশন গত বছরের ডিসেম্বরে তার ২৩৫ পৃষ্ঠার প্রতিবেদনে গ্রেম স্মিথ ও বর্তমান প্রধান কোচ মার্ক বাউচার এবং প্রাক্তন অধিনায়ক এবি ডি’ভিলিয়ার্সকে জাতিগত বৈষম্যের সাথে জড়িতদের মধ্যে অভিযুক্ত করেছিল। লোকপালের এসজেএন রিপোর্টে বৈষম্য ও বর্ণবাদের অভিযোগে বেশ কিছু‘অস্থায়ী সিদ্ধান্তে’ এসেছে। যাইহোক, ন্যায়পাল ইঙ্গিত দিয়েছিলেন যে তিনি ‘নির্ধারিত ফলাফল’ দেওয়ার অবস্থানে ছিলেন না এবং আরও তদন্ত শুরু করার সুপারিশ করেছিলেন। এর পরেই সিএসএ আনুষ্ঠানিক তদন্ত শুরু করে। প্রতিবেদনে অভিযোগ করা হয়েছে যে স্মিথ কৃষ্ণাঙ্গ খেলোয়াড়দের জাতীয় দলে নির্বাচন না করে তাদের প্রতি বৈষম্য করেছেন।

দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ডের তরফ থেকে প্রকাশিত বিবৃতিতে সভাপতি লাওসন নাইডু বলেন, ‘সমস্ত প্রক্রিয়ার শেষে স্মিথ নির্দোষ প্রমাণিত হয়েছে। এখন দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেটে ওর অবদানকে স্বীকৃতি দেওয়া প্রয়োজন। দীর্ঘকাল ধরে প্রোটিয় টেস্ট দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার নজির গড়েছে স্মিথ। ২০১৯ সাল থেকে ২০২২ সাল অবধি দক্ষিণ আফ্রিকার ডিরেক্টর অফ ক্রিকেট হিসাবেও স্মিথ দারুণ কাজ করেছে। স্মিথ তার ভবিষ্যত উত্তরসূরির জন্যে শক্ত ভিত গড়েছে।’

দক্ষিণ আফ্রিকার প্রাক্তন উইকেটরক্ষক ব্যাটার ও বর্তমান কোচ মার্ক বাউচারের বিরুদ্ধে বর্ণবিদ্বেষের অভিযোগ এনেছিলেন তার প্রাক্তন সতীর্থ পল অ্যাডামস। প্রাক্তন সহকারী কোচ এনোক এনকোউই’ও বাউচারের বিরুদ্ধে বৈষম্যমূলক আচরণের অভিযোগ এনেছিলেন। বাউচার দুটো অভিযোগই অস্বীকার করেছিলেন। আগামী মাসে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট সংস্থার একটি প্যানেলের মুখোমুখি হবেন বাউচার।

বন্ধ করুন