বাংলা নিউজ > ময়দান > নেটদুনিয়াকে অস্ত্র করে সদূর ইংল্যান্ড থেকে ভারতের কোভিড-যুদ্ধে সামিল হনুমাও
হনুমা বিহারী।
হনুমা বিহারী।

নেটদুনিয়াকে অস্ত্র করে সদূর ইংল্যান্ড থেকে ভারতের কোভিড-যুদ্ধে সামিল হনুমাও

  • আইপিএলে সুযোগ না পেয়ে ইংল্যান্ড চলে গিয়েছিলেন হনুমা। ওখানে কাউন্টি খেলে নিজেকে তৈরি করেছেন তিনি। ৩ জুন ভারতীয় দল ইংল্যান্ড পৌঁছলে তাদের সঙ্গে সরাসরি যোগ দেবেন হনুমা।

এই মুহূর্তে তিনি দেশে নেই। কাউন্টি খেলার জন্য ইংল্যান্ডে গিয়েছিলেন। ওখানেই রয়েছেন এখনও। কিন্তু করোনার জেরে ভারতের শােচনীয় অবস্থা দেখে তিনি যন্ত্রণায় দগ্ধ হচ্ছেন। ভারতের পাশে দাঁড়াতে এক অভিনব পন্থা খুঁজে নিয়েছেন হনুমা বিহারী। আর এর জন্য তিনি তাঁর টুইটার অ্যাকাউন্টকে কাজে লাগাচ্ছেন। কী ভাবে?

টুইটারে প্রায় ১ লক্ষ ১০ হাজারের বেশি ফলোয়ার রয়েছে হনুমা বিহারীর। সেই ফলোয়ারদের মধ্যে থেকেই ১০০জনকে নিয়ে একটি স্বেচ্ছাসেবকদের টিম তৈরি করেছেন। যে টিমটি বিভিন্ন সঙ্কটে মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছেন। 

এই টিমে অন্ধ্রপ্রদেশ দলে তাঁর সতীর্থ পৃথ্বীরাজ ইয়ারা, দিল্লির কংগ্রেস নেতা বিভি শ্রীনিবাসের মতো বন্ধুরা ছাড়াও হনুমার স্ত্রী এবং বোন সহ তাঁর পরিবারের লোকজনও রয়েছেন। হনুমার স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্যরা মূলত অন্ধ্রপ্রদেশ, তেলেঙ্গানা ও কর্নাটকের। এই একশো জনকে নিয়ে একটি হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপও তৈরি করা হয়েছে।

এই টিম ঠিক কী কাজ করছেন? হনুমা বহু তথ্য রিটুইট করছেন বা তাঁর টিমের সদস্যদের সঙ্গে শেয়ার করছেন। হনুমা যে তথ্য শেয়ার করছেন, সেই সমস্যা সমাধানের জন্য ঝাঁপিয়ে পড়ছে তাঁর টিম। হনুমা বিভিন্ন তথ্য রিটুইট করার ফলে অনেক নানা ভাবে মানুষ উপকৃতও হচ্ছেন। হনুমা বলেছেন, ‘ভারতে করোনার দ্বিতীয় ডেউ আছড়ে পড়ার পর যে ভয়ানক পরিস্থিতি হয়েছে, সেটা কল্পনাও করা যায় না। হাসপাতালে বেড নেই। ওষুধ নেই, খাবার নেই। তাই মানুষের পাশে থাকার একটু চেষ্টা করছি।’

হনুমার থেকে তথ্য পেয়েই তাঁরা প্লাজমা, অক্সিজেন, ওধুষের ব্যবস্থা করছেন। বাড়ি বাড়ি খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন। হাসপতালের বেড জোগাড় করছেন। হনুমা বলেছেন, ‘এই কঠিন পরিস্থিতিতে মূলতঃ একদম দুঃস্থদের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছি। যাঁদের সত্যি এই কঠিন সময়ে সাহায্যের প্রয়োজন রয়েছে। এখনও পর্যন্ত এটুকুই করতে পেরেছি। এর পর এই পরিষেবা আরও বাড়ানোর ইচ্ছে রয়েছে।’

এর সঙ্গেই হনুমা বলেছেন, ‘আমি একজন জনপ্রিয় ক্রিকেটার। কিন্তু মানুষের পাশে থাকতে পারছি, শুধুমাত্র স্বেচ্ছাসেবকদের নিরলস কঠোর পরিশ্রমের ফলেই। প্রথমে তো আমি নিজেই বিভিন্ন তথ্য শেয়ার করছিলাম। তার পর কয়েক জন বন্ধুকে অনুরোধ করি। যে ভাবে আমার বন্ধু ও ফলোয়াররা স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে এগিয়ে এসেছেন, তাতে কোনও প্রশংসাই যথেষ্ট নয়।’

আইপিএলে সুযোগ না পেয়ে ইংল্যান্ড চলে গিয়েছিলেন হনুমা। ওখানে কাউন্টি খেলে নিজেকে তৈরি করেছেন তিনি। ৩ জুন ভারতীয় দল ইংল্যান্ড পৌঁছলে তাদের সঙ্গে সরাসরি যোগ দেবেন হনুমা।

বন্ধ করুন