বাংলা নিউজ > ময়দান > ধোনির মতো নরম হলে রানই করতে পারত না, কোহলিকে ঢাল করে ফের ধোনিকে বিঁধলেন হরভজন
আগ্রাসী ভঙ্গিমায় বিরাট কোহলি। ছবি- রয়টার্স। (Action Images via Reuters)
আগ্রাসী ভঙ্গিমায় বিরাট কোহলি। ছবি- রয়টার্স। (Action Images via Reuters)

ধোনির মতো নরম হলে রানই করতে পারত না, কোহলিকে ঢাল করে ফের ধোনিকে বিঁধলেন হরভজন

  • পরিসংখ্যানের বিচারে কোহলি ভারতের সফলতম টেস্ট অধিনায়ক।

বিরাট কোহলির নেতৃত্বে ভারতীয় দল কোনো আইসিসি ট্রফি না জিতলেও তিন বলের ক্রিকেটই পরিসংখ্যানের দিক থেকে রেকর্ড বেশ ভালই। লাল বলের ক্রিকেটে তো তা চমকপ্রদ। বিশ্বের এক নম্বর টেস্ট দল করার পাশপাশি টেস্ট অধিনায়ক হিসেব ভারতের হয়ে সর্বাধিক ৩৩ টি ম্যাচ জিতেছেন ক্যাপ্টেন কোহলি। এই সাফল্যের জন্য কোহলির আগ্রাসী ভঙ্গিমারই প্রশংসা করেন হরভজন সিং।

India TV-র এক আলোচনা সভায় হরভজন, ভারতীয় দলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে কোহলির মতো আরও নেতার দরকার বলেই জানান। সদ্য প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটারের দাবি, ‘এটা (কোহলির আগ্রাসন) ভারতীয় দলের সঙ্গে একেবারে ভালভাবে খাপ খায় এং দলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে ওর মতো আরও ক্রিকেটারের দরকার। আগে দল অস্ট্রেলিয়া সফরে গেলে কী ভাবে টেস্ট ম্যাচ বাঁচানো যায়, সেকথা ভাবত। বিরাটের নেতৃত্বে দল এখন কী ভাবে সিরজ জিতবে, সেই চিন্তাভাবনা নিয়ে অস্ট্রেলিয়া সফরে যায়।’

সম্ভবত ২০১৪ সালে অ্যাডিলেডে কোহলির ১৪১ রানের ইনিংসের দিকে ইঙ্গিত করে হরভজন জানান কোহলি নিজে দুর্ধর্ষ ব্যাটিং করে ম্যাচ ড্র করার পরও বিন্দুমাত্র খুশি ছিলেন না। ‘আমার এমনই এক সিরিজের কথা মনে আছে যেখানে ও প্রচুর রান করা সত্ত্বেও সিরিজটা ভারতীয় দল হেরে গিয়েছিল। ভারতীয় দলকে ওই ম্যাচে ৪০০ মতো রান করতে হতো এবং কোহলি সেঞ্চুরি করেছিল। ও সাজঘরে ফেরার পর আমি ওকে বলি যে ম্যাচটা ড্র করার জন্যও খেলা যেত। তবে ও আমায় সাফ জানিয়ে দেয়, ম্যাচ ড্র করার কোনো গুরুত্ব নেই, হয় আমরা জিতব না হয় হারব। যেদিন আমরা ঠিক করে লড়াই করা শিখে যাব, সেই ম্যাচ জিততেও শুরু করব।’ জানান হরভজন।

কোহলির এই মনোভাবটাই মনে ধরেছে হরভজনের। অনেকে ভারতীয় টেস্ট অধিনায়কের অত্যাধিক আগ্রাসনের জন্য তাঁর সমালোচনা করে থাকে। তবে কোহলির ক্ষেত্রে এই আগ্রাসনটাই তাঁর সাফল্য়ের চাবিকাঠি বলে মনে করেন ভাজ্জু। ‘কোহলির মানসিকতা ভিন্ন হওয়ায় ভারতীয় দলেও পরিবর্তনটা চোখে পড়েছে। ওরা অস্ট্রেলিয়ার ঘরের মাঠে দুইবার সিরিজ জিতেছে, ইংল্যান্ডে ভাল খেলেছে এবং আশা করছি দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতেও ওদের হারাতে পারবে। আমার মতে ও অধিনায়ক হওয়ার দায়িত্ব দারুণভাবে সামলেছে। ওর আগ্রাসনটাই ওকে আজ কোহলি বানিয়েছে, সাফল্য এনে দিয়েছে। এম এস ধোনির মতো নরম প্রকৃতির হলে আমার মনে হয় না ও এত রান করতে পারত।’ দাবি হরভজনের।

বন্ধ করুন