বাংলা নিউজ > ময়দান > 'স্যার, প্লিজ আমায় বিশ্বকাপটা উতরে দিন', ফিট থাকতে কাকুতি-মিনতি করেছিলেন হার্দিক
হার্দিক পান্ডিয়া। (ফাইল ছবি, সৌজন্যে এপি)

'স্যার, প্লিজ আমায় বিশ্বকাপটা উতরে দিন', ফিট থাকতে কাকুতি-মিনতি করেছিলেন হার্দিক

  • ২০১৯ সালের বিশ্বকাপে খেলার জন্য কাকুতি-মিনতি করেছিলেন হার্দিক পান্ডিয়া। জানালেন তৎকালীন স্ট্রেন্থ এবং কন্ডিশনিং কোচ শংকর বসু।

শুভব্রত মুখার্জি

২০১৯ সালের একদিনের বিশ্বকাপের অভিযান যাতে ঠিকভাবে শেষ করতে পারেন, সেই কারণে রীতিমতো কাকুতি-মিনতি করেছিলেন হার্দিক পান্ডিয়া! পিটের চোট নিয়েই বিশ্বকাপে খেলতে নেমে সমস্যায় পড়তে হয়েছিল‌ হার্দিককে। প্রভাব পড়েছিল তাঁর পারফরম্যান্সেও। সেই সময় পান্ডিয়াকে সর্বস্ব উজাড় করে দিয়ে ফিট করার চেষ্টা করেছিলেন তৎকালীন স্ট্রেন্থ এবং কন্ডিশনিং কোচ শংকর বসু। 

বিয়ারবাইসেপস নামক এক ইউটিউব চ্যানেলে বসু বলেন, 'হার্দিক একজন অসাধারণ মানুষ। আমার মনে আছে, তখন সবে আইপিএল শেষ হয়েছে। তারপরই শুরু হয় ২০১৯ সালের একদিনের বিশ্বকাপ। হার্দিকের (পিঠে) বেশ ব্যথা ছিল। কারণ ওকে সেইসময় অনেক ম্যাচ খেলতে হয়েছিল। আমায় ও বলেছিল স্যার দয়া করে আমায় এই বিশ্বকাপটা পার করিয়ে দিন। আমায় ফিট থাকতে হবে। আমি ওকে গোটা বিশ্বকাপটা পার করে দিতে সাহায্য করেছিলাম। ওর সঙ্গে কাজ করাটা বেশ সহজ‌।'

আরও পড়ুন: হার্দিকের বিকল্প নেই, বলছেন ভারতের প্রাক্তনী, ভেঙ্কি কি তা হলে খরচের খাতায়?

শংকর আরও বলেন, 'সত্যি বলতে একজন অলরাউন্ডারের চাহিদাটা বেশ ভিন্ন হয়। ওদের শরীর এবং অন্যান্য বিষয়টাকে বোঝা খুব গুরুত্বপূর্ণ। ও খুব বেশি জুনিয়র ক্রিকেট খেলেনি। হঠাৎ করেই ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে খেলা শুরু করে। ফলে চাপটাও অনেক বেশি পড়েছিল। প্রত্যেকটা দিন ওকে একধরনের চাপ নিতে হত। তারপর ধীরে ধীরে ও এটাতে অভ্যস্ত হয়ে যায়। পেসাররা এবং অলরাউন্ডাররা মাঝেমধ্যেই চোট পাবেন - এটা খেলাটার অঙ্গ।'

বন্ধ করুন