বাংলা নিউজ > ময়দান > হার্দিকের বিশ্বাস ছিল ম্যাচটাও জেতাতে পারবে, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনাল প্রসঙ্গে শ্রীধর

হার্দিকের বিশ্বাস ছিল ম্যাচটাও জেতাতে পারবে, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনাল প্রসঙ্গে শ্রীধর

হার্দিক পান্ডিয়া (PTI)

২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল ভারত এবং পাকিস্তান। সেদিন প্রথমে ব্যাট করেছিল পাকিস্তান দল। মাত্র ৪ উইকেট হারিয়ে পাক দল করেছিল ৩৩৮ রানের বিরাট এক স্কোর।

শুভব্রত মুখার্জি: ভারতীয় সিনিয়র দলের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার হার্দিক পান্ডিয়া। দীর্ঘদিন পরে দলে ফিরে বেশ ভালো ফর্মে রয়েছেন তিনি। ব্যাট এবং বল হাতে বেশ কিছু ভালো পারফরম্যান্স সাম্প্রতিক সময়ে করেছেন তিনি। সেই হার্দিক সম্বন্ধেই এক অজানা কাহিনী শোনালেন দলের ফিল্ডিং কোচ আর শ্রীধর। তিনি জানিয়েছেন ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনাল ভারতকে জেতানোর ক্ষমতা রাখেন বলে বিশ্বাস ছিল হার্দিক পান্ডিয়ার। আউট হয়ে ড্রেসিংরুমে ফেরার পর নিজের হতাশা প্রকাশের সমযও নাকি সেকথা বলেছিলেন তিনি এমনটাই দাবি আর শ্রীধরের।

ক্রিকেট ডট কমে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এমনটাই দাবি করেছেন আর শ্রীধর। তিনি জানিয়েছেন 'ও মনে করেছিল সেদিনকে ভারতকে ফাইনালটা (২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি) ও জেতাতে সম্ভব। যেভাবে ও ব্যাট করছিল। দেখে মনে হচ্ছিল ও যেন নিজের যেন একটা আলাদা জায়গা তৈরি করে নিয়েছিল। সেদিনকে সবাই সেটাই বলছিল। ও মনে করেছিল সেদিন ও এবং জাদেজা মিলে ভারতকে ম্যাচটা জেতাতে পারবেন। দুর্ভাগ্যবশত সেটা সেদিন হয়নি। তবে এটাও সত্যি সেদিনের সেই ইনিংসটা বিশ্বকে চিনিয়ে ছিল হার্দিকের জাত। তাই না?'

২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল ভারত এবং পাকিস্তান। সেদিন প্রথমে ব্যাট করেছিল পাকিস্তান দল। মাত্র ৪ উইকেট হারিয়ে পাক দল করেছিল ৩৩৮ রানের বিরাট এক স্কোর। ম্যাচে দুরন্ত শতরান করেছিলেন ফখর জামান। ১১৪ রান করেছিলেন এই বাহাতি ব্যাটার। জসপ্রীত বুমরাহ অবশ্য সেদিন ফখরকে আউটও করে দিয়েছিলেন। তবে বলটা নো বল থাকায় জীবনদান পান ফখর। তারপরেই হাকান দুরন্ত শতরান। ফখরকে যোগ্য সঙ্গত দেন মহম্মদ হাফিজ এবং আজহার আলি। হাফিজ করেন অপরাজিত ৫৭ রান। ৫৯ রান করেছিলেন আজহার।

রান তাড়া করতে নেমে চাপে পড়ে যায় ভারত। মহম্মদ আমিরের বোলিং তাণ্ডবে একটা সময় স্কোর দাড়ায় ৩৩/৩। প্যাভিলিয়নে ফিরে গিয়েছেন রোহিত, বিরাটরা। পরের তিনটি উইকেটও ভারত হারায় মাত্র ৩৯ রানে। সাজঘরে ফিরে যান মহেন্দ্র সিং ধোনি, যুবরাজ সিং এবং কেদার যাদব। এরপরেই ২২ গজে জুটি বাধেন জাদেজা এবং হার্দিক। সপ্তম উইকেটে তারা ৮০ রান যোগ করেন। তবে হার্দিক পান্ডিয়া রান আউট হওয়ার পরেই কার্যত ম্যাচের ভাগ্য নির্ধারণ হয়ে গিয়েছিল। ১৫৮ রানে অলআউট হয়ে গিয়েছিল ভারত। ফলে ফাইনাল জিতেছিল পাকিস্তান।

বন্ধ করুন